ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

স্কুল ছাত্রী থেকে শুরু করে অনেক সময় বৃদ্ধা নারীও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। সংবাদকর্মীরা নিয়মিত নির্যাতনের খবর পত্রিকায় ছাপছেন। কিন্তু তাতে মুক্তি মিলছে না। নির্যাতনের মাত্রা বৃদ্ধির এত পর্যায়ে আমাদের সমাজের মেয়েরা শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। নির্যাতিত মেয়েটি আত্মহত্যা করে হয়ত নিজের বৈশ্বিক নির্যাতন থেকে মুক্তি পায়। কিন্তু সমাজের নারীদের নির্যাতন থেকে মুক্ত করতে পারে না। বিশ্বায়নের যুগে নারী নির্যাতন অত্যন্ত অমানবিক। কিন্তু এর প্রতিকার কী? যশোরের অভয়নগর উপজেলার সুন্দলী এস টি স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেনীর ছাত্রী সঙ্গীতা মণ্ডল বখাটেদের অত্যাচারে আত্মহত্যা করেছে। খবর প্রথম আলো। তার আত্মহত্যার খবরে মর্মাহত হয়েছেন বাংলাদেশের শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। মর্মাহত হয়ে লাভ কী? এতে কী সঙ্গীতা মণ্ডল আমাদের মাঝে ফিরে আসবে। তা সে আর ফিরে আসবে না। মাননীয় মন্ত্রী অন্তত আর কোন নারীকে যাতে বখাটেরদের নির্যাতনের শিকার হতে না হয়, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিন। আর যাতে আর কোন বোনকে আত্মহত্যা পথ বেছে নিতে না হয়, সে ব্যবস্থা নিন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী।