ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

 

আমাদের দেশে বেশকিছু মোটর সাইকেল কারখানা গড়ে উঠেছে । দেশী মোটর সাইকেল এখন দামে অনেক সস্তা । যার ফলে মোটর সাইকেল এখন অনেকের কাছে লোভনীয় বাহন । তরুন প্রজন্মের কাছে এর কদর সবচেয়ে বেশি । বড় দুঃখের বিষয় হল , বেশির ভাগ – মোটর সাইকেল চালক প্রশিক্ষণ না নিয়ে , সামান্য একটু ধারণা নিয়ে চালনা শুরু করেন । আর অন্য সব গাড়ির মত মোটর সাইকেল চালাতে যে একখানা লাইসেন্স দরকার হয় , ইহা চালক যেমন জানেন না – আইন ও নিয়ম রক্ষাকারীরা জানলে ও চোখে টিনের চশমা লাগিয়ে রাখেন । সবচেয়ে দুঃখের বিষয় মোটর সাইকেল চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনায় পড়েনি এমন চালক খুজে পাওয়া বড় কঠিন কাজ । আর আমাদের দেশের দুর্ঘটনা গুলো বড় ভয়াবহ । কারো পা কাটা – কারো হাত কাটা – আর কেউ তো সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারে না । বাকি কিছু চলে গেছে না ফিরার দেশে । তরুনদের পায়ের ভিতর ইস্পাতের রড , এখন একটা স্বাভাবিক ঘটনা ।

বড় দুঃখ লাগে যেখানে একখানা হেলমেট আর একটু বেশি সচেতনতা এই দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমাতে পারে । সেখানে আমাদের দেশে হেলমেট ছাড়া মোটর সাইকেল চালানো একটা বাহাদুরি কালচার গড়ে উঠেছে । আর বেশির ভাগ মোটর সাইকেলে ২ জন বসার কথা থাকলে ও ৩ জন বসে – আর ভাবতে থাকেন আর ও একজন বসতে পারবে । কিছু ভদ্রলোক আছেন – যারা বউ,বাচচা সহ মোটর সাইকেল চালনা করতে বেশি স্বাছন্দ বোধ করেন। এদের আবশ্য বয়স একটু বেশি – আংকেল শ্রেণীর লোকজন । উনাদের বয়স হয়েছে কিন্তু বিবেক-বুদ্ধি হয়নি । কবে যে হবে আল্লাহ ভাল জানেন । দেশে তো কোন গাড়িই লাইন মেনে চলে না যারা চলেন তারা অবশ্য নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে নয়, অনেকটা দায়ে পড়ে চালান । কি করবেন বড় গাড়ি তো ,যেখানে সেখানে চালনা যায় না । এ ব্যাপারে মোটর সাইকেল চালনকারীরা একদম ব্যাপরোয়া , কোনটা রাইট সাইড আর কোনটা লেফট সাইড – কোথায় ফুটপত, কোথায় রাস্তা – কোথায় হাঁটার জায়গা । তার তোয়াককা করেন না । গতি ; আমাদের দেশের মোটর সাইকেল যারা চালান তারা তো মোটর সাইকেলের রেসের প্রতিযোগিতায় নামেন , উনারা তখন ভাবেন না এই দুচাকার পাগলা ঘোড়াটাকে কত কিলোমিটারে রেখে ব্রেক কষতে হয় । ইচ্ছামত গতি বাড়ান আর যখন সামনে কোন প্রতিবদ্ধকতা দেখেন তখন তাহারা সজোরে ব্রেক কষে ভবলীলা সাঙ্গ করে ফেলেন । যারা এতটা সময় নষ্ট করে আমার লেখাটা পড়লেন , আসুন আর একটু কষ্ট করে একটু গণ সচেতনতা গড়ে তুলি ।

১। যারা লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালায় তাদের কে চিহৃত করি আর তাদের বিরুদ্ধে সবাইকে সচেতন করি , এরা গুপ্ত ঘাতক ।
২। কেহ দ্রুত গতিতে কোন বাহন চালাইলে , তাকে কখন ও বাহাবা না দিয়ে – ধিককার দিন ।
৩। হেলমেট ছাড়া যে মোটর সাইকেল চালায় তাকে উপহাস করুন , এতে তার বিবেক একটু হলে ও নাড়া দিবে ।
৪। আপনার পরিচিত কেহ মোটর সাইকেল খরিদ করিলে তাহাকে একটু ওয়াজ নচিহত করুন , বুঝিয়ে বলুন এইটা খেলনা না – অবশ্যই লাইসেন্স নিয়ে চালাবেন ।
৫। আর অন্যসব পেশার মত গাড়ি চালনা একটা ভাল পেশা । একজন দক্ষ লাইসেন্স ধারী গাড়ি চালককে তার পাওনা সম্মান দিন ।

ট্রাফিক আইন মেনে চলুন অন্যকে ও চলতে বলুন ।

সবার শেষে কবি নজরুলের লাইনটুকু বলতে চাই ।

**************আমরা যদি না জাগি কেমনি সকাল হবে *****************************