ক্যাটেগরিঃ স্যাটায়ার

 

জ্ঞানী বলদ: ঐ ছাগল ডাইল খাবি? ফ্রেশ মাল।
বুদ্ধিমান ছাগল: খামু। আইচ্ছা বলদ জন্মের পর থাইকা দেখতাছি আমাগো ঘরের লগেই ডাইল বেচা হইতাছে। পুলিশ কি এগুলা জানেনা?
জ্ঞানী বলদ: জানব না কেন? পুলিশ কি তোর মত বলদ? আইজ পুলিশের আইজিরে ফ্রেশ মাল ডেলিভারি দিমু। যাইছ আমার লগে।
বুদ্ধিমান ছাগল: কস কি হে বেডা মাল খায়!
জ্ঞানী বলদ: বলদে কয় কি দেহ। পুলিশ কি মানু না!
আইজির সাক্ষাৎকার –
বুদ্ধিমান ছাগল: স্যার আপনেও এইসব খান?
আইজি: এই এটা কে? হু ইজ হি? আই উইল কিল হিম।
জ্ঞানী বলদ: স্যার ওর কথায় মনে নিয়েন না। ছাগল।
আইজি: ছাগল তো এখানে এসেছে কেন? ছাগল মাঠে ঘাস খাবে। আর আমি খাব ফেনসিডিল। হাহাহা। নাহ! দেশে কেউ নিয়ম নীতি মানছে না। দেশটা জলে গেল।
জ্ঞানী বলদ: স্যার আপনেরা চাইলে তো সবই পারেন। দেশটারে ঠিক কইরা দিতে পারেন।
আইজি: এটা অবশ্য ঠিক বলেছ। আমরা চাইলেই পারি। মালটা তো খুব কড়া।
জ্ঞানী বলদ: তাইলে স্যার দেশের এই অবস্থা কেন!
আইজি: তুই অশিক্ষিত মানুষ। তোকে কি বলব। তারপরও শোন, দেশের নাড়ি নক্ষত্র আমরা জানি। আমাদের চোখে ফাঁকি মারা এতো সহজ নয়।
বুদ্ধিমান ছাগল: তাইকে স্যার আপনেরা এইসব ঠিক করেন না কেন?
আইজি: এই ছাগলটা আবার কথা বলেছে। ওকে আমি গুলি করে মারব।
জ্ঞানী বলদ: স্যার ওর কতা বাদ দেন।
আইজি: ঠিক আছে বাদ দিলাম। আসলে আমরা চাইলেই সব পারি। কিন্তু এতো কষ্ট করতে কে যায়। কাজ করলেও টাকা পাই না করলেও পাই। বরং না করলে আরো বেশী পাই। তাছাড়া আমাদের পুলিশের লোকবল কম। আমাদের দিয়ে সরকার বেশী কাজ করায়। তাই আমরাও আমাগো প্রাপ্য তুইলা নেই। বাংলাদেশের কোথায় কি অপরাধ হচ্ছে বা হতে পারে তা আমাদের নখের আগায়। আমরা চাইলে বাংলাদেশে সব দুর্নীতি বন্ধ করে দিতে পারি। আমরা যদি বলি তাইলে কেউ দুর্নীতি কইরা পাড় পাইব না। দেশ সিংগাপুর হইয়া যাইব। তাছাড়া আমরা যদি সব অপরাধ বন্ধ করে দেই তাইলে এমন ডাইল খামু কোত্থেকে? তাছাড়া দেশের স্বার্থে বিদেশি শক্তির হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে আমাদেরই বিভিন্ন অপরাধ ক্ষেত্র তৈরি করতে হয়। ব্যাপারটা অনেকটা এন্টি ভাইরাসের ভাইরাস তৈরির মত।
জ্ঞানী বলদ: স্যার রুনি আপা সাগর ভাইয়ের খুনের বিষয়টা কি হইলো?
আইজিঃ তদন্তের স্বার্থে এখন কিছু বলা যাচ্ছে না।
জ্ঞানী বলদ: স্যার হেগো খুনিরা কেন বাইর হইতাছে না?
আইজিঃ আমরা বাইর করলেয়ে-না বাইর হইব। হা হা হাহাহা। মালটা খুব কড়া হয়েছে।
জ্ঞানী বলদ: স্যার আরেকটা খান।
আইজিঃ এই তোর আখড়াটা না কোথায়?
জ্ঞানী বলদ: স্যার মোল্লা বাড়ির উল্লা পাড়ায়।
আইজিঃ যা তুই কইরা খা। তোকে আর কোন দিন পুলিশ ঘাঁটাবে না। তবে ঠিকঠাক মত চাঁদা দিয়ে দিস কিন্তু।
জ্ঞানী বলদ: স্যার সাংবাদিক খুন লইয়া অনেক কতা চলতাছে।
আইজিঃ আরে এগুলার কাম বকবক করা। বকবক করবই। অনেক বকবক করেছে। এখন চুপ মারার টাইম হইছে।
জ্ঞানী বলদ: স্যার কত খুনিগো আপনের লোক বাইর করে। হেগোরে করেন।
আইজিঃ বাইর তো করছি।
জ্ঞানী বলদ: তাইলে হেগোরে ধরেন।
আইজিঃ ধরন যাইবনা। উপরের নির্দেশ আছে। এই তোরা এখন যা। আমাকে এখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে যেতে হবে। স্পটের টাকা ঠিক মত দিস কিন্তু।
জ্ঞানী বলদ: আইচ্ছা স্যার। আপনাগো দোয়া। আসসালাম।

আরিফ হোসেন সাঈদ
০৩/০৩/১২, নারায়ণগঞ্জ।