ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

যিনি বাংলাদেশের সবচেয়ে ক্ষমতাধর, প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা সম্পর্কে কটুক্তি করলেন ,ওনাকে বাচাল বললেন, সাগর-রুনির ব্যাপারে কটূক্তি করলেন ,অথচ তাকে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছেনা বা ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছেনা দেশবাসী সহ সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে আজ এই প্রশ্নটির কোন সঠিক জবাব নেই ।

যেই সাগর-রুনির হত্যার ব্যাপারে বিভিন্ন দেশের মানবাধিকার কর্মীরা এই হত্যাকাণ্ডকে গুরুত্বের সাথে তদন্তের উপর গুরুত্বারোপ করেছেন । বাংলাদেশের মন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেছিলেন ৪৮ ঘন্টার মধ্যে হত্যাকারীকে গ্রেফতার করবে। ৪৮ ঘন্টার জায়গায় দীর্ঘ ২ মাস পুলিশ চেষ্টা করে হাইকোর্টে গিয়ে অপারগতার কথা বলাতে এই হত্যা তদন্তের ভার র্যাবকে দেওয়া হলো, কিন্তু আজ অবধি র্যাবও কোন তদন্তের অগ্রগতি দেখাতে পারলো না । কোন ক্লুই খুজে পেলো না অবশেষে র‌্যাব পুনরায় লাশ উত্তলন করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করলো। তদন্তের রিপোর্টগুলো হিমঘরে তালাবদ্ধ অবস্থায় আবদ্ধ আছে ।

লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে মাহফুজুর রহমান বলেছিলেন, পরকিয়ার বলি হয়েছে রুনি , ওনার কাছে অনেক তথ্য আছে ,ফুটেজ আছে । এত কিছু বলার পরেও মাহফুজুর রহমানকে গ্রেফতার না করার কারন কি? আমাদের পুলিশ বাহিনী যেখানে ব্যার্থ হলো এই তদন্তে, র্যাব প্রায় ব্যার্থর মতন , সেখানে মাহফুজুর রহমানের কাছে এত তথ্য থাকার পরেও ওনাকে কেন গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছেনা ? উনি সরাসরি বলতেছেন আমার কাছে তথ্য আছে ।তাকে গ্রেফতার করে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের মুল রহস্য জানতে দেওয়ার জন্য সকলের পক্ষ থেকে জোর দাবীর জানানো হয়েছে । সরকার একদম নিরব । কেন এমন নিরবতা ? প্রধানমন্ত্রীকে বাচাল বলল ,অথচ সরকারের উচ্চমহল থেকে কোন প্রতিবাদ করা হলোনা? মাহফুজুর রহমানের বিরুদ্ধে কোন ব্যাবস্থা নেওয়ার কোন জোর দাবিও উঠলো না ? তাহা হলে আমরা ধরে নিতে পারি মাহফুজুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীকে বাচাল বললেন, তাহলে উনি কি বাচাল? না আর কি কারনে সরকার নিরব ? কেন ?