ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

সংবিধান সংশোধনের ইসুতে সুরনজিত বাবু বলেছেন কাউকেই খুশী করা গেলনা। তার এ মন্তব্যে সে বাপ-বেটা এর কথা মনে পড়ে গেল যারা তাদের একটি গাধাকে বাজারে বিক্রি করতে গিয়ে জনসাধারণ সবাইকে খুশী করতে গিয়ে কাউকেও খুশী করতে পারেনই নাই বরং সবাইকে খুশী করতে গিয়ে বাপ-বেটা নিজেরাই নাস্তানাবুদ হয়েছে। এ বাপ-বেটার ঘটনাটি বহুল প্রচারিত, তবুও প্রাসঙ্গিক বলে একটু উল্লেখ করলাম:-

বাপ-বেটা তাদের গাধাটাকে বিক্রি করার জন্য বাজারে রওয়ানা হয়েছে বাড়ী থেকে। এক গাধার উপরেত আর দুইজন উঠা যায়না, তাই বাপ স্নেহ বশে তার ছেলেকে গাধার উপর উঠিয়ে নিজে তাদের পিছু পিছু হেঁটে চলছে । গ্রাম এলাকায় ১০/২০ গ্রামের মানুষ একে অপরকে চিনে । কিছুক্ষণ চলার পর পথের আশে পাশের লোকজন ছেলেকে গাধার উপর দেখে তিরস্কার করে বলা আরম্ভ করল, “দেখ দেখ কি বেয়াদব ছেলে ! নিজে গাধার উপর করে বাজারে যাচ্ছে আর বাপকে হাঁটিয়ে নিচ্ছে, ছি ! ছি! ” একথা শুনে ছেলে গাধার উপর থেকে নেমে গিয়ে তার বাপকে গাধার উপর তুলে দিয়ে নিজে পায়ে হেঁটে যাত্রা করল । কিছু দুর যাবার , পথের পার্শ্বের কিছু লোক বাপকে তীব্র ভাষায় তিরস্কার করে বলা আরম্ভ করল,” দেখ দেখ !! পাষণ্ড পিতার কাণ্ড দেখ !!! নিজে আরামসে গাধার উপর সওয়ারী হয়ে যাচ্ছে বাজারে আর কচি ছেলেটাকে হাঁটিয়ে নিচ্ছে ।” একথা শুনে বাপ গাধার উপর থেকে নেমে পড়ল, বাপ-বেটা গাধার উপর না উঠে দুজনেই হেঁটে রওয়ানা দিল গাধাকে নিয়ে। আবার কিছু দুর আসার পর পথের পার্শ্বের কিছু লোক বলে উঠল , “দেখ দেখ !! বেকুব বাপ-বেটার কাণ্ড দেখ !! নিজেরা কষ্ট করে হেঁটে যাচ্ছে অথচ গাধাটার পিঠ খালী ,কেউ গাধার উপরে উঠে সওয়ার হচ্ছেনা। এরূপ বেকুব বাপ-বেটা তোমরা দেখেছ কোথাও ? ” কি আর করা তখন বাপ-বেটা দুজনেই গাধার উপর চড়ে রওয়ানা হল । কিন্তু এতেও তারা জনসাধারণকে খুশী করতে পারেনি …..তার পরের ঘটনা বাপ-বেটার দুজনার জন্য দু:খজনক বলে উল্লেখ করলাম না ।

সুরনজিত বাবু উক্ত বাপ-বেটার মত সবাইকে খুশী করতে পারেননি । তবে বাপ-বেটার মত নাস্তানাবুদ হয়েছেন কিনা বলেননি।