ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

ইএমআইএস (EMIS) কি? 
ইএমআইএস হচ্ছে কতগুলো কার্য পদ্ধতি, নিয়ম তন্ত্রের সমস্টি যা শিক্ষা সম্পর্কিত তথ্য সমূহ কে সঠিক, নির্ভুল এবং সময়মত বিভিন্ন স্তরের প্রতিষ্ঠান যেমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সরকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট প্রকাশ করে। উধাহরন স্বরূপ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ তথ্য সুসংগঠিত ভাবে বিন্যস্ত করে সরকার এর সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ ও প্রকাশ করে, এবং সরকার সেই সকল তথ্য বিশ্লেষণ করে বিভিন্ন রকম সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে

ইএমআইএস(EMIS) এর ব্যাবহার সমূহঃ

ইএমআইএস এর ব্যাবহারিক ও প্রায়োগিক দিক সমূহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ, যেখানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ তথ্য সুসংগঠিত ভাবে বিন্যস্ত করে সরকার এর সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ ও প্রকাশ করবে, এবং সরকার সেই সকল তথ্য বিশ্লেষণ করে বিভিন্ন রকম সিদ্ধান্তগ্রহণ করবে। যেমন সরকার এমন একটি প্রকল্প গ্রহন করল যে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামুল্যে ল্যাপটপ বিতরন করবে। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রণয়ন করার জন্য  ইএমআইএস কে ব্যাবহার করা যেতে পারে, যার মাধ্যমে সরকার তথ্য বিশ্লেষণ এর খরচ, অসচ্ছতার ঝুঁকি কমাতে পারে। ইএমআইএস এর  সঠিক রূপে ব্যাবহার এর ফলে তথ্য প্রকাশ এর অধিকারকে, যেমন শিক্ষার্থীদের এবং ভর্তি ইচ্ছুক ছাত্র-ছাত্রীদের তথ্য বিশ্লেষণ এর অধিকার, নিশ্চিত করে।

বর্তমান ইএমআইএস (EMIS) এর সমস্যা সমূহঃ
বর্তমানে যে সকল ইএমআইএস সফটওয়্যার এবং পদ্ধতি ব্যাবহার করা হয় তাদের সমস্যা সমূহ নিম্নরুপঃ

  • তথ্য বিচ্যুতি
  • ঐতিহাসিক তথ্য প্রদানে ব্যার্থতা
  • ব্যাবহ্র্যত পদ্ধতির ত্রুটি নির্নয়ে এবং হালনাগাত করনে ব্যার্থতা
  • নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থাপনায় ত্রুটি
  • নব্য প্রযুক্তি প্রণয়ন এবং সম্পৃক্ততায় ব্যার্থতা
  • কারিগরি জ্ঞান সম্পন্ন দক্ষ জনবল নির্বাচনে ব্যার্থতা

ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার কি?
গণপ্রজাতন্ত্রি বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর দিকনির্দেশনা অনুসরন, বিশ্লেষণ এবং  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের সর্বাধিক সুবিধার কথা বিবেচনা করে ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি ( Information Management System) তৈরির লক্ষে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি প্রযুক্তি সমন্বয়কারী একটি যুগান্তকারী সফটওয়্যার যাহা ই এম আই এস মনিটর (EMIS Monitor) নামে পরিচিত, এবং ক্যাবারনেট ওয়েব সলূশনস (Cabernet Web Solutions) হচ্ছে, ই এম আই এস মনিটর (EMIS Monitor) এর বাংলাদেশের একমাত্র বাস্তবায়ন অংশীদার(Implementation Partner)। ই এম আই এস মনিটর (EMIS Monitor or Education Mangement Information System Monitor) হচ্ছে একটি ওয়েব ও ইন্টারনেট ভিত্তিক সফটওয়্যার যাহা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ কে ত্রিমুখী সুবিধা দেবে, প্রথমত তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি(Information Management System) বাস্তবায়ন, দ্বিতীয়ত ডাইনামিক ওয়েবসাইট তৈরি এবং তৃতীয়ত  এমআইএস মনিটর এপিআই সংযুক্ত করন।

