ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

আসলে এই ধরনের কোন পোস্ট দেবার ইচ্ছা আমার ছিলনা একদম। কিন্তু অনেকটা বাধ্য হয়ে এই পোস্ট টি দিতে হচ্ছে। বাক স্বাধীনতা প্রকাশের ওপেন প্লাটফর্ম হিসাবে ব্লগ দিনের পর দিন জনপ্রিয় হচ্ছে। ভার্চুয়াল এই জগতে ব্লগারদের অবাধ বিচরণ। কোন ব্লগার কি লিখবেন বা লিখতে চান এটি তার মর্জি। তবে একজন ব্লগার এর পাঠক সংখ্যা কেমন কিংবা একজন ব্লগার কেমন গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছেন তার লেখার মধ্য দিয়ে সেটি পাঠক সংখ্যা দেখলে বোঝা যায়। এই ক্ষেত্রে সহজ উপায় হল ব্লগার এর লেখাটি কতবার পঠিত হয়েছে বা তার ক্লিক সংখ্যা কত। আবার দেখা যায় অনেক সময় বিগ ব্লগারদের লেখাও নানা কারণে হিট হচ্ছেনাক্লিক বাড়ে ২ টি কারণে। প্রথমত লেখাটি পড়তে। এবং দ্বিতীয়টি কমেন্ট করতে। আবার দেখা যায় কমেন্ট এর রি কমেন্ট বা জবাব ব্লগার দিয়েছে কিনা এটি দেখতেও ওই লেখায় ঢুকতে হয়। সেই ক্ষেত্রে আবার ক্লিক সংখ্যা বেড়ে যায়। সে যাই হোক ব্লগে ব্লগার লিখবেন তার ভাষায়। আর পাঠক পড়বে কিনা এটি পাঠকদের ব্যাপার। পাঠকদের এই ক্ষেত্রে জোর করে পড়ানোর কোন সুযোগ নেই।

সম্প্রতি বিডি ব্লগে কিছু বিষয় অনেক কে বিচলিত করেছে। এটি কি পরিকল্পিত না অপরিকল্পিত সেটি জানা যায়নি। তবে অবশ্যই কিছু কারুকার্য করা হচ্ছে ব্লগ কে হিট বা পাঠক বাড়ানোর জন্য। অর্থাৎ এই ক্ষেত্রে ক্লিক বাড়ানোটা হচ্ছে মুখ্য বিষয়। নিজের লেখা কে হিট বা নিজের লেখায় ক্লিক বাড়াতে ব্যবহার করা হচ্ছে অটো রিফ্রেশর! অর্থাৎ এটি ব্যবহার করে প্রতি এক মিনিটে ৬০ টি ক্লিক বাড়ানো সম্ভব! তার মানে ৬০ মিনিটে কেউ চাইলে ৩৬০০ ক্লিক প্রদর্শন করতে পারে। আর সেই অপ ব্লগার রা ভার্চুয়াল এই প্লাটফর্মে নিজেকে দেখাতে চায় দেখ আমার লেখা হিট! আমার লেখায় কত পাঠক! যাই হোক গেল দিনের একটি অভিজ্ঞতা শেয়ার করি। গত কাল রাত ১০-০৮ মিনিটে লিটন নামের একজন ব্লগার ৪ লাইনের একটি লেখা দেন। শিরোনাম- “আমি একজন নতুন ব্লগার”
আর লেখাটি হল-

আমি একজন নতুন ব্লগার। আপনাদের মাঝে এসে আনন্দিত বোধ করছি। অনেক অনেক ভাল লাগছে আপনাদের পেয়ে। মাথায় অনেক লেখা আসছে, কিন্তু কোন কিছুই ঠিকমত লিখতে পারছি না। মনে হয় প্রথম প্রথম অনেকেরই এই সমস্যা হয়। আশা করি আপনাদের সমর্থন ও উৎসাহ পেলে এটা কাঁটিয়ে উঠতে পারব। আমার জন্য শুভকামনা দিন। আশা করি আপনাদের সবাইকে আমার পাশে বন্ধুরুপে পাব।

মজার ব্যাপার হচ্ছে এই ৪ লাইন লেখাটি রাত ১১-০৫ মিনিটে ১০৩৬ বার পঠিত হয়েছে!!! এরপর দেখতে লাগলাম প্রতি মিনিটে ২০ থেকে ৩০ বার ক্লিক বাড়ছে। এই দেখে আমি কমেন্ট করলাম রাত ১১-২৪ মিনিটে।

এই লেখক বদমাশ কোন সন্দেহ নেই।
নিজের লেখা হিট করতে অটো রিফ্রেশর ইউজ করছে। অসম্ভব। এই লেখা কিভাবে এতো অল্প সময়ে ১৫০০ বার পঠিত হয়। এমন কি আছে?

