ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

কয়েকটি ঘটনাপ্রবাহ তুলে ধরছি। পড়ার পরে চিন্তা করে বলুন আপনার প্রতিক্রিয়া তখন কেমন হবে?

(১)
আপনি কাউকে উপহার দিতে চাইছেন। অনেক খুঁজে, বেশ কষ্ট করে, কষ্টের টাকা দিয়ে একটা উপহার কিনে দিলেন। যাকে দিলেন তার পছন্দতো হলোই না বরং চরম বিরক্ত! তখন কেমন লাগে আপনার?

(২)
অফিসের কারো একটা অনুষ্ঠানের দাওয়াত। সহকর্মীরা সবাই মিলে ঠিক করলেন সবাই মিলে একসাথে করে ভাল একটা উপহার নিয়ে যাবেন। দেখতে ভাল লাগবে। এজন্য মাথাপিছু একটা চাঁদাও ধার্য করা হলো। কিন্তু এমাসে আপনি প্রচন্ড আর্থিক টানাটানিতে আছেন। সংসারের বিভিন্ন ইস্যুতে। ধার করা লাগে কিনা। কিন্তু না ও করতে পারছেন না – যদি অন্যরা কিছু মনে করে। সামাজিকতা বলে একটা ব্যাপার আছে। কি আর করার জোর করে মনের ইচ্ছের বিরুদ্ধে ধার্যকৃত টাকাটা দিয়ে দিতে হচ্ছে – হয়ত একটা দীর্ঘশ্বাসও বেরিয়ে আসল। তখন কেমন লাগে আপনার?

(৩)
আপনার নিজের বা পরিবারের কোন অনুষ্ঠানে কাউকে দাওয়াত দিয়েছেন। আমন্ত্রিত অতিথি হাতে করে নিয়ে আপনার হাতে ধরিয়ে দিলেন একটা গিফট্ বক্স। আপনিও আশা করছিলেন তার কাছ থেকে উপহার। তখন কেমন লাগে আপনার?

(৪)
একটা বিয়ের অনুষ্ঠানে গেলেন। ঢুকতেই দেখলেন একটা টেবিল আছে উপহারের জন্য। খাতা/কাগজ নিয়ে উপহারদাতাদের লিস্ট করা হচ্ছে। আপনি কিছু নিয়ে যান নি, শূন্য হাত। তখন কেমন লাগে আপনার?
উপহার দেওয়া-নেওয়া করা উচিত মন থেকে এবং সামর্থ্য অনুযায়ী; মনের ইচ্ছের বিরুদ্ধে নয়। নেওয়ার সময় বা দেওয়ার সময় সেটার সাথে যেন কোন দীর্ঘশ্বাস না থাকে।

:**মুনতেসার আলী**: