ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, সাংবাদিকতা কোনো পেশা না, এটা ভালোবাসা। আগামীতে যারা সাংবাদিকতাকে গ্রহণ করবে, তাদের এখন থেকেই এই পেশাকে ভালোবাসতে হবে।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ জার্নালিজম স্টুডেন্টস কাউন্সিল(বিজেএসসি) আয়োজিত সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘এই পেশায় অনেক ঝুঁকি আছে। জীবনের ঝুঁকি তো আছেই। চাকুরীর নিশ্চয়তার ঝুঁকিও আছে। নানা ধরনের বাঁধা বিপত্তি আছে। কিন্তু সেগুলো হাসি-মুখে গ্রহণ করতে হবে এই কারণে যে,আমি জীবনে সত্য প্রকাশ করতে চাই। সত্যের উপরই সবকিছু প্রতিষ্ঠিত।’

সভ্যতা এখন পর্যন্ত এগিয়ে আসার পিছনে মূল শক্তি হলো সত্য এই কথা জানিয়ে আরেফিন সিদ্দিক বলেন, সত্যকে ধারণ করেই এগিয়ে যেতে হবে। একাত্তরে সাংবাদিকরা হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছে,পরবর্তী বিভিন্ন সময়েও বহু সাংবাদিক হত্যার শিকার হয়েছে। সাম্প্রতিককালেও সাংবাদিকরা হত্যা,নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন। এর পিছনে কারণ একটাই- সত্য প্রকাশ করা। সত্য কথাটা তুলে ধরা। এটিই তাদের অপরাধ। শুধু এটি বাংলাদেশে নয়,সারা পৃথিবীতেই এই একই ঘটনা ঘটে চলেছে। সেই ধরনের একটি ঝুঁকিপূর্ণ কাজ সাংবাদিকতা। আর সেই বিষয়েই তোমরা লেখাপড়া করতে এসেছো।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিকতা বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘কে তোমরা পরবর্তীতে সাংবাদিকতায় যাবে আর কে অন্য পেশায় যাবে। নানা পেশা তোমাদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। কিন্তু এই যে তুমি ভর্তি হয়েছো সাংবাদিকতা বিভাগে এজন্য তোমাদের আমি অভিনন্দন জানাই।’ ‘তোমরা সাহস করেছো সত্যের সাথে থাকবে। এই যে তোমাদের ইচ্ছা। সত্যের সাথে থাকার। এটি একটি বড় কাজ। এবং আমি আশা করবো তোমরা প্রত্যেকে যে যে বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা বিভাগে ভর্তি হয়েছো সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে কৃতিত্বের সাথে ডিগ্রি নিয়ে বেরিয়ে যাবে। এবং এই বেরিয়ে যাওয়ার জন্য আগামী ৪ থেকে ৫ বছর তোমরা যে প্রস্তুতি নিবে। এর মূল প্রস্তুতি হবে সত্য নিষ্ঠ থাকার।’

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক আরো বলেন, ‘অনেক প্রলোভন থাকবে,অনেক ঝুঁকি থাকবে। কিন্তু তারপরেও নিজেকে সত্যের পথে রাখতে হবে। এই ট্রেনিংটা লাগবে। সত্যের প্রশিক্ষণ। এবং এই প্রশিক্ষণ যার যতো ভালো হবে পরবর্তী জীবনে তুমি সাংবাতিকতায় যাও,সেখানেও ভালো করবে। এতে কোন সন্দেহ নাই। অন্য আর যেকোন পেশাতে গেলে সেখানেও তুমি ভালো করবে।কারণ সত্যের জয় সর্বোত্ত।তুমি সত্য নিয়ে যদি থাকো,তুমি জয় যুক্ত হবেই।’

বিজেএসসি’র সভাপতি সনজিৎ সরকার উজ্জ্বল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সিনিয়র সচিব আবু আলম মো. শহিদ খান,ঢাবি’র সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. মফিজুর রহমান,জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবির,সাংবাদিক বরুণ ভৌমিক নয়ন প্রমূখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিজেএসসি’র সাধারণ সম্পাদক ইমরান আহমেদ।

অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগে অধ্যয়নরত প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।