ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

আমি ক্রুদ্ধ, বিস্মিত, হতবাক। একটু আগেই আমি একটি পোষ্ট লিখেছিলাম, সেখানে আশঙ্কা করেছিলাম অস্ত্রসহ আটক বিএসএফ সদস্যকে বিনাবিচারে ছেড়ে দেয়া হবে। অস্ত্রসহ একজন গোয়েন্দা সদস্য আটক হওয়ার পরও তাকে বিনাবিচারে ছেড়ে দিয়েছে বিজিবি। আমাদের বিশ্বাস সরকারের চাপেই বিজিবি ঐ ভারতীয় গোয়েন্দাকে ছেড়ে দেয়। রোববার সকালে শেরপুরে মধু টিলা ইকোপার্কে টাওয়ার থেকে পর্যবেক্ষণকালে তাকে একটি পিস্তল ও ১০ রাউন্ড গুলিসহ আটক করা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়ার পর মধ্য রাতে কামালপুর সীমান্ত দিয়ে হাবিলদার দিলীপ কেদারকে (৪৩) বিএসএফ’র কাছে হস্তান্তর করা হয়। বিজিবি জামালপুরের বিজিবি-৬ ব্যাটালিয়নের মেজর নাহিদ এর সত্যতা স্বীকার করেন। এভাবে কেন ছেড়ে দেয়া হল আর তার বাংলাদেশে অবৈধ প্রবেশের কারণ কি জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য করেননি।
আর কত? আর কত? এভাবে আর কত দিন চলবে। আর কত নতজানু হবে বাংলাদেশ সরকার। আর কত নিরীহ বাংলাদেশী নাগরিকদের ভারতের কারাগারে পঁচে মরতে হবে আর কত প্রাণ দিতে হবে। আর কত ভারতের অন্যায় মেনে নেওয়া হবে?

আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

আরিফ হোসেন সাঈদ
০৩/০৫/১২, নারায়ণগঞ্জ।