ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

আজ ভাবতেই অবাক লাগে আমরা কি এই বাংলাদেশের জনগন ? নাকি অন্য কোন দেশের নাগরিক! যেখানে নিজের ন্যূন্যতম মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা আজ নেই। মতামত প্রকাশ করতে গেলে দেশদ্রোহী হতে হয় আর না হয় চাইতে হয় ক্ষমা! ইদানিং সরকার সবার প্রতি কেন এতটা আক্রমনাত্মক হয়ে উঠছে? নাকি সরকার অলরেডি বুঝেই গেছে যে জনগনের আস্থা তাদের উপর থেকে উঠে গেছে। তাই তারা তাদের ক্ষমতার শেষ প্রান্তে এসে একের পর এক এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার জন্ম দিচ্ছে। অধ্যাপক সায়ীদ স্যারের মত একজন সন্মানী মানুষকে যদি তার মতামত প্রকাশের জন্য ক্ষমা চাইতে হয়, তাহলে সেই লজ্জা আমরা কোথায় রাখবো! আর আমাদের মাননীয় সাংসদরাই কেমন মানসিকতার পরিচয় দিলেন যে কোন রকম যাচাই বাছাই ছাড়াই আবু সায়ীদ স্যার কে ক্ষমা চাইতে বল্রেন ? অন্য কোন সাধারন মানুষের ক্ষেত্রে হলে এতটা কষ্ট পেতাম না কিন্তু তার মতো একজন মাটির মানুষের প্রতি এই ধরনের মন্তব্য কোনভাবেই কাম্য নয়। আমার মতে এখন উচিত সেইসব মাননীয় সাংসদের স্যারের কাছে যেয়ে উল্টো ক্ষমা চাওয়া। এটা মনে হয় একমাত্র আমার মতামতই না, প্রত্যেকটা বিবেকবান মানুষের মতামত। আশা করি পাঠকবৃন্দও আমার সাথে একমত প্রকাশ করবেন।