ইএমআইএস মনিটর তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি কি?
তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি(Information Management System) যাহা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের আয় ব্যয় এর হিসাব, শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারীও শিক্ষার্থী সম্পর্কিত ব্যাক্তিগত ও গোপনীয় তথ্য সমুহ সংরক্ষন, বিশ্লেষণ এবং প্রতিবেদন তৈরি করবে, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, কর্মকর্তা-কর্মচারীও শিক্ষার্থীদের আলাদা প্রবেশদ্বার (Portal) থাকবে যেখানে ব্যাবহারকারী, ব্যাবহারকারীর নাম (Username) ও জৈব সংকেত (Biometric Password)  বা প্রবেশমন্ত্র (Password) দ্বারা প্রবেশ করতে পারবে এবং দ্রুত ও নির্ভুল ভাবে প্রয়োজনীয় কার্য সমাধা করতে পারবে, যার মধ্যে সম্পূর্ণ হিসাব পদ্ধতি, শিক্ষার্থী্দের বেতন জমা করন, উপস্থিতি নির্নয়, আভ্যান্তরিন পরিক্ষার ফলাফল তৈরি, সময়সূচী তৈরি, প্রশংসাপত্র তৈরি, বদলি পত্র তৈরি, জরুরী বিজ্ঞপ্তি ঘোষণা, শিক্ষার্থী্ সম্পর্কিত সকল ধরনের প্রতিবেদন তৈরি, এবং প্রাসঙ্গিক সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত প্রশাসনিক কার্যবলী আন্যতম।

ইএমআইএস মনিটর ওয়েবসাইট কি?

তথ্য প্রকাশ তথা ডাইনামিক ওয়েবসাইট যেখানে বিভিন্ন রকম অ-গোপনীয় তথ্য সমুহ প্রকাশ করা হবে যেমন, ছবি, প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি ও ইতিহাস, শিক্ষার্থীদের তথ্য, শিক্ষকদের তথ্য, ভুমির তফসিল, ভুমির মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য, ভবন, কক্ষ সংখ্যা, বিভিন্ন শ্রেণিতে ছাত্র-ছাত্রীর আসন সংখ্যা, যানবাহন ও অন্যান্য সুবিধার তথ্যাদি, মাল্টিমিডিয়া শ্রেণীকক্ষ ও কম্পিউটার  পরীক্ষাগার সংক্রান্ত তথ্য,  কম্পিউটার বাব্যহার সংক্রান্ত তথ্য, পরিচ্ছন্নতা, শরীরচর্চা ও স্যানিটেশন সংক্রান্ত তথ্য, পঠিত বিষয়, বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্পর্কে তথ্য, স্মরণিকা, অনুমোদিত ও পূরণকৃত পদের তথ্য, বিগত তিন বছরের পাবলিক পরিক্ষার ফলাফল সংক্রান্ত তথ্য, ম্যানেজিং কমিটি/গভর্নিং বডির তথ্য, প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত আইন, বিধি, নিতিমালা, বিজ্ঞপ্তি, খেলার মাঠ সংক্রান্ত তথ্য, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রম এবং বিভিন্ন সফলতার তথ্য ও ছবি।

ইএমআইএস মনিটর এপিআই কি?

ই এম আই এস মনিটর এপিআই(EMIS Monitor API) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অ-গোপনীয় তথ্য সমূহের তালিকা প্রস্তুতকরন সহ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রস্তুত করবে এবং সেই তথ্য সমূহ ই এম আই এস মনিটর(EMIS Monitor) এর কেন্দ্রীয় তথ্য ভান্ডারে স্থানান্তরিত করবে। ই এম আই এস মনিটর(EMIS Monitor) এর ওয়েবসাইটে সেই তথ্য সমূহ বৈশ্লেষিক প্রতিবেদন (Analytic Report) আকারে প্রকাশ হবে, যা পরবর্তী কালে বিভিন্ন প্রকার জরিপ, আদমশুমারি,  পরিসংখ্যান এবং বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বা সাহায্যকারী সংস্থার শিক্ষা বিষয়ক বিশ্লেষণ, গবেষণা ও অনুসন্ধান তৈরিতে ব্যাবহার করা হবে। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আকাঙ্ক্ষা করলে ই এম আই এস মনিটর এ পি আই (EMIS Monitor API) এর কার্যক্রম নিয়ন্ত্রন এবং কেন্দ্রীয় তথ্য ভান্ডারে তথ্য স্থানান্তরিতকরন রোধ করতে পারবে।

ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার এর অন্যান্য বিশেষ বৈশিষ্ট সমূহঃ 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্পূর্ণ ডাইনামিক ওয়েব সাইট,

  • বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষার্থীদের, শিক্ষক ও ৩য়-৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের ছবিসহ ডাটাবেস
  • মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ফিস গ্রহন করার সুবিধা
  • প্রতিষ্ঠানের সকল অভ্যন্তরীণ পরীক্ষার ফলাফল তৈরি ও অনলাইনে ডাউনলোডের সুবিধা ।
  • ছাড়পত্র, প্রশংসাপত্র, প্রত্যয়ন পত্র, টটলিস্ট ইত্যাদি তৈরির সুব্যবস্থা ।
  • শিক্ষক ও কর্মচারীদের সৃষ্টপদ, কর্মরত জনবল ও শূন্যপদের তথ্য ।
  • নোটিশবোর্ড স্ক্রলসহ প্রতিষ্ঠানের সর্বশেষ সংবাদ, ক্লাস রুটিন, পাঠক্রম, সহশিক্ষাক্রমিক কার্যাবলীর সুব্যবস্থাপনা ।
  • পাবলিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা ভিত্তিক কর্ণার, শিক্ষক কর্ণার, শিক্ষার্থী কর্ণার, অভিভাবক কর্নার এর সুব্যবস্থা ।
  • বিভিন্ন প্রকার কন্টেন্ট ডাউনলোড কর্নার এর সুব্যবস্থা ।
  • কার্যনির্বাহী পর্ষদ/একাডেমিক কাউন্সিলের পরিচিতি, ওয়েবসাইটে অনলাইন ভিজিটর ও মোট ভিজিটর কাউন্টার
  • অনলাইনে ভর্তি পরিক্ষা ব্যবস্থাপনা ও শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্র্রম অনলাইনে পরিচালনা করার সুব্যবস্থা ।
  • অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের নিকট এসএমএস নোটিফিকেশন প্রেরন করার সুব্যবস্থা ।
  • শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের প্রাত্যহিক হাজিরা তথ্য প্রদানের সুব্যবস্থা ।
  • শিক্ষক/কর্মচারীদের ছুটি ব্যবস্থাপনা, স্যালারি সিট তৈরী ও প্রতিষ্ঠানের একাউন্টস ব্যবস্থাপনা করার সুব্যবস্থা ।
  • প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস, ভৌত অবকাঠামো, মাস্টারপ্লান, একাডেমিক ক্যালেন্ডার,ছুটির তালিকা ও ক্লাস রুটিনের ব্যবস্থা ।
  • প্রয়োজনীয় ও গুরুতবপূর্ণ ওয়েবসাইটের লিংকের ব্যবস্থা ।
  • ফটো গ্যালারী, প্রতিষ্ঠান প্রধানের বানী, প্রতিষ্ঠান প্রধানকে ই-মেইল করার অপশন ও যোগাযোগের ঠিকানা ।
  • কৃতি শিক্ষার্থীদের তথ্য, প্রাক্তন প্রতিষ্টান প্রধানগনের তথ্যাবলি ও প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পাবলিক পরিক্ষার ফলাফল ।
  • ওয়েবসাইট কন্ট্রোল প্যানেল দিয়ে সহজেই সব কিছু নিয়ন্ত্রনের সুব্যবস্থাপনা ।

