ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

সন্ধা ৭ টার একুশের নিউজ দেখছিলাম। হটাত করে ই নিউজ প্রেজেন্টার যেন মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ার মত একটি নিউজ শোনাল। “ রুমানা মঞ্জুর এর দুটি চোখই নষ্ট হয়ে গেছে”। আজ ইন্ডিয়া থেকে দেশে ফিরেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর সহকারি অধ্যাপিকা রুমানা মঞ্জুর। আবেগ জড়ানো কণ্ঠে তার বাবা বললেন, “ তার মেয়ের চোখ আর ভাল হবেনা! ঐ খানকার ডাক্তার এই কথা বলেছেন” রুমানা কান্না জড়ানো কণ্ঠে আবার ও ঐ নর পশুর বিচার চেয়েছেন। অনেক বিমর্ষ দেখাচ্ছিল রুমানাকে। চোখে কালো সান গ্লাস। এম এস করার পর সপ্নের পি এইচ ডি করা বোধ হয় থেমেই গেল এই খানে! বেঁচেও মনে হয় মারাই গেলেন রুমানা! এই পৃথিবীর রং, রস, রুপ কি হারিয়ে যাবে রুমানার জীবন থেকে? প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তিনি কি আর পাঠদান করাতে পারবেন? কি বিচার হবে সাইদ এর? যার চোখ থেকেও নষ্ট সেই অমানুষ এর যেই বিচারই হোক না কেন, রুমানা কি আর ফিরে পাবে তার চোখ দুটি?

এমনি হাজারো প্রশ্ন মাথায় ঘুর পাক খাচ্ছে। কি লিখবো আর, কিছুই যে আর খুঁজে পাচ্ছি না। তবে কি হৃদয়ে যখন বেদনার বাষ্পাগার হয়ে জমাট বাঁধে, কণ্ঠের সাথে কলম ও কি তখন বাণী হারায়?