ক্যাটেগরিঃ সেলুলয়েড

 

প্রবীণ চিত্রনির্মাতা দেলোয়ার জাহান হেডমাস্টার নামে একটা ছবি বানাচ্ছেন। বেশ লোভনীয় উপভোগ্য ছবি হবে আশা করা যায়। খবরের কাগজে পড়লাম এতে প্রিয় অভিনেত্রী বন্যা মিরজা ওই ছবিতে হেডমাস্টার আলমগীরের বাসার কাজের মেয়ে চরিত্রে অভিনয় করছেন। আনন্দের বিষয় এই কাজের মেয়েটি পরবর্তীকালে দেশের শিক্ষামন্ত্রী হবেন। ব্যাপারটি জেনে চমকিত হয়েছি আমিও। আশঙ্কিত হয়েছি এই ভেবে যে, ছবিটাতে গল্পের গরু গাছে চড়তে যাচ্ছে না তো! দেলোয়ার জাহান সম্পর্কে আমি ওয়াকিবহাল। গুণহীন এই দেশের চলচ্চিত্রে তিনি অতি গুণী পরিচালক। তিনি সমাজ-বাস্তবতা থেকে মোটেই বে-ওয়াকুফ নন। চারপাশে কী হচ্ছে তা তিনি ভালো করেই জানেন। নিশ্চিত করেই আশা করা যায়—হেডমাস্টার বাড়ির কাজের মেয়ের শিক্ষামন্ত্রী হয়ে ওঠার ব্যাপারটি তিনি লজিকালি বিশ্বাসযোগ্য করেই তুলে ধরতে পারবেন।
আর ব্যাপারটিকে অবাস্তব-ফ্যান্টাসি বলি বা কেমন করে! আমাদের রাজনীতিতে কী দেখছি। খোদ প্রধানমন্ত্রীই তো জোরগলায় বলছেন— রাস্তা থেকে ধরে এনে অনেককে এমপি বানিয়েছেন। মহাজোট নেত্রী যার ব্যাপারে ওই কথা বলেছিলেন, তিনি এখন টিভি টকশোর মুখর মুখ। যে প্রধানমন্ত্রী রাস্তা থেকে তুলে এনে কাউকে এমপি বানাতে পারেন, তিনি চাইলে রাস্তার ওইসব এমপিকে মন্ত্রীও বানাতে পারেন। তার হাতে যে সর্বময় অসীম ক্ষমতা। তিনি মন্ত্রী-এমপি বানাতে তো পারেনই, উপদেষ্টাও বানাতে পারেন। কিছু চমত্কার দৃষ্টান্ত তিনি রেখেছেনও।

আর যদি তাই-ই হয়, তবে একজন সৎ সজ্জন শিক্ষাগুরুর সান্নিধ্যে থেকে একটি কাজের মেয়ে কালক্রমে যদি শিক্ষামন্ত্রী হয়ও বা—সেটাকে অবাস্তব ফ্যান্টাসি বলিই বা কোন মুখে।