ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

 

অমর একুশে বইমেলা ২০১২ শুরু হয়েছে, আজ ১৯তম দিন চলছে। এবারের বই মেলায় একটা বিষয় খেয়াল করলাম যে, তুলনা মুলক ভাবে ছোটদের বইয়ের বিক্রি বেশি। বিষয়টা দেখে আমার ভাল লাগল, তবে একই সাথে খারাপ লাগল তখন ই যখন দেখলাম যে আমাদের দেশী লেখকের বইয়ের থেকে বিদেশী লেখক কিংবা বিদেশী বিভিন্ন কার্টুন চরিত্র নিয়ে লেখা বইয়ের চাহিদা ছোট বাচ্চাদের কাছে বেশি। এর কারন হিসাবে আমি ছোট বাচ্চাদের প্রতি দোষারোপ করব না, কারন বাবা-মা তাদেরকে সে বিষয়েই আগ্রহী করে তৈরী করেছেন। আমাদের অনেক বাবা-মা তাদের বাচ্চাদের কে ইংরেজী মাধ্যমে পড়াশুনা করাচ্ছেন, আমিও সেই ইচ্ছেটিকে স্বাগত জানাই। বর্তমান বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য অবশ্যই ইংরেজী ভাষার গুরুত্ব অনেক বেশি। তবে সব বাবা-মা কে একটা বিষয়ে মনে রাখা উচিত, প্রথমে নিজের মাতৃভাষা তার পাশাপাশি অন্যান্য ভাষা।

এবারের বইমেলায় আসা কয়েকজন খুদে পাঠকদের কে জিজ্ঞেস করেছিলাম তারা দক্ষিনারঞ্জন মিত্র মজুমদার কিংবা সুকুমার রায়ের নাম শুনেছে কি না, খুবই দুঃখজনক হলেও সত্য যে তাদের কেউ কোনদিনও নাকি এই নাম গুলো শুনেনি! এই উত্তর পাওয়ার পর আর তাদেরকে এই বিষয়ে কিছু জিজ্ঞেস করাটা নিজের কাছে বোকামি মনে হল।

আজ আমাদের বাচ্চারা স্কুলে কিংবা বাসায় বসে চিন্তা করছে কেউ Doremon এর মত হবে আবার কেউ বা Tom & Jery এর মত মজা করবে, কিন্তু আমাদের কি উচিত না আমাদের বাচ্চাদেরকে আমাদের সংস্কৃতির সাথে পরিচিত করানো? এই দায়িত্বটা কে নিবে? বাবা-মা যদি এই বিষয়ে আগ্রহী না হোন তাহলে বাচ্চারা জানবে কিভাবে? আমরা কি আমাদের বাচ্চাদেরকে নিজ সংস্কৃতি জানা থেকে বঞ্ঝিত করছি না!!!!!!!!!!!