ক্যাটেগরিঃ সুরের ভুবন

 
কাজ নেই তো খই ভাঁজ। কাজের ঝামেলায় পড়লে হাবিজাবি লেখ। এই হাবিজাবির একটা দুনিয়া হলো গানের দুনিয়া। এটা নিয়ে মাঝে মাঝে লিখলে মন্দ কী। অভিযোগ হতে পারে নিজের ভাষা বাংলা গান নিয়ে লিখলে তো আরও ভাল হতো। গান তো তেমন একটা শোনা হয় না। যা দুএকটা শুনি তা ইংরেজি—কারণটা হচ্ছে অনেক গানে মজার মজার (অথবা ভারী দার্শনিক কথাবার্তাও) কন্টেন্ট থাকে। অবাক হবার বিষয় এটা যে, লাখে লাখে গান, আর হাজারে হাজার শিল্পী।
১,২। আমরা পুরুষরা বেজায় বিরাট বিরাট কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যস্ত। সে তুলনায় নারীদের অঙ্গন এখনও ছোট। অঙ্গনের বিস্তৃতিতে এই ‘ছোটত্ব’টা কিন্তু পুরুষের বিচারে নির্ধারণ হয়ে আছে। এটা আসলেই কম, না কি বিশাল তা নতুন করে ভেবে দেখা সম্ভব। তবে সেদিকে আমি যাচ্ছি না। পুরুষের এই যে সুবিশাল কর্মকাণ্ড, সেখানে একটু ভিন্ন চোখে দেখলে তাকে কেমন দেখাতে পারে? নারীমন সিরিয়াস। সেও দেখে, যদিও সচরাচর এ নিয়ে সে কথা তেমন বলে না। আমার কেন জানি একটা ধারণা, আমাদের কাণ্ডকারখানা দেখে নারীরা মিটি মিটি হাসে আর বেশ খানিকটা করুণাও অনুভব করে। তার দেখাটাকে অনুসরণ করলে আমার মতো অধিকাংশ পুরুষের জীবনের আড়ম্বরকে ফানিম্যান বা ডে-ড্রিমার’য়ের মতো আজাইরা লাফালাফি বলেও মনে হতে পারে। নিচে দুটো গানের লিংক দেয়া হলো। শুনে দেখতে পারেন।
KT Tunstall এর Funnyman:

Adele এর Daydreamer:

৩। পুরুষের জীবনে আবার নানা রকম সিক্রেট থাকে। একথাও ঠিক একহাতে তালি বাজে না। এক পুরুষের সিক্রেট মানেই এক নারীরও সিক্রেট। কাজেই নারীটা না এলেই পারতো। তবে একইভাবে এটাও তো বলা যায়, পুরুষটা না এলেও তো হতো। সে যাই হোক, কূটতর্কের মীমাংসা নেই। এর চেয়ে একটা গান শুনলে ভাল লাগতেও পারে। Carrie Underwood এর Two Black Cadillacs গানটার ভেতর একটা কাহিনী আছে। তাকে কেউ মন্দ বলেনি। ভাই তাকে জানে উত্তম বন্ধু হিসেবে। ভাল মানুষ হিসেবে তাকে জানে পাড়ার ইমাম সাহেবও। কিন্তু তারপরও দুই নারীর চোখ জলেও ভাসতে পারে।
Carrie Underwood এর Two Black Cadillacs:

৪। নেকড়ে আর হরিণ? একের নিশি-প্রতীক্ষা, অন্যের অন্বেষা আলো। বিশ্বাস করুন, ভাই, আমি পুরুষদের অবমাননা করে একতরফা রায় দিতে আন্তরিক ভাবেই কুণ্ঠিত। তবে সচরাচর, বা প্রায় সবসময়ই কে কী হয় তার বিবরণ আলাদা কথা। এরপরও আমাদেরকে চলতে হয়। নব নব প্রজন্ম দুনিয়ায় আসে। আমরা এগ্রি টু ডিসেগ্রি মেনে নিতে পছন্দ করি, যদিও অভ্যন্তরে আমরা কতই না বিপরীত। কিন্তু সাইকোলজিটা অদ্ভুতভাবে রহস্যময় থেকে যায়।
Sophie Ellis-Bextor এর The Deer & The Wolf:

৫। আমরা তো ভুল কার্ড খেলতেই পছন্দ করি। দিনগুলোকে নষ্ট করি অদ্ভুত অবান্তর দেশে। আমরা মাটির উপর দিয়ে সোজা হয়ে হাঁটতে পারি না, কেবলই বড় বড় ঢেউ তুলি, সরল শিল্পটাকে ভেঙ্গে ফেলি। তবে এবার একটা আশ্বাসের গান শোনা যাক। রিস্ক তো আমাদেরকে সবতাতেই নিতে হয়। কোথায় যেন প্রকৃতি আমাদেরকে বেঁধে রেখেছে। তারপরও আমরা ভাল দিকগুলোর উপর আলো ফেলে দেখতে পারি।
Ellie Goulding এর I’ll Hold My Breath:

৬। সবশেষে একটা বোনাস। Sophie Ellis-Bextor-এর আগের এলবামগুলো ছিল ড্যান্সবিট সমৃদ্ধ পপ গান। ড্যান্সবিটের ঘেরায় থেকে সম্ভবত তিনি নিজের উপরই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন এবং মুক্তির একটা পথ উতলা হয়ে খুঁজছিলেন। এবং তার ভেতরে যে আরও বড় মেধা আছে, তা শেষতক তিনি দেখিয়েই ছাড়লেন ২০১৪ সালের Wanderlust এলবামটিতে। এটা কেবল যে একটা মরিয়া চেষ্টা তা মাত্র নয়, একেবারে যাকে বলে পুরোদমে সফল চেষ্টা। প্রথম গানটিতেই (Birth of an Empire) বাজিমাত—একেবারে রাজপ্রাসাদীয় আড়ম্বর, অনলংকৃত কণ্ঠ, কবিতার গভীরতা।
Sophie Ellis-Bextor এর এলবাম Wanderlust এর ট্রেইলার:

Sophie Ellis-Bextor এর Love Is A Camera:

n

বিষয়ভিত্তিক বিভাজনসহ ব্লগসূচি