ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

গতকাল (১৯শে অক্টোবর) ইমেইলটি পেয়েছি। বার্তায় বানান বিভ্রাট ঠিক করলাম না। ক্রসচেকও করলাম না। বার্তাটি ভুল হবার কথা নয়। ভুল হলে দু:খ প্রকাশ করছি।

“প্রেস বিজ্ঞপ্তি, বুধবার ১৯শে অক্টোবর ২০১১

ঢাকা ওয়াসা জোয়ার সাহারা পাম্প নং-১ এলাকাভুক্ত ওলপিাড়া মহল্লায় ১৯ দিন যাবত পানি সরবরাহ নাই।
গুলশান পৌরসভার আওতাভুক্ত ১৭নং ওয়াডের্র জোয়ার সাহারা ওলিপাড়া একটি ঘন বসতিপূণর্ব আবাসিক এলাকা। গত ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০১১ রাত্রি থেকে আজ ১৯ দিন যাবত এই এলাকায় ওয়াসার পাইপ লাইনে পানি সরবরাহ নাই।
২-১০-১১ তারিখে এলাকার বিশিষ্বট ব্যাক্তি অধ্যক্ষ ইঞ্জীনয়িার মোকসদে আলী সাহবে ও হাজী শহীদুল্লাহ সাহবে মহল্লাবাসীর পক্ষ থেকে নতুন বাজারস্থ স্থানীয় ওয়াসা অফিসে গিয়ে নর্বিাহি প্রকৌশলী জনাব কামরুল হাসান সাহবেরে সাথে দখো করে ওয়াসার লাইনে পানি সরবরাহ না থাকার বিষয় অবিহত করেন ও অবলিম্বে পানি সরবরাহ স্বাভাবকি করার অনুরোধ জানান। অচরিইে পানি সরবরাহ স্বাভাবকি হবে বলে নর্বিাহি প্রকৌশলী আশ্বাস দনে।
৪-১০-১১ দুই দনি অপক্ষো করে পানি সরবরাহ স্বভাবকি না হওয়ায় অধ্যক্ষ ইঞ্জীনয়িার মোকসদে আলী সাহবে অপর একজন এলাকাবাসী সহ পূনরায় নতুন বাজারস্থ স্থানীয় ওয়াসা জোন-৮ অফসিে যান এবং উপ-সহকারী প্রকৌশলী জনাব সালাহউদ্দীন সাহবেরে সাথে বঠৈক করণে। তনিওি কয়কে দনিরে মধ্যইে পানি সরবরাহ স্বাভাবকি হওয়ার আশ্বাস দনে এবং একটি লখিতি দরখাস্ত দতিে বলনে।

কয়কে দনি অপক্ষো করার পর এলাকার বশিষ্টি ব্যাক্তর্বিগ (অধ্যক্ষ ইঞ্জীনয়িার মোকসদে আলী, ফায়ার ব্রগিডেরে অবসরপ্রাপ্ত পরচিালক জনাব জাহাঙ্গীর কবীর, ইঞ্জীনয়িার মাহমুদ হাসান প্রমূখ) নতুন বাজারস্থ স্থানীয় ওয়াসা জোন-৮ অফসিে গয়িে নর্বিাহি প্রকৌশলী ও সহকারী উপ-প্রকৌশলীর সাথে বঠৈক করনে এবং এলাকাবাসীর পক্ষ থকেে লখিতি দরখাস্ত ওয়াসা জোন-৮ অফসিে জমা দনে। নর্বিাহি প্রকৌশলী জোয়ার সাহারা পাম্প হাউস সরজেমনিে পরর্দিশন করে ওলপিাড়া মহল্লার পানি সমস্যা দূর করার জন্য উপ-সহকারী প্রকৌশলী জনাব সালাহউদ্দীন সাহবেকে নর্দিশে দনে।

১০-১০-১১ তারখিে উপ-সহকারী প্রকৌশলী জনাব সালাহউদ্দীন সাহবে ও সহকারী প্রকৌশলী জনাব এমরাণ সাহবে জোয়ার সাহারা পাম্প হাউসে আসনে। ওয়াসার প্রকৌশলীদ্বয় ওলপিাড়ার মহল্লাবাসীর প্রতনিধিি অধ্যক্ষ ইঞ্জীনয়িার মোকসদে আলী ও ইঞ্জীনয়িার মাহমুদ হাসান এর উপস্থতিতিে ওয়াসা জোয়ার সাহারা পাম্প হাউস নং-১ এর চাবি র-িএডজাস্ট করনে যাহাতে ৭০% পানি এলাকাবাসী এবং ৩০% পানি বারধিারা-ডওিএইচএস পায়।

ওয়াসার র্কমর্কতাবৃন্দ আমাদরেকে আশস্ত করণে যে ১১-১০-১১ রাত থকেে আমরা পানি পাব। পরে তাহারা ওয়াসা লাইনরে লচিুবাগান ও ওলপিাড়ার বাল্বও র-িএডজাস্ট করণে।

এর পরও ওলপিাড়ায় ওয়াসার লাইনে পানি সরবরাহ স্বাভাবকি হয় নাই। অথচ ইতপর্িূবে ২০১১ সনরে আগস্ট-সপ্টেম্বের মাসে যখন এলাকাবাসী-ডওিএইচএস ৫০%-৫০% শয়োর ছলি তখনও প্রায় সারা রাত-দনি ২৪ ঘন্টা এই ওলপিাড়া মহল্লায় পানি সরবরাহ স্বাভাবকি ছলি। ফলে র্বতমানরে এই সংকট কৃত্রমিভাবে সৃষ্ট বলে আশংকা হয়।
ইতমিধ্যে আমরা আমাদরে এলাকার মান্যবর সংসদ সদস্য সাহারা খাতুনরে সহতি স্বাক্ষাত করছেি এবং তাঁহার সুপারশি সহ ওয়াসার চয়োরম্যান বরাবরে একটি দরখাস্ত ১৫-১০-২০১১ জমা দয়িছে।ি
অতীব পরতিাপরে বষিয়, অদ্যাবধি ওয়াসার লাইনে পানি সরবরাহ নাই। আমাদরে র্দুভোগ র্বণনাতীত। ওয়াসার গাড়ীতে করয়িা পানি কনিে আনতে হচ্ছে – ২৫০ টাকার ছোট গাড়ীর জন্য দতিে হচ্ছে ৪০০-৬০০ টাকা, ৪০০ টাকার বড় গাড়ীর জন্য দতিে হচ্ছে ১২০০-১৫০০ টাকা।
এমতাবস্থায়, আমরা গনমাধ্যমরে স্মরণাপন্ন হতে বাধ্য হলাম। সাংবাদকি ভায়রো অনুগ্রহ করে আমাদরে পাশে দাঁড়য়িে বষিয়টি আপনাদরে বহুল প্রচারতি মডিয়িায় প্রচাররে ব্যাবস্থা করে বাধতি করবনে।”
জোয়ার সাহারা ওলপিাড়াবাসীর পক্ষে
মোঃ মোকসদে আলী, অধ্যক্ষ (অবঃ) মেজর (অবঃ)মকবুল হোসনে
ফোনঃ ০১৮১৭-০১৯৭০১ ফোনঃ ০১৭১৬-৭০৫০০১
……………………………………… ………………………………………..

স্কোঃলীডার(অবঃ)মোশাররফ হোসনে
চয: ০১৭১০-৩৯৪০৫৭