ইএমআইএস মনিটর কিভাবে ব্যাবহার করতে হয়? 
ইএমআইএস মনিটর সফটওয়ার ব্যাবহার করার জন্য বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নাই। যে কোন সাধারন ইন্টারনেট ব্যাবহারকারী তার কম্পিউটার, মোবাইল, বা ট্যাব থেকে এই সফটওয়্যার ব্যাবহার করতে পারবে, এর জন্য প্রয়োজন হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হইতে সফটওয়্যার ব্যাবহার এর অনুমোদন, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, কর্মকর্তা-কর্মচারীও শিক্ষার্থীদের আলাদা প্রবেশদ্বার (Portal) থাকবে যেখানে ব্যাবহারকারী, ব্যাবহারকারীর নাম (Username) ও জৈব সংকেত (Biometric Password)  বা প্রবেশমন্ত্র (Password) দ্বারা প্রবেশ করতে পারবে এবং দ্রুত ও নির্ভুল ভাবে প্রয়োজনীয় কার্য সমাধা করিতে পারিবে। আমাদের বিশেষজ্ঞগণ ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার কিভাবে ব্যাবহার করতে হয় এর উপর বিস্তারিত পুস্তিকা প্রস্তুত করছে, যাহা খুব শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে।  

কে বা কাহারা ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার তৈরী করতে সহযোগিতা করিতেছে?
ই এম এই এস মনিটর সফটওয়্যার হচ্ছে একটি বানিজ্যিক প্রকল্প, এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য   জাতিসঙ্ঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান এবং সাংস্কৃতি সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানের (UNESCO) শিক্ষা সম্পর্কিত ভবিষ্যত ধ্যান-ধারনা ও পরিকল্পনা ব্যাবহার করা হয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অর্থনৈতিক এবং প্রযুক্তিগত সহযোগিতা করিতেছে আরত ট্রেডিং হাউস লিমিটেড, ইউ কে।

ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার এর মূল্য কত?

প্রতি ডোমেইনের জন্য ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যারের মূল্য এককালীন পঞ্চাশ হাজার বাংলাদেশি টাকা, এর অর্থ একটি ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যারের অনুজ্ঞাপত্র কেবল মাত্র একটি ডোমেইন সমর্থন করে। এর সঙ্গে বাস্তবায়ন খরচ যেমন বাত্সরিক ডোমেইন নিবন্ধন বা নবায়ন এবং হোস্টিং খরচ যোগ হবে। ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার ক্রয় করিলে এর সঙ্গে বিনা মুল্যে অনলাইন প্রশিক্ষণ এবং প্রথমিক তথ্য আপলোড করা হবে।

ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার ক্রয় করার জন্য কি করিতে হবে?
ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার ক্রয় করার জন্য প্রথমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কে ক্যাবারনেট ওয়েব সলূশনস (Cabernet Web Solutions) এর নির্দিষ্ট ফর্ম পূরণ করে বাস্তবায়ন এর আবেদন করতে হবে। এর পর ক্যাবারনেট ওয়েব সলূশনস (Cabernet Web Solutions) এর বিশেষজ্ঞগন আবেদনপত্র বিশ্লেষণ করে যদি  সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার বাস্তবায়ন সম্ভব হয় তবে ক্যাবারনেট ওয়েব সলূশনস পরবর্তী ধাপে চুক্তি পত্র, ডোমেইন নিবন্ধন এর আবেদন এবং প্রয়োজনীয় তাথ্যাদি ইমেইল অথবা পত্র মারফত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অবহিত করবে। এর পর চুক্তি সাক্ষর সম্পন্ন হলে ক্যাবারনেট ওয়েব সলূশনস (Cabernet Web Solutions),  চুক্তি সাক্ষর এর পরবর্তী তিন মাসের মধ্যে ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার বাস্তবায়ন করবে।

ইএমআইএস মনিটর হোস্ট করার জন্য কি ধরনের সার্ভার প্রয়োজন?
ইএমআইএস মনিটর হোস্ট করার জন্য সাধারন লোকাল সার্ভার, ক্লাউড সার্ভার, অথবা শেয়ারড সার্ভার এর সহিত নিম্নোক্ত বিশিষ্ট সমূহ থাকতে হবে

  • Linux Server with PHP: 5.5 or higher,
  • MySQL: 5.6 or higher,
  • Apache: 2.4 or higher,
  • OpenSSL PHP Extension,
  • PDO PHP Extension,
  • Mbstring PHP Extension,
  • Tokenizer PHP Extension,
  • MySQL,
  • PHPMyadmin,
  • SSH Connectivity,
  • Git

