ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলে যখন চলছে সাপ তত্ব, তখন দেশে চলছে পাঁঠা তত্ব! কে সাপ আর কে সাপুড়ে? কে কালনাগ আর কে কালনাগীনি? কাঁদা ছোড়াছুড়ির এ মজার রাজনৈতিক আইটেমের তোড়ে কখনো কখনো পত্রিকায় জায়গা করে নিচ্ছে পাঁঠা কিম্বা দলবদ্ধ পাঠাদের বোঁ বোঁ আওয়াজের বিভৎস কার্টপিস!
আমি দেখছিলাম- এ কাটপিস নিয়ে মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের রিপোর্ট-
“২০১২ সালে বাংলাদেশে ধর্ষিত হয়েছে ৭৭১ জন নারী ও শিশু! যার মধ্যে ১৫৭ জন গনধর্ষনের শিকার হয়েছে! ধর্ষনের পর ১০৬ জনকে হত্যা করা হয়, আর ধর্ষণের অপবাদ নিয়ে আত্মহত্যা করে ২৩০ জন!”

আমি সন্দেহের চোখে বারবার সালটা চেক করছিলাম!! এটাকি ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ নাকি খ্রিস্টপূর্ব ২০১৩? এটা কি উৎকর্ষ বিবর্তন, নাকি মানব সভ্যতার অসভ্য অধ:পতন?

আমি ভাবছিলাম, আওয়ামীলীগ না হয় বিশ্বাস হারানো এক কালসাপ! পুলিশ যাদের বিষ, আইনের ফাঁক ফোকর যাদের বিষ দাত! যাদের উৎপাত শেয়ার বাজার, শিক্ষাঙ্গন, পদ্মা সেতু, কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ এ……।

বিএনপি না হয়, বিষধর সাপ মাথায় নিয়ে বিপদজনক খেলায় মেতে ওঠা এক সাপুড়ে! যাদের ঝাঁপিতে আছে যুদ্ধাপরাধি কালনাগ, আর অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করার জন্য কিছু আলাদ সাপ!

কিন্তু যারা মেয়ে দেখলেই পাঠার মতো ছুটে যাচ্ছে বোঁ বোঁ করে- কারো মা, কারো বোন, কারো কন্যাকে মাংসপিন্ড জ্ঞানে খাচ্ছে চুষে, চাবিয়ে…তারা কারা???

তারা তো আমারই ভাই, আমারই সন্তান, আমারই প্রতিবেশী কিম্বা আমি নিজেই!!!

তাই দোষারোপ আর নষ্ট রাজনীতির ওপর দায় চাপানো মানষিকতা আপাতত থামিয়ে, সভ্যতার লড়াই শুরু করতে হবে নিজের ভেতর থেকেই। লড়াই করতে হবে নিজের পরিবার থেকে, সমাজ থেকে…..যেখানেই অসভ্যতা প্রতিরোধ সৃষ্টি করতে হবে সেখান থেকেই, অন্যায়কে বয়কট করতে হবে সামাজিক ভাবে…….এটা মানব সভ্যতার প্রতি আমাদের দায়। নিজেদের নিরাপত্তার জন্য এ আমাদের অবশ্য করনীয়।
আজ অন্যের বোনের চিৎকারে আমাদের নিরবতা কাল আমার বোনের চিৎকারে সবাইকে নিরব করে দেবে! আজ দৌপদির বস্ত্র হরনে মজা লোটা পাঠককূলকে নিজের মেয়ের দৌপদি পরিনতি দেখতে হবে! ২০১২’র ৭৭১ হয়তো ২০১৩ তে ৭৭১..৭৭২..৭৭৩ এর ক্রমবৃদ্ধির কোন একটি সংখ্যা বরাদ্ধ করবে আমারই বোন, কন্যা কিম্বা স্বজনের জন্য……………..

আমি সকলকে ২০১৩ সালের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি, সঙ্গে এটাও জানাচ্ছি-

“সভ্যতা কখনো ক্যালেন্ডারের পাতায় আসে না, আসে মানবিক সমাজে”।

আর সে সমাজের জন্যই আমাদের লড়তে হবে…….