ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

হুজুর,

যথাযথ, যথাবিহিত, সর্বপ্রকার, সর্বনাম নিবেদন- আবেদন নয় দাবী এই যে , আমিও নিরাপত্তা চাই আপনার সাথে সাক্ষাৎ করিতে। ভুমিকাতে বলিতে চাই ,

আমি জনাব, চান্দিছিলা কল্লা তাকু আপনার সহ বিভিন্ন ন্যায়ালয়ে ৭ টি ডাইরেকট মারঠার, ৫ টি ধর্ষণ, ১৭ টি চাঁদাবাজি, ১৯ টি দস্যুতা সহ (ছোট মামলার তালিকা দিয়া বিরক্ত করিব না ) বিভিন্ন মামলার জামিন প্রাপ্ত আসামী। গতমাসে নিরাপত্তা জনিত কারনে আমি আপনার সাথে দেখা করিতে না পারায়, আপনি পরিস্থিতি অনুধাবনে অসমর্থ হইয়া আনাকে বাধিয়া আনিতে হুকুম দেন। আপনি পরিস্থিতি ও আমার মূল্য বুঝিতে অপারগ হইয়া আইনি ভাবে বেআইনি জগতের বেতাজ বাদশাহ কে বাধিয়া আনিতে বলায় আমি মাইন্ড করিলাম। অতপর সিদ্ধান্ত এই যে, এক ডিভিশন ট্যাঙ্ক স্থল পথে, আকাশ পথে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা আয়োজন না থাকিলে আমি সাক্ষাৎ দিব না।

আমার নিরাপত্তা হীনতার চিত্র ও যেমন আছি তেমন থাকিতে চাওয়ার পক্ষে কারন ও আইনি যুক্তি সমূহ ঃ

১/ ছোট হইলেও আমি তিন তিন বার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। এছাড়াও আপনি জানেন বড় জন প্রতিনিধি গনের ক্ষমতা নির্ণয় হয় যে অগ্নি দ্বারা, এই বংগ দেশে আমার ইশারা ছাড়া কোন দিয়াশলাই জ্বলে না পেট্রোল তো পানি ! অতএব বুঝিতেই পারেন–।

২/ আমি প্রথম নিরাপত্তাহীন বোধ করি যখন আমার প্রথম ধর্ষণ মামলার হাজিরা দিতে আসিয়া, ধর্ষিতা ও ত্বদীয় সন্ত্রাসী দ্বারা ব্যাপক উত্তম, মধ্যম এর স্বীকার হই ও দক্ষ পুলিশ ভাইদের কল্যাণে প্রানে রক্ষা পাই ।

৩/ আমার নামের কল্লা অংশটি পেশাগত অর্জন। যাহাদের কল্লা হালাল করিয়াছি তাহারা যে কোন সময় আমার জীবন নাশ করিতে পারে, অতএব আমি নিরাপত্তা হীন ।

৪/ আপনার ন্যায়ালয়ে আসার পথে ফক্কিনির পুত্র ট্যাঁরা ড্যাগার দলবল লইয়া আমার উপর বৃষ্টির নাহান গুলি বর্ষণ করিলে আতঙ্কে আমার সব চুল ঝরিয়া যায়, যে কারনে আমি চান্দিছিলা উপাধি অর্জন করি। আপনার মনে আছে অবশ্যই ঐ ঘটনায় আমার সেকেন্ড কমান্ড তাকু লিটল কোমর ভাঙ্গিয়া বর্তমানে চিকিৎসা নিতেছে। এখন আবার অনুরুপ ঘটনা ঘটিতে পারে তাই আমি নিরাপত্তা হীন । আর বেশী ঘটনা না লিখি । অন্য কারন,

৫/ হইতে পারেন আপনি আইন , কিন্তু আমি বেয়াইন।

তাই বিশেষ অধিকার দাবী করি। আপনাকে সেই সাথে বংগ দেশে আমার অগ্নি সাগরেদ গনের কথা ভাবিতে হইবে । আরও বড় কথা মেরি মর্জি- যেমন আছি তেমন রব ।

কোন আইনে নিরাপত্তা চাই ঃ

আমি মূর্খ হইতে পারি , তবে এই মুহূর্তে আমার হাতে একটি বই আছে, যার নাম লিখা সংবিধান। উহার তৃতীয় ভাগে ২৭ নং দিয়া লিখা,

## সকল নাগরিক আইনের দৃষ্টি তে সমান, ও সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী !

আমার ধারনা আপনি যথেষ্ট বুদ্ধিমান তাই এই পদে আছেন, আর সমাঝদার কে ইশারাই কাফি ।আর ফৌজদারি, সাক্ষ্য আইন নাই বলি। জানেন তো সংবিধান। কুমারের ঠুকুর ঠাকুর কামারের এক ঘা ! সব আইনের ঊর্ধ্বে সংবিধান।

এখন আইনের সামনে প্রশ্ন হইল, আমার চেয়ে বেশী নিরাপত্তা ঝুঁকিতে কে আছে ? উনার শত্রু তো একটি দল আমার শত শত। ভয়ঙ্কর খুনি, সন্ত্রাসী দল সব। তাও আমার সেকেন্ড কমান্ড ও সাথে নাই ! ঝুকি বিবেচনায় আমি কি বলিতে পারি না নিরাপত্তা ছাড়া আমি সাক্ষাৎ দিব না ? সংবিধান কি বলে তার চেয়ে আমার প্রানের মূল্য কম ? আবার ক্লাস নিতেছি ভাবিয়েন না ।

তবে যদি প্রয়োজন মনে করেন কেবল দেশী স্টার নয়, আন্তর্জাতিক স্টার ল ইয়ার ডজন খানিক সপ্তাহ ব্যাপী প্রাইমারী ইস্কুলে আইন শিখাইবে, কিন্তু নিরাপত্তা না দিলে নো সাক্ষাৎ। আশা করি আবেদন মঞ্জুর হইল –আজীবন জামিন এমন কি সাজা হইলেও স্থগিত সাজা।

বি;দ্র ঃ সম্পুরক আবেদন এই যে কারো গ্রেফতারী পরোয়ানা গুরু আজমের গান – কোথায় হারিয়ে গেলে হায় — হয়ে যায় আর অন্যান্য মামলায় আমার নামে গ্রেফতারী পরোয়ানা দিনে জারী হইলে, রাতে পুলিশ যাইয়া ক্যাঁক করিয়া চাপিয়া ধরে এটা কেমন কথা? আমি তো তখন ভাইবারে জরুরী পরিকল্পনায় নিয়োজিত থাকতে পারি । একদেশেমে দো পীর ? মানে দুই আইন? চলেগা নেহি। আমার পরোয়ানাও হারিয়ে যেতে হবে ।

বিনীত,

মঞ্জুর করিতে বাধ্যতা শর্তে ,

চান্দিছিলা কল্লা তাকু ।

৫/৩/১৯- এলাহি ভরসা।