ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

[ প্রথমজন নাক ডেকে ঘুমোচ্ছে। দ্বিতীয়জন এতে খুবই বিরক্ত। কারণ তার ঘুমের ব্যঘাত ঘটছে। কত আর সহ্য করা যায়? প্রথমজনকে দ্বিতীয়জন ঘুম থেকে ডেকে তুলে বলল- আপনি এভাবে নাক ডাকতে পারেন না। আপনার ভাবা উচিত যে, আপনার নাক ডাকার জন্য আশপাশের মানুষের সমস্যা হতে পারে। প্রথমজন আশ্চর্য হয়ে বলল- আমি যে নাক ডাকছি, তা কি আপনি দেখেছেন?
দ্বিতীয়জনঃ হ্যাঁ; না মানে শুনেছি।
প্রথমজনঃ যেহেতু আপনি দেখেন নাই কিন্তু শুনেছেন, সেহেতু বলব- শোনা কথায় কান দেবেন না… ]

প্রমাণ দিন…।
কাদের উদ্দেশ্যে এই প্রশ্ন?
যাদের উদ্দেশ্যে এই প্রশ্ন, তাদের সমর্থনেই তো আজ ঐখানে বসে। কারণ তারাই হলো এদেশের আপামর আমজনতা।
প্রতিবাদের ভাষা কত তীব্র হতে পারে, সেটা ঠিকই জানা আছে। কিন্তু…
দূর দেশে থেকে ফেইসবুকে প্রতিবাদ স্বরুপ মৃত্যু কামনা করে…ছাইড়া দে মা কাইন্দা বাঁচি অবস্থা… আর আমি কিনা জেনে শুনে…

একদিকে প্রতিবাদ, মানববন্ধন। অন্যদিকে ঠিক একই চিত্র। একদিকে আমজনতা। অন্যদিকে মটর শ্রমিক। সৌভাগ্য নিয়ে জন্মেছে ওরা, যারা মটর শ্রমিকের পরিচয়ে পরিচিত। ওদের মন্ত্রী আছে। আছে সংগঠন। আছে যেকোন সময় দেয়াল তৈরীর মতো দৃঢ় মনোবল।
আর আমাদের…? কিছু নেই। যাঁদের নির্বাচিত করলাম, তাঁরাই আমাদের বিপক্ষে। প্রায় শোনা যায়- শিক্ষকের সন্তানরা পড়াশোনায় তেমন ভাল হয় না। বাবার মতো শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে না। গ্রামের মুরব্বীদের মুখে শোনা যায়- হাজীর নাতি পাজি। ইত্যাদি ইত্যাদি। এসব কথা আসলে মিথ্যে নয়। ছিলেন মটর শ্রমিক নেতা হয়েছেন পানি পথের মন্ত্রী। ডাক্তাররা হবেন কৃষিমন্ত্রী, কৃষিবিদরা হবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সমস্যা নেই। কিসের সমস্যা? সমস্যা মনে করলে- প্রমাণ দিন।

কদিন আগে কোথায় যেন পড়লাম, বিশেষ সম্মানিত ব্যক্তি বলেছেন- রাস্তার মেরামত যেভাবে করা হয়েছে, তাতে তিন বছরের মধ্যে কোন সমস্যা হবে না। মাত্র দুই দিনের বৃষ্টিতে কলা ভর্তি ট্রাক রাস্তার মাঝে চিতপটান হয়ে পড়ে আছে। বুঝি না, কেন কলা ভর্তি ট্রাক উল্টোবে? অন্য কিছু ভর্তি ট্রাক উল্টোতে কি পারতো না? ইহাই বিধাতার খেলা। আমাদের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা আমাদের শুধু কলায় দেখাইতেছেন বইলা, কলা ভর্তি ট্রাক উল্টাইতেছে।

উনারা কি অদ্ভুত সুন্দর কথা বলেন- “জনগনের দাবী পূরণ হয়েছে। আমরা জনগণের দীর্ঘদিনের চাওয়া পূরণ করতে পেরেছি। যখনই এই সরকার ক্ষমতায় আসে তখনই জনগণের দাবী পূরণ হয়। ……..”

আর এখন যাঁরা জনগণের দাবী আদায়ে দলমত নির্বিশেষে প্রতিবাদ করছেন, মানববন্ধন করছেন- তাঁদের বিরুদ্ধে আজ আপনাদের অবস্থান। কিন্তু কেন?
ইনিরা কি জনগণের বাইরে? তাঁদের দাবী কি অযৌক্তিক?

দূর্ণীতি কি? দূর্ণীতি বলে বাস্তবে কিছুই নেই। ক্ষমতায় থাকলে ইহা দেখা যায় না। আর ক্ষমতার বাইরে থাকলে যখন তখন চোখের সামনে ধরা দেয়।