ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

২১ জানুয়ারি,২০১২ , ক্যাম্পাস জীবনের ধারাপাত । নতুন জীবনের মোড়ক উন্মোচন করেছিলাম । সেদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে প্রথম ক্লাস করার অনুভূতিটা ছিল সত্যিই অন্য রকমের । আগের রাতে ঠিক মত ঘুমাতেও পারিনি । কেমন যেন একটা টান টান উত্তেজনা ঘুরপাক খাচ্ছিল মনের চারপাশে । ভাললাগার একটা কোমল স্পর্শে শিহরিত হচ্ছিলাম , রোমাঞ্চিত হচ্ছিলাম বারবার। সেই কথাগুলো ভাবতে গিয়ে আজও একটা ভালোলাগা ছুয়ে যাচ্ছে আমাকে ।

সময়ের তাবিজে পুরে দিলাম ক্যাম্পাস জীবনের স্বপ্নিল একটা বছর। স্মৃতির আর্কাইভে রেখে দিলাম ওদের । ক্যাম্পাসের আলো বাতাসের মোড়কে জড়ানো এই সময়গুলো কে চাইলেই আর স্পর্শ করতে পারবো না। মাঝে মাঝে এরাই হয়ত রংধনু হয়ে ভেসে উঠবে মনের আকাশে ।

এই তো সেদিন ভর্তি পরীক্ষা দিতে ঢাবির ক্যাম্পাসে এসেছিলাম । স্বপ্নগুলো সেদিন আমাকে খুব বেশি আলোড়িত করেছিলো । স্বপ্নের একুরিয়ামে নিজেকে হারিয়ে ফেলছিলাম বারবার । পরীক্ষার সিট পড়েছিল কলা ভবনে । একজনকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, ’আচ্ছা ভাইয়া, কলা ভবনটা কোন দিকে? এই যে এটাই কলা ভবন । কলা ভবনের সামনে দাঁড়িয়েই এই প্রশ্ন টা করেছিলাম ।কলা ভবন হয় তো সেদিন মনে ব্যথা পেয়েছিল। এখন আর কাউকে জিজ্ঞাস্য করতে হয় না আমার। সেই কলা ভবনের সাথেই এখন আমার সখ্যতা অনেক বেশি , সম্পর্কটা অনেক গভীর । চোখ বন্ধ করলেই কলা ভবনের আপাদমস্তক ভেসে উঠে চোখের আয়নায় । এই কলা ভবন, অপরাজেয় বাংলা, বট তলা, হাকিম চত্বর, ডাকসু আর টিএসসির ধুলো মাখা ভালোবাসার স্পর্শ না পেলে এখন দিনটাই পার হতে চায় না । কেমন যেন একটা সম্মোহনী ভালোবাসার রঙ্গিন জালে আটকে ফেলেছি নিজেকে আর নিজের পুষে রাখা স্বপ্নকে ।

এই তো ক’ দিন আগে দ্বিতীয় বর্ষের ক্লাস শুরু হল । এত দিন তো সবার ছোট ভাই ছিলাম । বড় ভাইয়া আর আপুদের মুখের তুই আর তুমি ডাকটা শুনতে শুনতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। ক’দিন পরে হয় তো ভাইয়া , আপনি ইত্যাদি নতুন কোন ডাক কানের পর্দাকে পরশ বুলিয়ে দিবে । কেমন যেন একটু বড় হয়ে গেলাম। ক্যাম্পাসের নতুন জীবন, নতুন সহপাঠী আর নতুন বন্ধুরা এখন অনেক কাছের, অনেক আপন। এই সবকিছু নিয়েই এখন আমার রঙ্গিন জীবন।