ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

লিবিয়ায় ইসলামি শরিয়া আইন আর কয়েম হচ্ছে না। গতকাল বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজি এক ঝটিকা সফরে লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে পৌঁছান। আর এই সফরের পর থেকেই ধারনা করা যায় যে লিবিয়ায় ইসলামি শরিয়তি স্বপ্ন অংকুরেই বিনষ্ট হয়ে গেল।

ঐ দুই নেতা ঘোষনা দেন জাতিসংঘের (যে বিশ্ব প্রতিস্ঠানকে ইহুদি নাসেরা তাদের বাবা দাদার সম্পতি বানিয়ে রেখেছে) প্রস্তাব ১৯৭৩ অনুযায়ী লিবিয়ার জনগণকে রক্ষার জন্য যত দিন প্রয়োজন, ঠিক তত দিন ন্যাটো বাহিনী লিবিয়ায় মোতায়েন থাকবে।

অপরদিকে দুই রাষ্ট্রীয় বেঈমান ও মুনাফিক এনটিসি-প্রধান মুস্তাফা আবদেল জলিল এবং এনটিসির নির্বাহী প্রধান মাহমুদ জিব্রিল তাঁদের অভ্যর্থনা জানিয়ে বলেন দুই নেতা শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক লিবিয়া গড়তে অর্থনৈতিক ও সামরিক সহায়তার যে আশ্বাস দিয়েছেন তা লিবিয়বাসী কৃতজ্ঞতার সাথে গ্রহন করল। লিবিয়ায় মুসলিম রাস্ট্র থেকে বদলে দিয়ে পশ্চিমা ধাচের ধর্ম ও মূল্যবোধ শূর্ণ্য জাতিতে পরিনত করতে চায়। এ লোভের শেষ কোথায়!