ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস, ফিচার পোস্ট আর্কাইভ

 

ছাদ খসে দুর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের শহীদ ডা. ফজলে রাব্বি হলের শতাধিক শিক্ষার্থী। এ হলের চতুর্থ তলাসহ ভবনের বিভিন্ন স্থানে ছাদের পলেস্তারা দীর্ঘদিন ধরেই খসে পড়ছে। পলেস্তারা খসে পড়ে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। যেকোনো সময় ছাদ ধসে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমনটাই আশঙ্কা করছেন হলের আবাসিক ছাত্ররা।

এই শঙ্কার কথা হল কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার জানালেও কোন সাড়া মিলেনি। তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন, হল সংস্কারের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, হলের চতুর্থ তলার প্রায় প্রতিটি রুমেরই ছাদের বেহাল অবস্থা। ছাদের পলেস্তরা খসে পড়ছে। ছাদের রড বের হয়ে গেছে। কয়েকটি রুমে দেখা যায়, ছাদ থেকে খসে পড়া পলেস্তারার আঘাত থেকে রক্ষা পেতে শিক্ষার্থীরা পলিথিন দিয়ে ঢেকে রেখেছে ছাদ। এই ঝুঁকির মধ্যেই সেখানে বসবাস করছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের  শিক্ষার্থীরা।
কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, বেশ কয়েক বছর ধরে ছাদ থেকে ছোট ছোট টুকরা পলেস্তারা খসে পড়ার ঘটনা ঘটলেও সাম্প্রতিক সময়ে বড় বড় টুকরা খসে পড়ছে। ঘুমের মধ্যেও পলেস্তারার টুকরা শরীরের উপর পড়ে। এজন্য ঠিকমতো ঘুমাতেও পারেন না তারা। সার্বক্ষণিক দুশ্চিন্তায় থাকতে হয়।

শিক্ষার্থী তাইবুর মাসুদ এ্যালবার্ট  বলেন, “ঢাকা মেডিকেল কলেজে পড়ার স্বপ্ন অনেকেরই থাকে। এখানে পড়ার সুযোগ পায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের সেরা ২০০ জন। সে কলেজের ছাত্রদের একমাত্র হলের এই অবস্থা। সব সময় আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়।

“ছোট একটা ভূমিকম্পেই বড় ধরনের ট্রাজেডি ঘটে যেতে পারে এখানে। আমরা চাই দ্রুত উদ্যোগ নিয়ে হল সংস্কার অথবা নতুন হল নির্মাণ করা হোক।”

 

 

হৃদয় খান নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন,  “হল দ্রুত সংস্কার করলে আমাদের ভিতর যে এক ধরনের আতঙ্ক কাজ করছে সেটা কেটে যাবে। আমরা নিশ্চিন্তে পড়ালেখা করতে পারবো। ছাদ ধসে পড়ার আতঙ্কে ঠিক মতো ঘুমাতেও পারি না। এই আতঙ্ক আমাদের পড়ালেখায় বেঘাত ঘটাচ্ছে।”

প্রায় একই রকম কথা জানিয়ে আরও কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, জগন্নাথ হলের একটি আবাসিক ভবনের ছাদ ধসে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটেছিল ১৯৮৫ সালে। সেই জগন্নাথ হলের অবস্থার মতো এই হলের বর্তমান অবস্থা। কখন কী ঘটবে বলা যাবে না। যত দ্রুত সংস্কার হয় ততই মঙ্গল তাদের জন্য।

 


এবিষয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক খান আবুল কালাম আজাদ বলেন,  “কিছু কিছু সত্যিই বসবাসের অযোগ্য। ঢাকা মেডিকেল কলেজ সংস্কার ও সুরক্ষা কমিটি হল সংস্কারের জন্য কাজ শুরু করে দিয়েছে। বসবাসের অযোগ্য রুমগুলো থেকে অতি শীঘ্রই শিক্ষার্থীদের সরিয়ে নিরাপদ রুমে স্থানান্তর করা হবে। ”

১৯৮৫ সালের ১৫ অক্টোবর প্রাচীন জগন্নাথ হলের একটি আবাসিক ভবনের ছাদ ধ্বসে পড়লে সংঘটিত হয় মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। এতে প্রাণ হারায় ৩৯ জন ছাত্র, কর্মচারী ও অতিথি।