ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

পত্রিকার পাতায়, ইন্টারনেট আর টিভি’তে প্রায় সময় দেখা যায় আমাদের দেশে পোশাক কারখানায় ভয়াবহ আগুন, নৌপথে, সড়ক পথে দুর্ঘটনা এবং ফ্লাইওভার ভেংগে পড়া-সারি সারি লাশ! লাশের গন্ধ আর স্বজনদের আহাজারি বাতাসে করুন সুর তৈরি করে যা সাধারন মানুষের চোখ ভিজিয়ে দেয়।

দুর্ঘটনা পর উদ্ধার তৎপরতা দেখা এবং নিহ্তদের স্বজনদেরকে সান্তনার বানী শোনাতে দেশের মন্ত্রী বাহাদুরগন এসি গাড়ীতে চড়ে ঘটনাস্থলে যান। প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধীনেত্রীর পক্ষ থেকে প্রেস রিলিজ দিয়ে মিডিয়াতে জানানো হয়, দুর্ঘটনা্য় উনারা গভীর শোক এবং দু:খ প্রকাশ করেছেন। মাঝে মাঝে সরকারের তরফ থেকে নিহতদের পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষনা করা হয়।

দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সরকারের কোনো পদক্ষেপের কথা শোনা যায় না। তারপর আবার যেই লাউ সেই কদু। আবারো দুর্ঘটনা ঘটে আবারো মিডিয়াতে দেখা যায় মন্ত্রীদের তৎপরতা দেখা আর শোক প্রকাশের রঙ্গ-তামাসা।

জনস্বার্থে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের অভাবে পোশাক কারখানা, সড়ক আর নৌপথে দুর্ঘটনায় মৃত্যুর নিত্য মিছিল, স্বজনদের হাহাকার আর মন্ত্রীদের শোক প্রকাশের রঙ্গ-তামাসা এভাবে আর কতদিন চলবে?

পোষাক কারখানার নিরীহ শ্রমিক, সড়ক এবং নৌপথের সাধারন যাত্রীদের জীবন কি সব সময় এমন নিরপত্তাহীনতার ঝুঁকিতেই থাকবে?