ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সামনের ৫ মাস কোন সিরিজ নেই। এর মধ্যে একটি সিরিজ খেলার কথা রয়েছে পাকিস্তানের বিপক্ষে। তাও আবার পাকিস্তান যেয়ে খেলতে হবে। পাকিস্তানের মাটিতে এখন কেউ নিরাপদ নয়। তাদের দেশের মানুষেরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। নানা সময়ে নানান হামলায় পাকিস্তানের রাজপথ রক্তে লাল হয়েছে। এই অবস্থায় আমাদের ক্রিকেট বোর্ডের সম্মানিত সভাপতি মোস্তফা কামাল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে পাকিস্তান পাঠাতে তোড়জোড় শুরু করেছে। মোস্তফা কামালের কথা হলো, পাকিস্তানের সঙ্গে খেলেই তো আজ আমাদের এত উন্নতি হয়েছে। তাদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক রাখতেই হবে। তারা যদি আমাদেরকে খেলোয়াড় না পাঠায় তাহলে বিপিএল ফ্লপ করবে। আন্তর্জাতিক খেলাও কমে যাবে। আমরা লাহোরে গিয়ে খেলে প্লেনে করে চলে আসবো। একটা দুইটা ম্যাচই তো। কোন সমস্যা হবে না। (সূত্র: বাংলানিউজ২৪)

আমার কথা হল, মোস্তফা কামাল কি ভুলে গেছে ২০০৯ সালের ৩ই মার্চ লাহোরের লিবার্টি চত্বরে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের উপর তালেবানি হামলার কথা? আমাদের ক্রিকেট তো শুধু পাকিস্তানের সাথে খেলে উন্নতি লাভ করে নাই। আমরা বিশ্বের সব টেষ্ট খেলুড়ে দেশকে হারিয়েছি। তাও কি মোস্তফা কামল ভুলে গেছে? যখন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল বিশ্বের বাঘা বাঘা টেষ্ট খেলুড়ে দলকে হারালো তখন কি পাকিস্তান সাহায্য করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে? বিপিএল খেলতে পাকিস্তানিরা না আসে তাহলে অন্যদেশ থেকে খেলোয়াড় আসবে। কারন বিপিএল ১ম আসরেই সবার মন জয় করে ফেলেছে। মোস্তফা কামাল এশিয়া কাপের দল নিয়ে যা করেছে তা সব বাঙ্গালীর মনে আছে। প্রধানমন্ত্রীকে হাজার ধন্যবাদ জানাই এ কারনে,তিনি শেষ মুহূর্তে ক্রিকেট বোর্ডের উপর হস্তক্ষেপ করেছে। তার সাথে সাথে শুনেছি,মোস্তফা কামাল প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে কিছু টক জাল খেয়েছে! পাঠকগন মোস্তফা কামাল বাংলাদেশ কে পাকিস্তান পাঠাতে আধা জল খেয়ে নেমেছে।

বাংলানিউজের সৌজন্য জানা যায়, রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে জাতীয় দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমকে ডেকে নিয়ে বুঝালেন যে,পাকিস্তান যাওয়া কত জরুরি। এ ছাড়াও সরকারকে বুঝাতে মোস্তফা কামাল উঠেপড়ে লেগেছে। তাহলে আমার কথা হল,মোস্তফা কামাল পাকিস্তান যেতে এত আগ্রহী হয়ে উঠলো কেন? তার লাভ কি? মোস্তফা কামালকে আইসিসি সভাপতি হবার জন্য পিসিবি সমর্থন জানাবে। এক শর্তে তা হল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল পাকিস্তানে পাঠাতে হবে। এ ছাড়াও তিনি পাকিস্তানের কাছ থেকে টু পাইস পাবে । এতে করে পরিষ্কার হয়ে গেল মোস্তফা কামাল কত বড় স্বার্থপর। নিজের দেশের ক্রিকেটারদের বিপদের মুখে ঠেলে দিতে তিনি কার্পণ্য বোধ করে না।

ভারতীয় এক সাংবাদিকের কাছে সাক্ষাৎকারে মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা পাকিস্তানকে হেলা করতে পারি না। তাদের খেলোয়াড় আমাদের দেশে খেলে। বাংলাদেশ পাকিস্তানে যাবে । তবে জানিনা কবে কখন হবে। আমরা একা পাকিস্তানে গেলাম আর অন্যরা উপেক্ষা করতে থাকলে কি লাভ হবে। আমি এটা আইসিসি বোর্ড সভায় নিয়ে যেতে চাই। আইসিসির সভায় তা পজেটিভ করার চেষ্টা করবো। এছাড়া মোস্তফা কামাল আরও বলেন,রাজনৈতিক কারণে ভারতীয় দল পাকিস্তান সফর করে না। আমি ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডগুলোকে বোঝাতে চেষ্টা করবো যাতে তাদের ক্রিকেট দল পাকিস্তানে পাঠায়।(সূত্র.বাংলানিউজ)

বিসিবি সভাপতি পাকিস্তানের দালাল নিযুক্ত হয়েছে নাকি? তাকে কি ইংল্যান্ড দক্ষিন আফ্রিকাকে বোঝানোর দায়িত্ব বাংলাদেশ সরকার দিয়েছে? কারন পাকিস্তানের মত জায়গায় তিনি বাংলাদেশকে ঠেলে দিচ্ছেন না। তিনি অন্যসব দেশকে বুঝিয়ে পাকিস্তান যেতে রাজি করাবেন। এ থেকে প্রমাণ হল,তিনি অন্যসব দেশকে পাকিস্তান দল পাঠাতে তাদের বোর্ড সভাপতিকে অনুরোধ করবে। এর কারন কী? মোস্তফা কামাল কেন অন্য দেশ সফর করে পাকিস্তানে দল পাঠাতে অনুরোধ করবে। এতে মোস্তফা কামালের লাভ কি? পাকিস্তান থেকে কি খেয়েছে কামাল। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সফরের জন্য একটি নিরাপত্তা পরিদর্শক দল পাকিস্তান সফর করে । এতে নেতৃত্ব দেন মোস্তফা কামাল। তিনি রির্পোট দেন সরকারের কাছে । মোস্তফা কামালকে একটি কথা স্বরন করিয়ে দিতে চাই তা হল.. সেটা হল,বাংলাদেশ থেকে যখন নিরাপত্তা দল পাকিস্তান সফরে গেলো তখন তাদের দেখালো আমাদের দেশ অনেক নিরাপদ। আপনাদের আসতে কোন সমস্যা হবে না। এরকম একটি নাটক প্রদর্শন করল পিসিবি। যাতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল যাতে পাকিস্তান সফরে আসে। সফরে মাঝপথে কোন রকম বিপদ হলে তার দায়ভার কে নিবে?