ইএমআইএস মনিটর এর ব্যাবহারকারীর ন্যূনতম যোগ্যতা সমূহঃ

ইএমআইএস মনিটর এর ব্যাবহার করার জন্য ব্যাবহারকারীকে অবশ্যই ইন্টারনেট ব্যাবহার করার সাধারন নিয়মাবলী জানতে হবে, প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত আইন, বিধি, নিতিমালা সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে।শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক কাজ এবং শিক্ষক- শিক্ষিকার বিশেষ ধরনের কাজের জন্য সেই কাজ যেমন সম্পূর্ণ হিসাব পদ্ধতি,শিক্ষার্থী্দের বেতন জমা করন, উপস্থিতি নির্নয়, আভ্যান্তরিন পরিক্ষার ফলাফল তৈরি, সময়সূচী তৈরি, প্রশংসাপত্র তৈরি, বদলি পত্র তৈরি, জরুরী বিজ্ঞপ্তি ঘোষণা, শিক্ষার্থী্ সম্পর্কিত সকল ধরনের প্রতিবেদন তৈরি, এবং প্রাসঙ্গিক সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত প্রশাসনিক কার্যবলী  সম্পর্কে ব্যাপক ধারণা থাকতে হবে।

ইএমআইএস মনিটর এর ব্যাবহার কারীর কম্পিউটার এর ন্যূনতম যোগ্যতা সমূহঃ

যে কোন ধরনের কম্পিউটার, মোবাইল, বা ট্যাব এবং ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে এই সফটওয়্যার ব্যাবহার করতে পারবে, তবে আধুনিক এবং সংশোধিত সংস্করণের কম্পিউটার এবং ওয়েব ব্রাউজার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য হবে।

একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি তৈরি করতে কি পরিমান অর্থের প্রয়োজন?

একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি  তৈরি করতে কি পরিমান অর্থের প্রয়োজন এটা নির্ভর করবে প্রতিষ্ঠানের আকার,  শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারীও শিক্ষার্থীদের সংখ্যা এবং ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতির কি কি বিশেষ বৈশিষ্ট গ্রহন করবে তার উপর। তবে সাধারন ভাবে প্রতি ডোমেইনের জন্য ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি তৈরি করতে এককালীন পঞ্চাশ হাজার টাকা থেকে দুই লক্ষা টাকা পর্যন্ত হতে পারে, এর সঙ্গে বাস্তবায়ন খরচ যেমন ডোমেইন নিবন্ধন বা নবায়ন এবং হোস্টিং খরচ যোগ হবে যাহা বাত্সরিক ছয় হা্জার টাকা থেকে বিশ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

(.edu.bd) ডোমেইন কোথায় এবং কিভাবে নিবন্ধন করতে হবে?

(.edu.bd) ডোমেইন  নিবন্ধন এর জন্য BTCL এর নির্ধারিত আবেদন পত্র পূরণ করে প্রয়োজনীয় অর্থ পরিশোধ করলে আপনার ডোমেইন নিবন্ধন হবে।

(.edu.bd) ডোমেইন নিবন্ধন করা কি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য বাধ্যতামুলক?

(.edu.bd) ডোমেইন নিবন্ধন করা কি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য বাধ্যতামুলক? গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি সংশ্লিষ্ট পরিপত্র অনুযায়ী বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওয়েব সাইট অবশ্যই (.edu.bd) ডোমেইনের অধীনে নিবন্ধন করা উচিত।

ইএমআইএস মনিটর এপিআই এর বাবহারিক এবং প্রয়োগিক দিক সমূহঃ

ই এম আই এস মনিটর এপিআই(EMIS Monitor API) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অ-গোপনীয় তথ্য সমুহের তালিকা প্রস্তুতকরন সহ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রস্তুত করবে এবং সেই তথ্য সমূহ ই এম আই এস মনিটর(EMIS Monitor) এর কেন্দ্রীয় তথ্য ভান্ডারে স্থানান্তরিত করবে। ই এম আই এস মনিটর(EMIS Monitor) এর ওয়েবসাইটে সেই তথ্য সমূহ বৈশ্লেষিক প্রতিবেদন (Analytic Report) আকারে প্রকাশ হবে, যা পরবর্তী কালে বিভিন্ন প্রকার জরিপ, আদমশুমারি,  পরিসংখ্যান এবং বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বা সাহায্যকারী সংস্থার শিক্ষা বিষয়ক বিশ্লেষণ, গবেষণা ও অনুসন্ধান তৈরিতে ব্যাবহার করা হবে। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আকাঙ্ক্ষা করলে ই এম আই এস মনিটর এ পি আই (EMIS Monitor API) এর কার্যক্রম নিয়ন্ত্রন এবং কেন্দ্রীয় তথ্য ভান্ডারে তথ্য স্থানান্তরিতকরন রোধ করতে পারবে।

