ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

ক্রিকেটারদের নিয়ে কিছু লিখতে মন চায় না। কিন্তু তাদের লাগামহীন মূর্খতা দেখতে দেখতে আর যখন সহ্য করতে পারিনা,ঠিক তখনি আমরা কলম ধরি বা লিখতে বসি।

আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজ এর স্কোর ১৯৭ রান!! এটা কি তাদের অর্জন বলবেন নাকি বাংলাদেশের ধামাল(!) ছেলেদের উপহার বলবেন??

“ক্যাচেস উইন ম্যাচেস” কথাটা অন্যরা ভুলে গেলেও ক্যাপ্টেন তা কেমনে ভুলেন?? দুইটা ক্যাচ মিস, তার মধ্যে তো একটা পুরাই মোয়া মার্কা ক্যাচ!!

১৯ ওভার শেষে স্কোর যেখানে ১৬৮ রান, ২০ ওভার পর তা ১৯৭!!

তাও আবার আমাদের ক্রিকেট জগতের হাজী মুহাম্মদ মহসীন নামে খ্যাত বোলার রুবেল এর কৃতিত্ব!!

শুধু তার একার দোষ দিয়ে লাভ কি? আমাদের ক্যাপ্টেন মুশফিকও কি এর জন্য দায়ী নয়??

আরে ভাই হাজী মুহাম্মদ মহসীন নামে খ্যাত বোলার রুবেল তো দানবীর। ৪র্থ ম্যাচে কি আমাদের ক্যাপ্টেন মুশফিক সেটা দেখেন নাই?? এক ওভারে ২৪ রান!!

আজও সেই একই কাজ!! প্রথম দুই ওভারে ১৭ রান,৩য় ওভারে ১৭ রান!! আমাদের ক্যাপ্টেন মুশফিক এর কি তখনো বোধদয় হয়নি যে উইকেট-এ স্যামুয়েলস আছেন!!!! যার রান ৫৭ মাত্র ৩৮ বলে!!!!

এরপরও কিভাবে আমাদের ক্যাপ্টেন মুশফিক আমাদের ক্রিকেট জগতের হাজী মুহাম্মদ মহসীন নামে খ্যাত বোলার রুবেলকে বল করতে দেন???? আরে ভাই, পরীক্ষিত মানুষ কে আর কত পরীক্ষা করবেন???? টি২০ খেলার শেষ ওভারে কোন দল হাত খুলে খেলেনা???? আর যদি ক্রিজে থাক্র ফিট ব্যাটসম্যান ও বর্তমান টি২০ চ্যাম্পিয়ন দল, তবে কি আপনার কাছ থেকে বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্ত আমরা আশা করতে পারিনা??

আরে ভাই আন্ধার ভাই কানা আর বয়রার ভাই লুলাও তো অইসময় ভুলেও ভুল করে রুবেল কে বল দেয় না।

মমিনুল,নাসির,রাজ্জাক ইত্যাদিদের কি মুরি খাওয়ার জন্য রাখছেন??

এক্ষেত্রে আমার মতে রুবেল এর চেয়ে মুশফিক এর অতি বিচক্ষণ ক্যাপ্টেন্সিই দায়ী। আজ বাংলাদেশ দল যদি জয় লাভও করে, তবুও মুশফিক কে কাঠগড়ায় দার করানো উচিত। কারণ বাংলাদেশ দল যদি জয় লাভ করে, তবে তা ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব ছারা আর কিছু না।

মানি যে, রুবেল গেইল ও স্মিথ কে আউট করেছেন, তবে উনি না করলেও অন্য কেউ করতেন। হ্যা, উনি আউট করেছেন, সেটা অবশ্যই বাহবার দাবিদ্বার, কিন্তু ক্রিকেট/ফুটবল যা খেলাই হোক না কেন, ব্যাক্তিগত অর্জনের চেয়ে দলীয় অর্জনই সবার উপরে। মেসি ৮৬ গোল করার পর এই কথাই বলেছেন যে, যদি বার্সেলোনা লা লিগা, কোপা দেল রে, চ্যাম্পিয়ন্স লীগ না জিতে, তবে তার এই এক ক্যালেন্ডার বর্ষে করা ৮৬+ গোল ও গার্ড মুলারের রেকর্ড ভেঙ্গে নিজের করা এই রেকর্ডের কোন মূল্যই থাকবেনা।

আশা করি আমাদের আমাদের সিলেকশন বোর্ড তাদের “অটোমেটিক চয়েস” কথাটি তুলে নিবেন। দোষী ক্যাপ্টেন হোক বা আশরাফুল/আফতাব প্রমুখদের মত যেই হোক, যেন সে তার কৃ্ত ভুল ভবিষ্যতে আর পুনরাবৃতি না করে সজাগ থাকে এবং দলে চান্স পাওয়ার জন্য/চান্স পাওয়ার পর দলে তার অবস্থান ধরে রাখার জন্য ১% ভুলও না করে সেদিকে খেয়াল রাখতে পারেন।

বিঃদ্রঃ বিশেষ কোন খেলোয়াড় কে আঘাত করা লিখার উদ্দেশ্য নয়। মনের অন্তঃস্থলে পাওয়া কষ্ট থেকেই এই লেখার উদ্যোগ।