ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

ঝড় আসার পূর্বে তাঁর আভাস পাওয়া। তাছাড়া এটা কালবৈশাখীর সময়। অঝোর ঝড় হবে। এই ঝড়ে অংশ নিবে বিচারের বাণী। তাকে আর মুখ কাল করে থাকতে হবে না। ঝড় হয়ে মহানন্দে সে ঘুরে বেড়াবে শহর, নগর, গ্রাম-গঞ্জ সবখানে। সবকিছুতে প্রতিধ্বনিত হবে প্রতিবাদী বজ্র কণ্ঠ। প্রতিবাদী হয়ে উঠবে আমজনতা। আমরা বাঙ্গালি জন্ম থেকেই প্রতিবাদী। যখন অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করি কেঁপে উঠে নির্যাতিত সরকার। এখানে পুড়ে শেষ হয়ে যায় সব অন্যায়। জন্ম থেকেই শুনছি পূর্ব পুরুষদের অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের কথা। শুনেছি মগ, বর্গী, বর্মী, ইংরেজ আর পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে সংগ্রামী প্রতিবাদের কথা। আমাদের প্রতিবাদে পুড়ে ছাই হয়েছে তাঁদের মিথ্যের পাহাড়। আর এতো সামান্য এক সরকার যারা টিকে আছে মিথ্যে চাপার জোরে। আজ দেশে অনিয়ম, নৈরাজ্য, দুর্নীতি, গুপ্তহত্যা, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, নাগরিক সমস্যায় আমরা জর্জরিত। দেশে না আছে আইনের শৃঙ্খলা না আছে বিদ্যুৎ না আছে পানি। মানুষ আজ প্রতিবাদী হয়ে উঠেছে।

৮ই এপ্রিল ঝড় হবে। শুধু সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে নয় সকল অনিয়ম আর মিথ্যের বিরুদ্ধে। সাগর-রুনির হত্যার প্রতিবাদের মধ্য দিয়ে প্রতিধ্বনিত হবে হাজারও নির্যাতিত, নিষ্পেষিত জনতার দুঃখের কথা। আজ কেউ হারিয়ে গেলে তাকে খুঁজে পাওয়া যায় তবে নদীতে হাত-পা বাধা প্রাণশূন্য দেহে। আজ কলেজ ছাত্রের পা হারাতে হয় RAB’এর গুলিতে। মিথ্যে মামলায় নির্যাতন সহ্য করতে হয় কাদেরের মত অসংখ্য কাদেরকে। আজ সরকার আমাদের মুখের খাবার কেড়ে নিয়েছে। ভিনদেশী বুলেটে কেড়ে নিচ্ছে আমাদের প্রাণ। অপরাধীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে বাড়ির আঙিনায়। আজ স্বাধীনতা লজ্জায় মুখ লুকায়। স্বাধীনতা নেই প্রচার মাধ্যমের। আজ তাঁরা দিতে বসেছেন। দুয়ার খুলে দিয়েছেন দাদাদের জন্য আর বিনিময়ে চায় ক্ষমতা।

ব্লগাররা আসছেন ৮ই এপ্রিল। সেখানে যদি কালবৈশাখী হয় তবে টিকতে পারবে এই নির্লজ্জ সরকার?

ব্লগার আবু সুফিয়ান একটি লিস্ট দিয়েছেন কারা কারা ৮ই এপ্রিলের প্রতিবাদে অংশ নিবে সেখানে আমার নাম নেই। তাই সুফিয়ান ভাইকে বলতে চাই আমিও আছি।