ক্যাটেগরিঃ গণমাধ্যম

 

গণমাধ্যমে- গণমাধ্যমে শিশুদের জন্য বাংলায় বিনোদন চাই। আমরা এটা চাইতেই পারি। আমাদের চাওয়ার অধিকার আছেই। আমরা ‘চাই- চাই” চিৎকারে দেশ মাথায় তুলে ফেলবো। কিন্তু এতে কী হবে? আমরা কি তা পাব? আমার মনে হয় আমরা পাবোনা। কারণ আমাদের গণমাধ্যমের মালিক ব্যবসায়ী। তারা ব্যবসা ভাল বুঝেন। কিভাবে অল্প পরিশ্রমে বেশি মুনাফা আয় করা যায়- সেটা তারা ভাল করেই জানেন। তাই তারা পরিশ্রম করে কোন অনুষ্ঠান তৈরী করেন না- যেটা হতে পারে এদেশের সংস্কৃতির বাহক; বিনোদনের পাশাপাশি শিক্ষনীয়। তারা আমদানী করেন। ব্যবসায়ীরা-তো আমদানী করবেনই। তাদের মুনাফা দরকার। তারা বুঝেন প্রোডাক্ট। তারা শিল্প বুঝেন না। তারা নিজের কথাই শুধু ভাবেন- সমাজের কথা ভাবেন না।

আর আমাদের মধ্যে একটা প্রবণতা তৈরী হয়েছে যে, আমরা যদি ইংলিশ পারি- অনর্গল ইংলিশে কথা বলতে পারি, তাহলে ই বিশ্বে আমরা জয়ী। জয়ের জন্য আমরা রেসের ঘোড়ার মত ইংরেজির পেছনে দৌড়াচ্ছি। এতে আমরা বাংলাকে পেছনে ফেলে দিচ্ছি। শুধু পিছনেই ফেলছি না- পায়ে মাড়িয়ে যাচ্ছি।

আমরার বর্তমান আধুনিক- শহুরে বাবা-মা’রা সন্তানকে বাংলায় ছড়া পড়ানোর আগে ইংলিশের ছড়া পড়ান।সন্তান যদি ইংলিশে একটা শব্দ বলে তাহলে পিঠ ছাপরে দেন। উপরন্তু পরশীকে বলেন ছেলের এই সাফল্য।

আমাদের দেশে অনেক পরিবার আছে যেখানে শিশুরা বাংলায় কথা বলে না। কথা চলে শুধু ইংরেজিতে। এই পরিবার গুলোই দেশ চালাচ্ছে- গনমাধ্যম চালাচ্ছে। তাহলে আমরা কাদের কাছে দাবী জানাব?

আমাদের বিটিভি-তে সিসিমপুর নামে শিশুদের জন্য একটি অনুষ্ঠান হয়। এই অনুষ্ঠান যদি কেউ দেখে- তাহলে বলতে পারবেনা ” এটা খারাপ অনুষ্ঠান” । কিন্তু যাদের ঘরে স্যাটেলাইট চ্যানেল আছে তারা ভুলেও বিটিভি দেখেনা।

বিটিভি-তে কি শুধু সরকারের গুনগানই হয়? ভাল কিছু হয়না?
-হয়। কিন্তু আমরা আধুনিকরা বিটিভি দেখি না। বিটিভি শুধু দেখে গ্রামের লোকেরা।

আমি বলি সরকারী প্রজ্ঞাপন জারি করে ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করা উচিৎ।বাংলাদেশিদের এখনও ভাল-মন্দ বিচার করার বোধ হইছেনা। বিদেশী অথবা ভারতীয়দের যেটা খারাপ- সেটাই আমরা বেশি গ্রহণ করছি। আর আধুনিকতা জাহির করছি। এতে আমরা হয়ে গেছি “বাহিংলিশ”।

সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তিগত ভাবে আমাদের অস্তিত্বের কথা ভাবতে হবে- দেশের কথা ভাবতে হবে।

আমাদের শুধু আধুনিক- ব্যবসায়ী হলে চলবেনা। আমাদের একটু গ্রামীণও হতে হবে। আমাদের বাঙালি- বাংলাদেশি হতে হবে। আমাদের বুঝতে হবে বাংলা আমাদের প্রাণ। আমরা বাংলাকে প্রাণে ধারণ করেই জীবনের প্রয়োজনে অন্য ভাষা শিখবো। প্রত্যেক বাবা মায়ের উচিৎ হিন্দি চ্যানেল শিশুদের না দেখিয়ে দেশিয় চ্যানেল দেখানো।

তখন এমনিতেই আমাদের ব্যবসায়ীরা শিশুদের জন্য ভাল অনুষ্ঠান বানাতে শুরু করবেন। সরকারকে আমরা তখন বলতে পারবো- “আমাদের শিশুদের জন্য ভাল অনুষ্ঠান তৈরী করেন!” সরকার যদি তখন তৈরী না করে- আমরা কান ধরে সরকারকে বাধ্য করব।

জয় হোক বাংলাদেশের- জয় হোক বাংলার!!