ক্যাটেগরিঃ প্রযুক্তি কথা

 

আমরা অনেকেই ওপেন সোর্স আন্দোনল অথবা GNU অথবা উবুন্টু লিনাক্সের নাম জানি। কিন্তু কারা এর পেছনে ছিলেন, আছেন বা কাদের জন্যই আজকে আমরা ওপেন সোর্স আন্দোলন বা উবুন্টু লিনাক্স নিয়ে লাফালাফি করি তা অনেকেই জানি না। সে সকল মানুষের জীবনী নিয়ে আমার এই লেখা। এখন যার সম্পর্কে বলব তিনি আর কেউ নন খোদ ওপেন সোর্স আন্দোলনের প্রবর্তক রিচার্ড স্টলম্যান।

আসুন তার সম্পর্কে কিছু জানি

নাম : রিচার্ড স্টলম্যান
জন্ম : ১৬ই মার্চ, ১৯৫৩
পেশা : একজন সফটওয়্যার ফ্রিডম আল্দোলনকারী এবং কম্পিউটার পোগ্রামার।

এই তার ব্যক্তিগত জীবন। তার কর্ম জীবন শুরু হয় ফরটন ল্যাংগুয়েজে একটি নিউমেরিকাল এনালাইসিস পোগ্রাম রচনা করার মাধ্যমে। যা তিনি কিছু সপ্তাহেই শেষ করে ফেলেন। ১৯৭১ সালে তিনি MIT Artificial Intelligence Laboratory ল্যাবে পোগ্রামার হিসাবে নিয়োগ পান। এমআইটি ল্যাবরেটরিতে হ্যাকার হিসাবে কর্মরত থাকা অবস্থ্যায় যখন Laboratory for Computer Science এ পাসওয়ার্ড সিস্টেম বসান হয় তখন তিনি এই পাসওয়ার্ড ভেঙ্গে ফেলার উপায় বের করে ফেলেন।

১৯৭০ এবখ ১৯৮০ সালের দিকে প্রপাইটরি সফটওয়্যার এর প্রচনল শুরু হয়, যখন সফটওয়্যার কম্পানিগুলো সফটওয়্যারের সাথে তার কোড দেওয়া বন্ধ করে দেয়। এমনই একটি সমস্যায় পরেছিলেন সে সমনে রিচার্ড স্টলম্যান। তাদের ল্যাবে বসান নতুন প্রিন্টারে প্রিন্টিং জনিত সমস্যার জন্য তিনি প্রিন্টার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট সফটওয়্যারের সোর্স চাইলে তারা দেয় না। এ থেকে শুরু হয় মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন এর চিন্তা, যেখানে সফটওয়্যারের মুল্য নয়, তার কোডটি সবার জন্য উন্মুক্ত করার চিন্তা আসে।

GNU আন্দোলন এবং রিচার্ড স্টলম্যান
১৯৮৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রিচার্ড স্টলম্যান GNU প্রজেক্ট এর ঘোষোণা দেন, এবং ১৯৮৪ সালে তিনি এমআইটি ল্যাবের চাকরি ছেড়ে GNU প্রজেক্টে তার সকল সময় ব্যয় করা শুরু করেন। কথায় আছে সুখে থাকলে ভুতে কিলায়, তাই মনে হচ্ছিল তখন অনেকের মধ্যে। এত ভাল একটি চাকরি ছেড়ে দিয়ে কি ওপেন সোর্স আন্দোলন এবং GNU প্রজেক্ট চালু করলে আমজনতা এমনই চিন্তা করবে। ১৯৮৫ সালে স্টলম্যান GNU মেনিফেস্টো প্রকাশ করেন, যেখানে একটি ওপেন সোর্স ওপারেটিং সিস্টেম তৈরি করার কথা বলা হয়। যা হবে Unix নামক অপারেটিং সিস্টেম এর সমতুল্য। কিছু দিন পরেই তিনি “ফ্রি সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন”
নামে একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। একটি ওপারেটিং সিস্টেম এর প্রান হল কার্নেল, তাই একটি ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেমের জন্য প্রয়োজন একটি ওপেন সোর্স কার্নেল। তিনি কার্লেন লিখতে বসলেন, কিন্তু কার্নেল লিখতে প্রয়োজন একটি পোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ। কিন্তু তখন কোন ওপেন সোর্স পোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ ছিল না, তাই তিনি একটি ওপেন সোর্স পোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ লিখতে বসেন যা আমরা GCC বা GNU C Compiler নামে জানি। এটি সম্পন্ন হলে পৃথীবির অনেক পোগ্রামাররাই এটি ব্যবহার করে বিভিন্ন পোগ্রাম লেখা শুরু করেন এবং তা অনেকের কাছেই গ্রহনযোগ্য হয়।

এর মাঝে স্টলম্যান কপি লেফট এর ধারনা নিয়ে আসেন, যা একটি ফ্রি সফটওয়্যারের সম্পাদনা এবং পুনরায় বিতরনের লাইসেন্স এর কাজে ব্যবহার করা হয়। যা পরে বিভিন্ন লাইসেন্স এগ্রিমেন্ট এর রূপ নেয়, যেমন GLP,LGPL ইত্যাদি।

সূত্র
পরিশেষে
আমার লেখাটি পড়ে অনেকেই চিন্তা করছেন আমি কেন এই মহান ব্যক্তিকে উন্মাদ বলছি। চিন্তা করে দেখেন কি দরকার ছিল তার এমআইটি ল্যাবের সেই চাকরি টি ছেড়ে দিয়ে মানবতার জন্য কাজ করার। তিনি যদি আজকে সেই চাকরি টি করতেন তাহলে পৃথীবির ধনী ব্যক্তিদের একজন হতেন। তার কি দরকার ছিল মানবতার জন্য কাজ করার, একটু চিন্তা করে দেখুন। সেই ব্যক্তিটি যদি সেইদিন ওপেন সোর্স আন্দোলন শুরু না করতেন তাহলে হয়ত আমরা Mozilla বা VLC মতন কোন প্রতিষ্ঠান পেতাম না, যা পৃথীবিতে আমরা এত কম খরচে ইন্টারনেট চালাতে পারতাম না।

একটু চিন্তা করে দেখুন, তিনি কি উদ্দেশ্যে তার চাকরি ছেড়ে দিলেন আর আমরা বাঙ্গালিরা কি করছি। আমরা এখন সেই প্রপাইটরি সফটওয়্যারের মায়াজালে আটকে পরে আছি?

একটু চিন্তা করে দেখুন।

আগামীতে আরও কিছু লোকজনের ইতিকথা নিয়ে লিখব। আপনাদের সমর্থন এর অপেক্ষায়।