ততক্ষণে ক্লিক ১৫০০! তার মানে ১৯ মিনিটেই এই অখাদ্য মার্কা লেখাটি ৪৬৪ বার পঠিত। কিন্তু কাকতালীয় ভাবে আমার কমেন্ট এর পর তার ক্লিক সংখ্যা কমে গেল। গেল দিনের সব চাইতে আলোচিত নিউজ ছিল গাদ্দাফির মৃত্যুর সংবাদ টি। যেটি বাসন্ত বিষুব নামে একজন ব্লগার পোস্ট করেছিলেন। অথচ ওই লেখাটি ততক্ষণে ১০০ বার ও পঠিত হয়নি যতক্ষণ লিটন সাহেবের ৪ লাইন মার্কা লেখাটি ১৫০০ বার পঠিত হয়েছিল। আমি গত রাতে ১২ টার দিকে ব্লগ সঞ্চালকের সাথে সরাসরি আমার সেল ফোন দিয়ে কথা বলি। তিনিও বেশ উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিষয়টি নিয়ে। এবং তিনি নিজেও স্বীকার করেন এই লেখায় এতো ক্লিক হতে পারেনা। আমি ব্লগ টিমের সাথে কথা বলে জানতে পারি অচিরেই এই ব্যাপারে তারা পদক্ষেপ নিবেন। এই লিটন নামের ব্লগার এর আগে যারা ব্লগে তাদের লেখা পোস্ট করেন সেই ৫ টি লেখাও ৬০ এর কোঠায় যখন পৌছাতে পারেনি তখন উনার লেখার পাঠক ১৫০০! এখন দেখা যাচ্ছে এই ৪ লাইনের লেখার পাঠক এক দিনেই ২৫০০ এর কাছা কাছি।

অন্যদিকে আহমেদ শরীফ নামের আর একজন নূতন ব্লগার মাত্র একটি পোস্ট দিয়েছেন। শিরোনাম- ‘ইসলামবিদ্বেষ’ : লাভজনক একটি ব্যবসা”
তিনি এটি পোস্ট করেন বুধবার ১৯ অক্টোবর ২০১১, দুপুর ১:১৮
এই পর্যন্ত তার ক্লিক সংখ্যা ১০৫৫০ এর মত! এটিও বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। মুশফিক ইমতিয়াজ চৌধুরী বলেছেন:21 দুপুর ২:২৮, শুক্রবার ২১ অক্টোবর ২০১১-

