ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 
Brain

সবাই যখন ঈদের ছুটিতে আনন্দ করছি তখন শত শত গার্মেন্টস শ্রমিক তিন মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে অনশন করছে! নিউজ চ্যানেল মারফত খবরটি দেখতে পেয়ে নিজেকে খুব অপরাধী মনে হয়।

আমি অর্থনীতিবিদ নই, রাষ্ট্র-বিজ্ঞানীও নই, রাজনীতি আমার উদর পূর্তির বিষয়-বস্তুও নয়, তবু সাধারণ নাগরিক হিসেবে কিছু ব্যাপার আমার বোধগম্য হয় না কখনোই। এই যেমন ঈদে যেখানে শ্রমিক বোনাসের দাবী করবে সেখানে তিন মাসের বকেয়া বেতনের দাবীতে অনশন করে…! আর এই বিষয় চোখ এড়িয়ে যায় আমার প্রিয় নেত্রীর, সরকারের, রাষ্ট্র যন্ত্রের, জনগণের ন্যায্য দাবীতে সোচ্চার বিরোধী দলের! এমন কি দেশের সর্বোচ্চ আদালতের! সব ন্যাড়া যেনো একই ক্ষুরে মাথা কামানো! হাস্যকর মানবাধিকার সংস্থাগুলো, সবাই নিশ্চুপ! এ কোন বোবা-কালার দেশে বাস করছি?

এ তো গেলো স্বদেশ, আন্তর্জাতিক ব্যাপারগুলোও দুর্বোধ্য। ফিলিস্তিনে প্রতিদিন শত শত নিরপরাধ বেসামরিক মানুষকে কামানের গোলার আগুনে বারবিকিউ করছে ইসরাইল, অথচ তথাকথিত মাত্তুবর মুসলিম দেশগুলো পুরোপুরি নিশ্চুপ! যেখানে একাধিক অমুসলিম দেশ প্রতিবাদে শুধু সোচ্চারই নয়, এমন কি ইসরাইলকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ঘোষণা করে তাদের ভিসা নিষিদ্ধ করেছে! হায় খোদা এও দেখার বাকি ছিলো!

গত এক দশক ধরে শুনে আসছি মুসলিমদের মুখপাত্র হিসেবে নাকি আল-কায়েদা গুরু-দ্বায়িত্ব নিয়েছে। অথচ ইসরাইলের এহেন আগ্রাসনে তারা একটি পটকা ফাটানো তো দুরের কথা, অন-নাইনে একটি প্রতিবাদী বিবৃতিও দেয়নি। ইসরাইল তো অনেক দূরে, পার্শ্ববর্তী দেশ মায়ানমায়ারের মুসলমান যখন কচু কাটা হয় তখনও তাদের দেখিনি Fart পর্যন্ত করতে!! হাস্যকর, এরাই নাকি ইসলাম রক্ষার নামে আমেরিকার বিখ্যাত টুইন-টাওয়ার ধ্বংস করেছিলো! বিরাট কমেডি!

আমি খুবই সাধারণ মানুষ। অফিস-ঘর-অফিসে আমার কর্ম, মস্তিষ্ক সীমাবদ্ধ। ঈদে বোনাসে মা-বাবা আর স্ত্রীকে কাপড় কিনে দিয়ে নিজেকে সার্থক মনে করি। ভর পেট খেয়ে রিমোট হাতে ঈদের ইত্যাদি, আনন্দমেলা আর নাটক দেখে হাই তোলে নিজেকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুখি মানুষ মনে করি। কিন্তু ঈদে এই সব চ্যানেলের ফাঁকে নিউজ চ্যানেলগুলো জন্মসূত্রে প্রাপ্ত মৃতপ্রায় বিবেকে আবার দোলা দিয়ে যায়। তখনই এইসব অবান্তর প্রশ্ন কুড়ে খায় ।

দেশ কিংবা বিশ্ব নেতাদের বদলানোর প্রয়োজন নেই, হাজার বৎসরে যা সম্ভব হয়নি ভোজবাজির মত আজও তা হয়ে যাবে তা আমি বিশ্বাস করি না। বরং চেষ্টায় আছি নিজেকে পরিবর্তনের। বিবেক নামের বোধকে লুপ্ত করে নিজের মস্তিষ্ককে একটি কপোট্রনে পরিণত করতে পারলেই এইসব অবান্তর প্রশ্ন আমায় আর তাড়িয়ে বেড়াবে না নিশ্চিত। প্রতিদিন তিলে তিলে নিজেকে তৈরি করছি একবিংশ শতাব্দীর একজন নাগরিক হিসেবে, আপনিও নিশ্চয়ই ব্যতিক্রম নন?

এক-একজন আধুনিক মানুষসব!