ইএমআইএস মনিটর এর অসুবিধাজনক দিক সমূহঃ
ইএমআইএস মনিটর এর প্রধান অসুবিধা হচ্ছে এটি একটি ইন্টারনেট নির্ভর সফটওয়্যার এবং ইন্টারনেট ছাড়া এর কোন কার্যকারিতা নেই উদাহরন সরুপ, আমরা একটি গাড়ি কেনার কথা চিন্তা করতে পারি যেখানে কোন সরক বা রাস্তা নাই, সেই গাড়িটি যতই উন্নতমানেরই হউক না কেন, উহার কোন ব্যাবহারিক মুল্য নাই।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের ডাইনামিক ওয়েবসাইট তৈরি নিয়ে প্রতারনাঃ
ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার বাস্তবায়নে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়, সকল সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ, সকল মাদ্রাসা, শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বানিজ্যিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এর অধিনে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের জন্য ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি তৈরি, সংরক্ষন ও প্রকাশ করে ওয়েবসাইটের ঠিকানা শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে আবহিত করতে নির্দেশ প্রদান করিয়াছে।  কিন্ত বর্তমানে লক্ষ করা যাইতেছে যে কিছু অসাধু সফটওয়্যার ও ওয়েবসাইট প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অল্প পরিমান অর্থের বিনিময়ে অতি সাধারন তথ্য বিশিষ্ট স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট প্রস্তুত করিতেছে যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর এর পরিপত্রের ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি( Information Management System) সম্পর্কিত দিকনির্দেশনা অনুসরন করে না। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার প্রযুক্তি বিষয়ক বিশেষজ্ঞ না থাকার ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ অসাধু সফটওয়্যার ও ওয়েবসাইট প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এর ত্রুটি যুক্ত ওয়েবসাইট প্রস্তুত এর মাধ্যমে বিভ্রান্ত এবং প্রতারিত হচ্ছে। এই সকল কারনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের নিকট অনুরোধ রইল যেন, অনুগ্রহ করিয়া একজন সফটওয়্যার প্রযুক্তি বিষয়ক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ এবং সাহায্য নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর পরিপত্রের ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি( Information Management System) সম্পর্কিত দিকনির্দেশনা অনুসরন করে ওয়েব সাইট তৈরি করার ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্তে উপনীত হবেন।

জাতিসঙ্ঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান এবং সাংস্কৃতি সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানের (UNESCO) শিক্ষা সম্পর্কিত ভবিষ্যত ধ্যান-ধারনা ও পরিকল্পনা ব্যাবহার করে এবং গণপ্রজাতন্ত্রি বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর দিকনির্দেশনা অনুসরন, বিশ্লেষণ এবং  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের সর্বাধিক সুবিধার কথা বিবেচনা করে ডাইনামিক ওয়েবসাইট এবং তথ্য ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতি তৈরি করা হয়েছে যাহা বাংলাদেশের পঞ্চাশটিরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দেশের একমাত্র ইউজার ফ্রেন্ডলি আমাদের এই ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার ব্যবহার এবং বাস্তবায়ন করার জন্য আগ্রহী হয়েছে । তাই আর দেরী না করে ইএমআইএস মনিটর সফটওয়্যার ব্যাবহার করার মাধ্যমে  আমাদের সেবা গ্রহন করে আজই আপনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কে গড়ে তুলুন ডিজিটাল, আধুনিক ও ওয়েব নির্ভর।

EMIS Monitor সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অনুগ্রহ করে দর্শন করুন www.emis-monitor.com এবং বাংলাদেশে আমাদের প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন সেবা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অনুগ্রহ করে দর্শন করুন www.cabernetws.com

EMIS Monitor Product Data Sheet ডাউনলোড করুন