ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

আপনার টাকা আছে, আপনি রাজনীতি করেন, তাহলে যাকে ইচ্ছা তাকে খুন করতে পারেন। যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে খুন করেন। মন চাইলে জবাই করে কাবাব বানাইয়া খান। তাতে সমস্যা নেই। আপনাকে ক্ষমা করার জন্য রাষ্ট্রপ্রতি বসে আসে। তবে হয়তো কিছুদিন আপনাকে কারাভোগ করতে হতে পারে। তাতেও সমস্যা নেই। কারাগারেও আপনার জন্য বিশেষ ব্যাবস্থা আছে। সেখানে ২৪ ঘন্টা বিশ্রামে থাকবেন। প্রয়োজনে খুন করার আগে লক্ষীপুরের আওয়ামীলীগ নেতা তাহেরের সাথে যোগাযোগ করুন। তিনি কিভাবে তার স্নেহের পুত্র বিপ্লবকে হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডাদেশ মওকুপ করিয়ে নিয়েছেন। এভাবে আরো অনেক মৃত্যুদণ্ডাদেশ মাফ পাওয়া লোক পাবেন। এতে কোন দল ক্ষমতায় তাই দেখার প্রযোজন হবেনা। কারণ বিএনপি-আওয়ামীলীগ সব সরকাররের সময়ই মৃত্যুদণ্ড মওকুফ করেন রাষ্ট্রপ্রতি। তবে সাবধান গরিব লোক হলে খুন হওয়া ব্যাক্তির লাশের দিকেও তাকাবেন না। প্রয়োজনে আপনার বাসা/বাড়ীর আসে পাশে হলে আপনি পালিয়ে যান। তা না হলে যদি একবার সিস্টেমে পড়ে যান,তাহলে রক্ষা নেই। আপনার ফাঁসি অবধারিত।

আইনটা যেন মাকড়সার জাল। এ খানে সবল পোকামাকড় আসলে তারা শক্তি প্রয়োগ করে জাল ভেঙ্গে বেরিয়ে পড়বেই। আর দুর্বলরা জালে ধরা পড়লে তাদের নিস্তার নেই।