ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 

আষাঢ় এখন শেষ শ্রাবণের শুরু। সময়টা এমন চোখ বন্ধ করলেই মনে হয়, একটানা ঝুম বৃষ্টি বয়েই চলেছে। কারো কারো জানালা খুলতে ইচ্ছে হবে না। কিন্তু জানালা খুললেই দেখা যাবে ভারী আকাশে গুম গুম শব্দ হচ্ছে। কালো কালো মেঘগুলো আকাশে এসে জমেছে। শেষ গ্রীষ্মের লিলুয়া বাতাস জানালা দিয়ে ভেতরে ঢুকে যাচ্ছে। মুহূর্তেই থেমে যাচ্ছে আবার একটু পরেই শুরু হচ্ছে মাতাল হাওয়া। এ সময় জানালা বন্ধ করে ঘরে বসে থাকতে নেই, বাইরে বেড়িয়ে আসুন, তাড়াতাড়ি। ক্ষণিকের জন্য আপনার নিজেকে সাদাকালো সিনেমার যুগের কোন চরিত্র মনে হতে পারে। কালো মেঘের ছায়ায় আর বর্ষার উদোম বাতাসে সব রঙিন মুছে গেছে। হঠাৎ শুরু হবে ঝুম বৃষ্টি। এমন বৃষ্টির দিনে একলা ভেজার নিয়ম নেই। আপনার খুব কাছে মানুষ বা যাকে কাছের মানুষ মনে হয় তাঁকে এই শেষ বর্ষায় কদম বনে বৃষ্টিতে ভেজার আমন্ত্রণ জানান। যদি সে আমন্ত্রণে সাড়া দেয় তবে তাঁর হাতটি ধরে রাখুন শেষ পর্যন্ত। এক মুহূর্তের জন্যেও হাতটি তাঁর ছাড়া যাবে না। কারণ এ সময়টা এতো সুন্দর হবে যে এটাকে বাস্তব বলে মনে হবে না। মনে হবে কোন কল্পনার রাজ্যে আপনি আছেন, এখানে আছে বৃষ্টি ভেজার আনন্দ, যদি হাতটি ছেড়ে দেন এ হাতটি আর ধরা যাবে না।

যদি আপনি শেষ বর্ষায় ফুটা দুটো কদমফুল দেখতে চান তাহলে আপনাকে চলে আসতে হবে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের দ্বিতীয় গেইটে। গত শুক্রবার ১৩ই এপ্রিল দুপুর দেড়টার প্রখর রোদে আমি দ্বিতীয় গেইটের ঠিক ডানে কদম গাছটির নিচে আশ্রয় নেই। আর খুব অবাক হয়ে দেখি দু’চারটি কদম ফুল এসেছে। গত মাসে কদম ফুলের ছবি তুলার জন্য আমি হন্যে হয়ে খুঁজেছি কিন্তু ততদিনে বর্ষার সব কদম ফুল পচে গেছে। তাই এ সুযোগ হারাতে না চাইলে এখনি আপনাকে চলে আসতে হবে জাতীয় জাদুঘরের সামনে।

বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল

বর্ষার শেষ কদম ফুল

প্রাচীন বাংলার মুদ্রা

আর সময় হলে দেখে যেতে পারেন প্রাচীন বাংলার কাগজি নোট ও মুদ্রা প্রদর্শনী উৎসব। বাংলার হাজার বছরের ইতিহাসের সাক্ষী বিভিন্ন মুদ্রার প্রদর্শনী চলছে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী প্রদর্শনী গ্যালারীতে ৯ থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত।

আরিফ হোসেন সাঈদ, ১৪ই জুলাই ২০১২