ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

ছবিঃ বিডি নিউজ ২৪.কম

বিরোধী দলের আজকের হরতালে চিফ হুইপ জয়নাল আবেদিন ফারুক আহত হয়েছেন। তিনি বলেছেন পুলিশ অহেতুক তার উপর হামলা চালিয়েছেন। বুট দিয়ে পাড়িয়েছেন। ইতি মধ্যেই বি এন পির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফকরুল সাহেব এর প্রতিবাদ ও জানিয়েছেন।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেছেন বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। যাই হোক মোটা মুটি চিফ হুইপ মারাত্মক ভাবে আহত, এটি আজকের হরতালের টপ নিউজ। এবার আসুন ঘটনাটি কি ঘটেছিল। পুলিশ কি অহেতুক বাড়া বাড়ি করেছিল? নাকি চিফ সাহেব এর বাড়া বাড়ি ছিল?

এটিএন বাংলার রিপোর্টার মাহা মুদুর রহমান পুরা বিষয় টি কভারেজ করেন।সেই সুত্র ধরে দেখা যাচ্ছে হরতালের সমর্থনে বি এন পি দলিয়ো এম পি রা সংসদ ভবন এর দক্ষিন চত্বর থেকে খুব সকালে পদযাত্রা শুরু করে।এবং অনেকটা অশ্লীল ভাবে স্লোগান দিতে থাকে
http://www.youtube.com/watch?v=hYALPkP-Vzg

“ আতাল বল মাতাল বল কেহ রবেনারে,
সব সালারা ভাইসা যাবে কেহ রবেনা

এই ধরনের স্লোগান দিতে দিতে সামনে এলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। পুলিশ এর বাধা পেয়ে চিফ হুইপ ফারুক এক পুলিশকে ভীষণ জোরে ধাক্কা দেয়। এবং ঐ পুলিশ মাটিতে পড়ে যায়। সেই সময় এক পুলিশ কর্মকর্তা ফারুককে বলেন

“ যদি কোন গাড়িতে হাত দেন তাহলে এ্যাকশনে যাব কিন্তু”

এই সময় ফারুক অভদ্র ভাষায় পুলিশের ঐ কর্মকর্তাকে বলেন “

ধুর থো তোর একশান

ফারুকের কথায় পুলিশ কর্মকর্তা ও বেশ খেপে যায় এবং সে বলে ওঠে

থাপড়ায়ে তোমার দাত ফেলায়ে দেব, শুয়ারের বাচ্চা কোথাকার

। এর পর চিফ হুইপ বলেন

কার, আমার, ফেলা

এইরূপ বাক বিতণ্ডা চলতে থাকে অনেক খন। তার পর ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে পুলিশ লাঠি চার্জ করে। এবং ফারুক মারাত্মক ভাবে আহত হন।
এই হচ্ছে ফারুক সাহেব এর আহত হবার মুল খবর।

পাঠক বলুন সব দোষ কি পুলিশের ছিল? না কি হরতালকারীদেরও ছিল?

খবর সুত্রঃ এ টি এন এর সংবাদ।