ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

 

বছরের শুরু হলো দরপতন দিয়ে। গেল দু’বছর ধরে দরপতন হচ্ছে পুঁজিবাজারে। বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা নতুন বছর ভালো যাবে তাদের। কিন্তু প্রথম দিনই প্রত্যাশার সঙ্গে প্রাপ্তি হয়নি বিনিয়োগকারীদের। প্রথম দিনই বিােভ কর্মসূচি পালন করতে হয়। তারা বলেন, বিসমিল্লাতেই গলদ। বছর কেমন যাবে, বলতে পারি না। তাদের প্রত্যাশা গেল বছর সরকার বা বিএসইসি আশার বানী শোনালেও তাদের রক্তরণ বন্ধ হয়নি। তারা মুনাফা নয়, তাদের পুঁজি ফিরে পেতে চান। তবে বাজার বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন, নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে খুব ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তাদের মধ্যে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। বিনিয়োগকারী এবং বাজার সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতার জন্য সার্ভিলেন্স শক্তিশালী করতে হবে। শুধু সার্ভিলেন্স শক্তিশালী করলেই চলবে না। সার্ভিলেন্সেরও সার্ভিলেন্স করতে হবে। তা না হলে ম্যানুপুলেশন বন্ধ হবে না। আর ম্যানুপুলেশন বন্ধ না হলে সাধারন বিনিয়োগকারীদের টাকা বের হয়ে যাবে।