১) গত পরশু পর্যন্ত বিডিনিউজ২৪ ব্লগে নতুন আসা আনাড়ি বল্গার (ব্লগার) আহমেদ শরীফের লেখা ১০০০ বারও পঠিত হয়নি। গতকাল সেটি হয়ে গেল ১০৪০০+ ! ইতর ব্যক্তির ইতরামি যে এতটা বেশি হতে পারে আমি ভাবতে পারিনি।
২) তার আর্টিকেল বিডিনিউজ২৪ এর নিউজ সাইটের (মেইন সাইট) ১ম পেজেও ছিলোনা, কিন্তু আমারটি ৩-৪ দিন ধরে ১ম পেজে ছিলো। উপরন্তু আমার পোস্টে ২৩৭ টি মন্তব্য এসেছে। অর্থাৎ, অজস্র মানুষ আমার লেখার পেজটি বারবার দেখেছে যে নতুন কোন মন্তব্য আসলো কিনা। এজন্যই ৬৫০০+ হিট হয়েছিলো। কিন্তু এই আহমেদ শরীফ নামের মিথ্যাবাদী মহাচোরের পোস্টে মাত্র ২১ টি মন্তব্য এসেছে, অর্থাৎ তার পেজটি মানুষ বারবার দেখেনি এবং তাতেই ১০৪০০+ পেজহিট। কত বড় নির্লজ্জ বেহায়া হলে এই রকম ভারসাম্যহীন (২১টি মন্তব্যের বিপরীতে ১০৪০০ হিট) চুরি করতে পারে ! ব্লগ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এব্যাপারে কথা হয়েছে গতকাল, তারা আহমেদ শরীফের ভণ্ডামি সম্পর্কে অবগত এবং ব্লগ ডেভেলপার টিম এটি দমনে ব্যবস্থা নেবেন।
৩) আমি তো বলেছিই, আহমেদ শরীফের অবৈধ উপায়ে হিট বাড়ানোতে ব্লগটিমের জবাব বা অ্যাকশন না দেখে আমিও আহমেদ শরীফের পন্থা অনুসরণ করেছি শুধু এটি বোঝাতে যে সে এই চোরাপন্থায় পেরে উঠবে না কেননা তার ইন্টারনেট স্পিড স্লো। এজন্যই নমুনা দেখিয়ে আমি সেটি বন্ধ করে দিয়েছি। আর পেজহিট বাড়ানোর ইচ্ছে থাকলে আমার আগের লেখাগুলোতেও সেটি বাড়াতাম। আমার আগের লেখাগুলোর লিংকঃ
লিঙ্কঃ http://blog.bdnews24.com/dr_mushfique
দেখা যাচ্ছে, প্রত্যেকটি লেখায় মন্তব্যসংখ্যার সঙ্গে সংগতিপূর্ণ পেজহিট। আমার ২য় লেখাটি ৪৩৭ বার পঠিত। আহমেদ শরীফের মত হীন চরিত্রের ব্যক্তির মত হলে ১ম বা ২য় লেখাটি ১০৪০০+ হিট হতো।
৪) প্রকৃতপক্ষে আধারের বাসিন্দা তথাকথিত এম এফ অটো রিফ্রেশের নামটি বলায় আহমেদ শরীফের মত বেহায়া লোকটি সেটা গুগল করে দেখেছে এবং তার পোস্টটিতে পেজ হিট বাড়িয়েছে। আমার নজরে পড়ার পর আমিও তাকে বোঝানোর জন্য নমুনা হিসেবে দেখিয়েছি যে তার ইন্টারনেট স্লো এবং তার এই চুরিবিদ্যা ধরা পড়ে গেছে।
৫) আহমেদ শরীফ কোন জনপ্রিয় কেউ নয় যে তার লেখা মানুষ পড়ার জন্য ব্যাকুল হয়ে থাকবে। কোথাকার কোন গঞ্জিকা সেবনকারী ( অভিশপ্তকে ধন্যবাদ) এখানে এসেছে মাতলামি করতে। দুই দিন পরে এইসব ইতর শ্রেণীর গাঁজাখোরগুলোর অস্তিত্বও পাওয়া যাবেনা ব্লগে।
প্রত্যেকটি পয়েন্ট প্রমাণ করে, লোকটি একটি নির্লজ্জ বেহায়া। যদি ১ দিন তার লেখা ১০০০০ বার পঠিত হয় তবে আজকে কেন ১০০০০ থেকে ২০০০০ বা কমসেকম ১৭-১৮০০০ হচ্ছেনা ? কারণ, এত কম সময়ে এইরকম ফালতু একটি পোস্ট পড়ার মত অত পাঠক নেই কোন ব্লগেই এবং সুযোগ বুঝে সেও এই অটো রিফ্রেশ বন্ধ করে দিয়েছে। সুতরাং দেখা যাচ্ছে, কুকুরের চেয়েও অধম এই ব্যক্তি কিভাবে অবৈধভাবে তার পেজহিট বাড়িয়েছে।
আহমেদ শরীফের কাছে আমার প্রশ্ন, সে যেহেতু আল্লাহ-মোহাম্মদে বিশ্বাস করে, তো আল্লাহ-মোহাম্মদের নামে কসম খেয়ে বলুক তো দেখি – তার ১০০০ অনূর্ধ্ব লেখাটিকে সামনে আনার জন্য অটো পেজ রিফ্রেশ ব্যবহার করে ১০০০০+ বানায়নি ? যদি খেতে পারে, তবে বোঝা যাবে ধর্ম আসলে কিছুই মানে না, সবই ভাঁওতাবাজি আর যদি না খেতে পারে তবে যে সে মিথ্যুক সেটা বোঝা যাবে। পালাবি কোথায় ?

যাই হোক বিষয় গুলো আসলে ভাবার বিষয়। আর এই জন্য বি ডি নিউজ এর ফেস বুকে আমি লিখেছিলাম-

Mosaddik Uzzal
ব্লগে নিজের লেখা ক্লিক বাড়াতে কিংবা হিট বানাতে হাস্যকর, নির্লজ্জ পন্থায় অটো রিফ্রেশার ব্যবহার করা হচ্ছে। অবাস্তব, অসম্ভব ভাবে একজন ব্লগার এর লেখা ১০০০০ বার পঠিত শো করছে। ব্লগ টিমের সাথে গেল রাতে কথা বলেছি আমি ব্যক্তিগতভাবে। আশা করি বিষয়টি ব্লগ টিম দেখবে।

জবাবে মুশফিক সাহেব বলেছেন-

মুশফিক ইমতিয়াজ চৌধুরী ahmed sharif started this heinous business by the incitation of adharer bashinda. his article should be removed from the top ten most read articles.

ব্লগ সঞ্চালক মিঃ কৌশিক আহমেদ বলেছেন-

Kowshik Ahmed এটা নিয়ে আমরা আসলে কাজ করছি। আশা করি খুব শীঘ্রই সমাধান হয়ে যাবে।

সত্যি সেলুকাস! ক্লিক বাড়াতে যেই সব হাস্যকর আর নির্লজ্জের মত ভাঁড়ামি চলছে এটি আসলে কোন শুভ বা কল্যাণকর কিছু বয়ে আনবেনা। পাঠকের সচেতনতা জরুরী এই ব্যাপারে। আশা করি অচিরেই এই সমস্যার সমাধান করে ফেলবে বি ডি ব্লগের বিজ্ঞ ব্লগ টিম।

ভালো থাকুন সবাই।
ভালোবাসার পদ্ম ফুটুক দুঃখ দীঘির জ্বলে!