ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

বছর ঘুরে আবার ফিরে এলো আমাদের মাঝে রমজান মাস । সংযমের মাস হলেও আমরা কতটুকু সংযম হয়েছি তাহা নিজেরা চিন্তা করলেই কিন্তু বুঝতে পারবো। আত্মশুদ্ধি বা সংযম ,সেটা হতে হবে কথার মধ্যে ,আচার আচরনের মধ্যে, লেনদেনের মধ্যে, এমন কি নিজেদের পারস্পরিক সম্পর্কের মধ্যেও সংযম থাকতে হবে । তবেই আমার আপনার সারাদিন উপোস থেকে রোজা রাখার সার্থকতা হাসিল হবে ।

কিন্তু আমাদের দেশে দেখা যায় এর উল্টা চিত্র,অবশ্য আমাদের দেশ বললে ভুল হবে বিদেশের মাটিতেও আমার নিজের চোখে দেখেছি ,যে রোজা আসার আগেই বিভিন্ন দ্রব্যের মজুত করা শুরু করে । ধারনা হলো রোজার মাসে যেই জিনিসগুলি অহরহ দরকার ,সেইগুলি মজুদ করে কৃত্তিম সংকট যদি সৃষ্টি করা যায় তবে বাজারে ঐ জিনিসের দাম অটোমেটিক বেড়ে যাবে, তাতে নিজেরা লাভবান হওয়া যাবে । ধারনা ঠিক আছে জিনিসের দাম বাড়বে বটে , কিন্তু আপনার সংযমটা তো হলোনা এমনকি প্রচলিত আইনেও আপনি মজুদদারী করার কারনে অপরাধী হচ্ছেন ।

আপনার কথার দ্বারা আপনার প্রতিবেশীকে কষ্ট দিলেন , তাতেও কিন্তু আপনার সংযম পালন অসম্পূর্ন থাকলো । আপনার স্ত্রী আপনার জন্য সবসময় হালাল ,সেও কিন্তু সংযমের মাসে দিনের বেলায় আপনার জন্য আর হালাল থাকে না । আপনার কোন প্রতিবেশী বা আত্মীয়স্বজনের সাথে যদি আপনার কোন মনোমালিন্য থেকে থাকে তবে তাহা দুর করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করাটাও কিন্তু আপনার সংযমের পুর্নাংগতার অংশ । তাই আসুন আমরা সকলে এই রমজানের মাসে আমাদের সংযমকে পুর্নাংগ রুপ দেই , আল্লাহ আমাদের সকলকে রমজানের সঠিক সংযম পালন করার শক্তি দিক ।