ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

গত ১৩ই ফেব্রুয়ারি সকালে জাতীয় সঙ্গীত পাঠের মধ্য দিয়ে নবম দিনের আনুষ্ঠানিকভাবে প্রজন্ম চত্বরের গণজাগরণ মঞ্চে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়। সকাল থেকেই সেখানে প্রচুর আন্দোলনকারীরা অবস্থান করছিলেন। দুপুর নাগাদ গণজাগরণ মঞ্চে প্রায় ৫০,০০০ হাজার লোকের সমাগম ঘটে। প্রতিবাদী গণজাগরণের গান, স্লোগানের মধ্য দিয়ে চলতে থাকে আন্দোলন। সন্ধ্যায় শহীদ জননী জাহানারা ইমামের প্রতিকৃতি উন্মোচন করা হয়। এ দিন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী ও অভিনেতা অভিনেত্রীদের গণজাগরণ মঞ্চে এসে এ আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করতে দেখা যায়। সন্ধ্যার পর পরই আসেন জনপ্রিয় সঙ্গীত ব্যান্ড ‘শিরোনামহীন’। এসে তারা যুদ্ধাপরাধীদের মিডিয়ায় গান গাওয়ার জন্য ক্ষমা প্রকাশ করেন। রাত ঠিক ১০টা ২১ মিনিটে এসে উপস্থিত হন বাংলাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী, অভিনেত্রী ও কিংবদন্তী উপন্যাসিক হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। তিনি এসে গণজাগরণ মঞ্চের সাথে একাত্মতা পোষণ করেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে যোগ দেন অভিনেতা ফারুক আহমেদ। রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে গণজাগরণ মঞ্চে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের স্মরণে উপস্থিত আন্দোলনকারীরা স্লোগান দিতে থাকে। রাত ১টায় গণজাগরণ মঞ্চের প্রজন্ম চত্বরে গণজাগরণের গান পরিবেশন করেন আরিফ রহমান। রাত ১টা ২৭ মিনিটে গণজাগরণ মঞ্চের প্রজন্ম চত্বরের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফা। এছাড়া একাত্মতা পোষণ করে এদিন গভীর রাতে উপস্থিত হন অভিনেত্রী হুমাইরা হিমু