ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

প্রধানমন্ত্রীর নিজ উদ্যোগে পদ্মা সেতুর কাজ করাকে সাধুবাদ জানাই। সত্যিই খুব ভাল উদ্যোগ। কিন্তু প্রশ্ন থাকে বিশ্বব্যাংক বা আইএমএফকে বাদ দিয়ে কাকে সাথে রেখে কাজ করতে চান ? বিশ্বব্যাংক আপনার মন্ত্রিদের দুর্নিতির খতিয়ান হস্তান্তর করার পরেও তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যাবস্থা নিলেন না , উল্টা বিশ্বব্যাংক সহ অন্যান্ন সংস্থার সমালোচনা করতে পিছপা হচ্ছেনা । আপনি বলছেন দেশের টাকায় ব্রিজ করবেন তো ভাল কথা , দেশের লোকজনের কাছে, প্রবাসি বাংলাদেশিদের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন, এটাও খুব ভাল কথা সব কিছু ঠিক আছে । কিন্তু এই তহবিল যে সংগ্রহ করবেন, তা কে হেফাজত করবে ? এই তহবিলের পুরা টাকা যে সঠিক কামে লাগবে তাহার কি নিশ্চয়তা আছে? গ্রামের একটা মেঠো পথের উপর ১০ মিটার ব্রিজ বা কালভার্ট করার জন্য অথবা কয়েক মন ধান-গমের অধীনে কাজের উপর যেখানে দুর্নিতির খবর বের হয়, সেই পরিবেশে আপনি এত বড় একটা ব্রিজ ,যেখানে কোটি কোটি টাকার প্রকল্প হবে, সেখানে দুর্নীতি হবে না বলে আপনি বলতে পারবেন? যদি নিশ্চয়তা দিতে পারেন তবে আমরাও আপনাকে সহযোগিতা করব। বিশ্বব্যাংক আমেরিকার প্রতিষ্ঠিত ও আমেরিকার লালিত প্রতিষ্ঠান। এই ব্যাংকের বিরুদ্ধে ও সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর যেকোন বক্তব্যকে জনগন সমর্থন দিবে কিন্তু গঠনমূলক আলোচনাতে। কোন উগ্র বক্তব্যে দেশের ক্ষতি হবে এমনটা কিন্তু আমরা চাই না। বিশ্বব্যাংক থেকে ক্ষতিপূরণ চাওয়া সমর্থন করি। তার হিসাব-নিকাশ বিশ্বের কাছে তুলে ধরার দাবিও সমর্থন করি- তার সংগে গ্রাম্য ঝগড়া করে নয়। তার সাথে বেশি বাড়াবাড়ি করতে গেলে হয়তো তারা আরো এমন কিছু তথ্য ফাস করতে পারে ,যাতে পুরা বাংলাদেশি জাতির মুখে চুনকালি পড়ে।