ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

 

দেশ বরেণ্য কণ্ঠ শিল্পী মিনা আবিদ শাহরিয়ার বাপীর অকাল মৃত্যু হয়েছিল গত ২৯ শে জুলাই। নাট্য নির্মাতা ও অভিনেতা আফজাল হোসেনের বিজ্ঞাপনি সংস্থা মাত্রার এক অফিসিয়াল কাজে আবিদ সহ ৪০ জনের এক টিম কক্স বাজারে যায়। এবং গত ২৯ শে জুলাই শুক্রবার কক্সবাজার সমুদ্রে আবিদের সলিল সমাধি ঘঠে। নির্মম আর হৃদয় বিদারক সেই ঘটনায় গোটা দেশ শোকাহত হয়ে পড়ে। কিন্তু এর মাঝে নাট্য নির্মাতা আফজাল হোসেনের অনেক অজানা কাহিনি ফাঁস হতে থাকে। আফজাল হোসেনের সেই সব কীর্তি নিয়ে ব্লগে লিখেছিলাম মিঃ আফজাল হোসেন আপনার জন্য এক রাশ ঘৃণা! আজকের এই লেখাটি যারা পড়তে চাইবেন তারা যদি পূর্বের ঐ লেখাটি পড়ে না থাকেন তাহলে একটু কষ্ট করে আগের ঐ লেখাটি পড়ে নিবেন।

আজ সেই লেখার কিছু আপডেট দিচ্ছি।

খুলনার আবিদ শাহরিয়ার স্মৃতি পরিষদের এক সভা গতকাল রবিবার খুলনা নগরীর উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট ময়ীনউদ-দীন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আবিদের মৃত্যুর পর তার কর্মরত প্রতিষ্ঠান ‘মাত্রা’ ও এর প্রধান অভিনেতা আফজাল হোসেনের অমানবিক দায়িত্বহীন ও অমানবিক আচরণের তীব্র নিন্দা জানানো হয়সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আগামী দিনগুলো মাত্রা’র প্রধান অভিনেতা আফজাল হোসেনকে খুলনায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। এছাড়া আগামী ১৯ আগস্ট শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে আবিদ স্মরণে এক শোক সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক ও অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট এম এম সাজ্জাদ আলী, সদস্য সচিব অধ্যাপক শংকর কুমার মল্লিক, আর্টিষ্ট ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম বাবলু, অ্যাডভোকেট বাহালুল করিম, প্রদীপ রাহা, শিল্পী সাব্বির কাদের চৌধুরী লিপু, শামীম বুলবুল ও এস এম জাফর ইকবাল, অ্যাডভোকেট হিমাংশু চক্রবর্তী, সাজ্জাদুর রহিম পান্থ, মোঃ আলী হায়দার প্রমুখ।

সভায় আবিদ শাহরিয়ার স্মরণে স্মরণিকা প্রকাশের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।এদিকে ক্লোজআপ তারকা মিনা আবিদ শাহরিয়ার বাপীর অকাল মৃত্যুর সঙ্গে সন্দেহপূর্ণ ও সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞাপনী সংস্থা মাত্রার কর্ণধার অভিনেতা আফজাল হোসেনের কাণ্ডজ্ঞানহীন বিবেক বর্জিত আচরণের প্রতি ঘৃণা, নিন্দা ও অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে এবং আবিদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা এবং মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনার ৮০টি সংগঠনের নেতৃত্বশীল সংগঠন খুলনা সাংস্কৃতিক উন্নয়ন পরিষদের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন পরিষদের সভাপতি সাবেক হুইপ এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা, কার্যকরী সভাপতি শাহীন জামাল পন, সহ-সভাপতি ডাঃ শেখ বাহারুল আলম, এম এ গফুর, অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, কামরুল ইসলাম বাবলু ও রোজী রহমান, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট বাহালুল করিম, যুগ্ম সম্পাদক আলী হায়দার, নাসির জবেদ ও জেসমিন জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম এম সাজ্জাদ আলী, দপ্তর সম্পাদক দীপক বর্মকার, প্রচার সম্পাদক এনামুল হক বাচ্চু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক এম এম জাফর ইকবাল, অর্থ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হেমন্ত সরকার, নাট্য সম্পাদক মিজানুর রহমান রাজা, আজীবন ও নির্বাহী সদস্য অধ্যক্ষ দেলোয়ারা বেগম, বিশিষ্ট গীতিকার মোকলেসুর রহমান বাবলু প্রমুখ।

এদিকে বরেণ্য শিল্পী আবিদ শাহরিয়ার স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে আবিদের মৃত্যুর পর বিজ্ঞাপনী সংস্থা মাত্রা ও এর কর্ণধার অভিনেতা আফজাল হোসেনের অমানবিক আচরণের প্রতিবাদে ও তদন্ত দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রশাসকের নিকট আজ স্মারকলিপি পেশ করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি পেশ করা হয়। পরিষদের পক্ষ থেকে এ কর্মসূচি সফলের জন্য খুলনার আপামর মানুষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য গত শনিবার আবিদের বাবা মিনা মিজানুর রহমান গত শনিবার খুলনায় এক প্রেস কনফারেন্স করেন। ঐ সংবাদ সম্মেলনে আফজাল হোসেনের নিরব ভূমিকাকে সন্দেহের চোখে দেখা হয়। আবিদের বাবা বলেন তার সন্তানের মৃত্যুতে আফজালের যথেষ্ট ভুমিকা রয়েছে। এবং আজ ও কালের মধ্যে আফজালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হতে পারে।

***
তথ্য সূত্রঃ
আবিদের পরিবারের সঙ্গে ফোনে ব্যক্তি যোগাযোগ
এবং দৈনিক পূর্বাঞ্চল ( স্থানীয় দৈনিক- খুলনা)