ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

 

এই প্রথম কোন বাংলা ব্লগার বব্স’এর মিশ্র বা আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরিতে জুরি পুরষ্কার জয় করলেন। তাও আবার রিপোর্টার্স উইথাউট বর্ডার্স বা সীমানা বিহীন সাংবাদিক পুরষ্কার ক্যাটাগরিতে।

গত ২৬ জুন জার্মানির বন শহরে গ্লোবাল মিডিয়া ফোরামের মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় বব্স’এর পুরষ্কার বিতরণী উৎসব। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ব্লগার ও সাংবাদিকরা উপস্থিত থাকেন এই আয়োজনে।

বাংলা ব্লগার আবু সুফিয়ানের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন রিপোর্টার্স উইথাউট বর্ডার্স জার্মানির নির্বাহী পরিচালক ক্রিশ্চিয়ান মায়ার।

এ সময় আবু সুফিয়ান বলেন, ‘আমি অত্যন্ত উচ্ছ্বসিত। আমি মনে করি এই পুরষ্কারটি বাংলা ভাষাভাষী সকল ব্লগারদের অনুপ্রাণিত করবে ভাল কাজের জন্য।’

আবু সুফিয়ানের এই পুরষ্কার পাওয়ার প্রসঙ্গে এটিএন নিউজের প্রধান মুন্নী সাহা বলেন, ‘আবু সুফিয়ান আপনি দেখেছেন যে যে পরিচিতিটা উঠেছে সেখানে এটিএন নিউজেও কাজ করেছে। আমি খুবই গর্বিত এবং আমি মনে করছি যে এমন একটি অনুষ্ঠানে আমি যেকোনো কারণেই হোক এসেছি। এবং আমার মনে হচ্ছে যে আমার সন্তান পুরষ্কার পেলে যেমন লাগতো ওরকম লাগছে। আমার ছোট ভাইটি পুরস্কৃত হয়েছে। ওঁ আমার সঙ্গে এটিএন নিউজে কাজ করতো। যখন কাজ করেছি ওঁর যেই কাজের জন্য পুরস্কৃত হয়েছে সেটার সঙ্গে আমাদেরও কিছুটা কন্ট্রিবিউশন আছে। ওঁ প্রথম এসেই মানে আমাদের এখানে জয়েন করতে এসেই বলেছে যে দিদি আমি কিন্তু র্যা বের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করব আপনি ছাপতে পারবেন আপনি দিতে পারবেন। আমি বলছি তুমি কাজ কর। একটা রিপোর্ট দেয়ার পরে আমরা এটিএন নিউজ আর দিতে পারি নাই। কিন্তু কোথাও মানে কেউ কাজ করতে চাইলে ভাল কিছু করতে চাইলে কোথাও থেমে থাকেনা, কাউকে থামিয়ে রাখা যায় না। আবু সুফিয়ান সেটা প্রমাণ করলো এবং বাংলাদেশী হিসেবে বাংলাদেশের মানুষ হিসেবে এবং আবু সুফিয়ানের এক্স কলিগ হিসেবে আমি অত্যন্ত গর্বিত। এবং আমি আমার ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না। আমি খুবই আনন্দিত হয়েছি। মনে হচ্ছে যে আমাদের এই ইয়াং জেনারেশানের একটা অন্য ধরনের নোবেল প্রাইজের মতন। খুবই ভাল লাগছে।’

সূত্র: ডয়চে ভেলে।

আরও দেখুন: সুফিয়ানদের বিজয়ে বিচারের বাণী মাথা তুলে দাঁড়াবে