ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

অর্থমন্ত্রী যেখানে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন । বিশ্বব্যাংককে খুশি করতে অর্থমন্ত্রী যেখানে উদগ্রীব , পদ্মাসেতুর লোন বাতিলের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আরজি জানিয়ে বিশ্বব্যাংকে আনুষ্ঠানিক চিঠি দিয়েছে ,এমনকি বিশ্বব্যাংক থেকে লোন পাইতে যেই কোন শর্ত কবুল করতে রাজি ,শুধু তাই নয় অর্থমন্ত্রী নিজেই ঘোষনা দিয়েছে যে , আমরা পদ্মা সেতু করতে কোন দুর্নীতি করবো না ।

আর প্রধানমন্ত্রী কিনা লন্ডনের হোটেল প্যান ক্রসে গতকাল সন্ধায় সাংবাদিকদেরকে বলেছেন ভিন্ন কথা । তিনি বলেছেন বিশ্বব্যাংক নাকি কমিশন খায় , নিজেস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করার কথা পু্নর্ব্যক্ত করেন । সেখানে তিনি বিশ্বব্যাংকের কঠোর সমালোচনা করেন ,বলেন আমরা লোন নিলে সুদে আসলে ফেরত দেই , কারোর কাছে হাত পাতি না , কারোর দয়ার উপর না ইত্যাদি ইত্যাতি কথা বলেছেন ।

তিনি আরো বলেছেন সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী আবুল হোসেন দেশপ্রেমিক , তার দেশপ্রেম আছে বিধায় পদত্যাগ করেছেন । দেশের স্বার্থে নিজে কোরবান হয়েছেন , সতি কথা তো ‘

স্বাভাবিকভাবেই একটা প্রশ্ন জাগে বিশ্বব্যাংক তো কোন দেশপ্রেমিকের পদত্যাগ চায়নি তাই না ? ওনারা চেয়েছিলেন দুর্নীতিবাজ মন্ত্রীর পদত্যাগ ।

সুতরাং বিশ্বব্যাংকের চাওয়া ,মন্ত্রীর পদত্যাগ , প্রমান করে যে দুর্নীতির দায়ভারেই মন্ত্রীর পদত্যাগ সম্পন্ন হয়েছে । প্রধানমন্ত্রী যতই বুলি আওড়াক না কেন , মন্ত্রীর পদত্যাগ বিশ্বব্যাংকের চাওয়া দাবীর প্রতিফলন বলে প্রতিয়মান হয়।

সুত্র http://www.amardeshonline.com/pages/latestnews/2012/07/26/922