ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে আলোচনা সমালোচনা করে মাথার চুল ফেলছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকগন। দেশের রাজনীতি কোন দিকে যাচ্ছে, কোন দিকে দেশের সাধারন মানুষকে চরম মুল্য দিতে হবে, কোন দিকে বেশি সর্তক থাকতে হবে ইত্যাদি ইত্যাদি। সরকারী দলের অধীনে নির্বাচনকে বিরোধী দল তাদের নির্বাচনের ভরাডুবির মৃত্যুকূপ হিসাবে মনে করে নির্দলীয় নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের অধীনে নির্বাচনের জন্য জোর আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে মাননীয় রেলমন্ত্রী পিএসএর ৭০ লক্ষ্য টাকা আন্দোলনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। কিছু দিন যেতে না যেতেই বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর গুম আরো নতুন মাত্রা যোগ হয়। বিরোধী দল আর দেরি করতে চাই না। এই বুঝি সুবর্ণ সুযোগ সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামানোর।হরতালের পর হরতাল দিলেন । হরতালে চিত্র দেশবাসী পর্যবেক্ষণ করেছে। সরকার তাদের কৌশল মোতাবেক সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বিরোধী দলীয় বাঘা বাঘা নেতাদের নামে মামলা, গ্রেফতারের জন্য বাড়ি বাড়ি তল্লাশী। বিরোধী দল আন্দোলন থেকে ফিরে এসে গা ঢাকা দিয়েছে। শুরু হয়েছে না আলোচনা-সমালোচনা। বিরোধীয় নেতা নজরুল ইসলাম বলেছেন সরকার বেকায়দায় পড়ে তাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে আন্দোলন প্রতিহত করা কৌশল নিয়েছে। তিনি আরো বলেন বিএনপি কৌশলগত কারনে তাদের নেতারা আত্মগোপন করে আছে। কিন্তু সাধারন জনগনের সুন্দর , সুষ্ঠু ভাবে জীবন যাপন করা কৌশল কি ? দুটি দল তাদের চিন্তায় এক এক সময় কৌশল করছে । আর তাতে বলি হচ্ছে সাধারন জনগন। সাধারন জনগনের কাছে একটাই প্রশ্ন তাদের সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকার জন্য কি কোন কৌশল গ্রহন করবে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ?