ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

 

Robert Louis Stevenson এর Dr. Jekyll and Mr. Hyde ছোটবেলায় স্কুলে পাঠ্য চমৎকার এক গল্প গতরাতে আবার পড়লাম মুগ্ধতায়। স্কুলে থাকাকালীন গল্পটা পড়েছিলাম নিতান্তই অনাগ্রহে আর বিতৃষ্ণায় শুধুমাত্র পাশ করার খাতিরে। আর গতরাতে তা পড়লাম রোমাঞ্চের সহিত ভাল লাগায়। গল্পটি মূলতঃ “split personality” এর উপর লিখা।
সম্ভ্রান্ত Dr Henry Jekyll এবং তার পুরোনো বন্ধু Edward Hyde কে নিয়ে গল্পটি রচিত, যেখানে Mr. Hyde বলে
মূলতঃ কেউ নেই, সে মানসিকভাবে অসুস্থ্য Dr Henry Jekyll এর বিকৃত উদ্ভাবন মাত্র। গল্পে পরিচিত Dr. Jekyll ই Mr. Hyde রূপে আবির্ভাব হন, এবং খুন খারাবি করেন। দোষটা পুরোটাই যায় Mr. Hyde এর, যেখানে গল্পের আরেক চরিত্র John Gabriel Utterson ইনভেস্টিগেটিং অফিসার হিসেবে দারুন দক্ষতার সহিত কাজ করেন। একটি চমৎকার গল্প, অনেকেই পড়েছেন, যারা পড়েননি সময় করে পড়বেন। আশাকরি ভালো লাগবে।

বইটি বন্ধ করে যখন জাবর কাটছি, তখনই হঠাৎ মনে হলো আমার চারপাশে অনেক “split personality” এর মানসিক রোগী। দিন দিন এর সংখ্যাও বাড়ছে। আর ভার্চুয়াল জগতে “split personality” চরম আকার ধারণ করেছে। অনেকেই আছে যারা সামাজিক ওয়েব-সাইট গুলোতে নামে বেনামে আকাউন্ট খুলে নিত্য কুকর্ম করে যাচ্ছে। আমার পরিচিত একটি ছেলে আছে ফেইস-বুকে যার একাধিক একাউন্ট, তাও মেয়ের নামে। ভুয়া একাউন্ট খুলে মেয়ে হিসেবে সে নিয়মিত প্রেম করে যাচ্ছে দেশে বিদেশে। আমি বার বার নিষেধ করায় এইসব ব্যাপার নিয়ে আমার সাথে আর আলাপ করে না, কিন্তু আমি নিশ্চিত সে তার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে চমৎকার ভাবে। এবং সে কাজটি করছে শুধুমাত্র নিছক আনন্দ লাভের জন্য, অন্যকে বোকা বানিয়ে অনৈতিক আনন্দ লাভ যে করতে পারে সে মানসিক রোগী ছাড়া আমার চোখে আর কিছুই নয়।

এই রকম উদাহরণ ভার্চুয়াল দুনিয়ায় শত-শত, হাজার-হাজার। ফেইস-বুকের তথ্য অনুযায়ী শুধুমাত্র ফেইস-বুকেই আছে ৮কোটি ৩০ লক্ষ ভুয়া একাউন্ট!!! অবাক হচ্ছেন তি না??? বন্ধত্ব করবেন তাতেও ভেজাল!!!

এত গেলো ফেইসবুক, ব্লগিয় জগতে আসি। ব্লগিং এর ক্ষেত্রে অনেকেই ছদ্ধ নাম ব্যবহার করেন। লেখালেখি বা মতপ্রকাশে তা বহুকাল পূর্ব থেকে সর্বজন স্বীকৃত। এখানেই ফায়দা লুটছে “split personality” এর মানসিক রোগীরা। বিকৃত মানসিকতা নিয়ে ব্লগিং জগতে আসছে শুধুমাত্র অন্যকে আক্রমন আর হেনস্থা করার জন্য। এইসব ভুয়া একাউন্টধারীর আবার একটি করে আসল একাউন্ট থাকে যার মাধ্যমে সে তার সুন্দর রূপ প্রকাশ করে। সুন্দর পোস্ট দেয় সুন্দর কমেন্ট করে। যাকে প্রতিপক্ষ মনে করে তার পোস্টে ভালো মন্তব্য করে সাইনআউট হয়ে লগইন করে অন্য নিক নিয়ে (যেটি ভুয়া খুলাই হয়েছে আক্রমন আর বাজে মন্তব্য করার জন্য) উগ্র,অশ্লীল, কদর্য পূর্ণ মন্তব্য করে। কী কুরুচি হলে একটি মানুষ তার বহুরূপী এই রূপের প্রকাশ করতে পারে তা ভেবে দেখুন…, আপনি নিশ্চিন্তে এই সব মানুষকে schizophrenia নামক ভয়ানক রোগের গোত্রে ফেলতে পারেন।

আপনি আমি যাকে বন্ধু মনে করছি, যেকোনো ব্লগে যার সাহায্য নিচ্ছি প্রকৃতপক্ষে সে একজন অসুস্থ্য মানুষ, তার চিকিৎসা দরকার। ব্যক্তিগতভাবে এমন ব্যক্তি পরিচিত থাকলে তাকে সাহায্য করা উচিত আপনার আমার। এই ধরনের মানসিক রোগ চিকিৎসা না করালে চরম আকার ধারণ করে, পরবর্তীতে চিকিৎসকেরও কিছু করার থাকে না। ভার্চুয়াল জগতে বিষ ছড়াতে ছড়াতে শীঘ্রই তারা আপনার আমার সামাজিক-পারিবারিক কিনবা ব্যক্তিগত জগতে প্রবেশ করবে এবং শান্তি নষ্ট করবে। এইসব রোগিদের সবচেয়ে বড় যে চিকিৎসা দরকার তার নাম Psychiatric rehabilitation, যার মাধ্যমে একজন রোগী সুস্থ্য হয়ে আবার সুন্দর জীবনে ফিরে আসতে পারে। কাজটি বেশ কঠিন, জেনে রাখুন এইসব রোগীরা কখনোই বুঝতে পারে না যে তাদের কোনো সমস্যা আছে।

আবার সামাজিক ওয়েবসাইটে ফিরে আসি, দেখবেন প্রায়ই সম্মানী সব মানুষের ছবি নগ্ন ভাবে এডিট করে ভুয়া একাউন্ট থেকে ট্যাগ করা হয়। একবার ভেবে দেখুন ঐ সম্মানী ব্যক্তি যিনি আদৌ এই ভুয়া একাউন্টধারীকে চিনেনই না, তার সাথে কোনো সম্পর্কই নেই যার, সে কোনো কারন ছাড়াই শুধুমাত্র নিজের আনন্দের জন্য, চিত্তের নগ্ন তৃপ্তির জন্য এই অশ্লীল, অসামাজিক ঘৃন্য কাজটি করে যাচ্ছে প্রতিদিন। আমার এক বন্ধু পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাসী, যে ইন্টারনেটের কিছুই জানে না, তার নামে ফেইসবুকে আছে ২০টিরও অধিক একাউন্ট যেখানে তাকে উপস্থাপন করা হয়ে একজন সমকামী রূপে!!!! বন্ধুটিকে ফোনে ব্যাপারটি জানলে সে বাকরুদ্ধ হয়ে যায়। কে করতে পারে এমন ঘৃন্য কাজ জিজ্ঞেস করি বন্ধুটিকে, আদ্র গলায় সে জবাব দেয়, দোস্ত জ্ঞানত আমি কারও কোনো ক্ষতি জীবনে করিনি, তাহলে কাকে দোষ দেবো!!!??? কোনো শত্রু তো খুজে পাচ্ছি না।

আমি জানি এই সব বহুরূপী চরিত্রের মানুষগুলো আসলে আমাদের মতোই সাধারণ মানুষ। কিন্তু তারা কঠিন অসুখে ভুগছে। তাদের চিকিৎসা প্রয়োজন। তারা যখন সুস্থ্য হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবে, সঠিক পথে জ্ঞানের সন্ধান করবে, চর্চা করবে- আমার বিশ্বাস মেধায়,মননে,সৃষ্টিতে তারা আমাদের ছাড়িয়ে যাবে। আমরা সেই সুদিনে অপেক্ষায় থাকি।

সবার মাঝেই Dr. Jekyll এবং Mr. Hyde আছেন, চলুন আমরা Dr. Jekyll কে জাগিয়ে তুলি সবসময় আর চিরদিনের মত ঘুমিয়ে থাক Mr. Hyde.

কবির কথায় শেষ করি, “কোথায় স্বর্গ ?কোথায় নরক? কে বলেছে তা বহুদূর, মানুষের মাঝে স্বর্গ-নরক মানুষেই সুর-অসুর।”

ভাল থাকুন, সুস্থ্য থাকুন। ভালবাসা সবসময়।

(ছবিসূত্রঃ আন্তঃজাল)