ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে VAT বসানো নিয়ে আমাদের দেশে গত কিছুদিন ধরে বিভিন্ন রকম তর্ক বিতর্ক হচ্ছে ৷ ব্যক্তিগত ভাবে আমি সব সময় ই তর্ক বিতর্ককে খুবই ভালবাসি ৷ একজন মানুষ তার নিজের চিন্তা ধারা তুলে ধরবে,  তার পক্ষে যুক্তি দিবে এবং বিপক্ষের কথা শুনে তা খণ্ডন করবে , এটি একটা সমাজের জন্য খুব ভাল দিক ৷ তবে আমি মনে করি আমাদের এই প্রক্রিয়ায় একটু ভুল আছে ৷ভুলটি হচ্ছে যুক্তি তর্ক ভাল কিন্তু দিন শেষে যার যুক্তি অধিকতর শক্তিশালী তা মেনেও নিতে হবে ৷কিন্তু আমরা উন্মুক্ত মনে বিতর্ক করি না৷ নিজের ধারনা টি একমাত্র সম্ভাব্য সঠিক চিন্তা ধরেই আমরা বিতর্ক শুরু করি ৷ কিন্তু বিতর্কের মূল বিষয়টি ই হচ্ছে  অন্যের চিন্তাধারা গ্রহণ করবার অন্তত সঠিক হতে পারে তা খতিয়ে দেখবার মানুষিকতা থাকতে হবে ৷ নাহলে তর্ক বিতর্ক থেকে সময় অপচায় কারী কোনও কাজ আর থাকতে পারে না ৷

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে যখন শাহবাগ এ গন আন্দোলন হচ্ছে তখন হঠাৎ খেয়াল করা গেল যারা আন্দোলন করছে তারা আস্তিক না নাস্তিক তা নিয়ে একটি বিতর্ক শুরু হল ৷ এক সময় দেখা গেল যে আন্দোলন রত সেই মানুষ গুলো সৃষ্টি কর্তায় বিশ্বাস করে কি করে না তার সাথে আমরা যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তির ব্যাপারটি মিলিয়ে ফেললাম ৷ ব্যাপারটি এমন ভাবে উপস্থাপন করা হল যে মুক্তিযুদ্ধের সময় কিছু অমানুষ আমাদের দেশের নিরপরাধ মানুষকে মেরেছে তাদের বিচার থেকে ও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ালো কে আস্তিক আর কে নাস্তিক ৷এবং সেই ছুতোয় তাদের মুক্ত করতে অনেক চেষ্টা অপচেষ্টা চালানো হল ৷

একই ব্যাপার লক্ষ করা গেল No Vat On Education এর আন্দোলন এর সময় ও ৷ যখনই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর ছাত্র ছাত্রী রা আন্দোলন শুরু করল এই বলে  যে শিক্ষা একটি মৌলিক অধিকার এবং এর উপর Vat থাকা চলবে না তখনই কিছু লোক এই বিষয় গুলো বিষয় তুলে ধরা ধরলেন

১৷ এক দল বলল – বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর ছাত্ররা সব ধনী পরিবার এর ৷ ১০০০ টাকায় ৭৫ টাকা [যদিও অর্থমন্ত্রী বলেছেন সেই টাকাটি ৭৫০ টাকা; আরেকবার বলেছেন ৭৫০০০ টাকা] তাদের এই টাকা দেওয়া কোনও সমস্যা না ৷

২৷ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার মান খুব খারাপ, তারা টাকা দিয়ে সনদ পত্র কিনে ৷ সুতরাং তাদের Vat দিতে হবে ৷

শুরুতেই প্রথম বক্তব্যে আসি,

১.১. বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর সকল ছাত্র ছাত্রীরাই ধনী পরিবার এর নয় ৷ আরও পরিষ্কার করে বললে এখানকার বেশির ভাগ ছাত্র ছাত্রই মধ্যবিত্ত পরিবার এমন কি নিম্নবিত্ত পরিবার এর ৷ আমার বন্ধুবান্ধব সার্কেলেই আমি এমন অনেক কে চিনি যারা দিনে ২০ টাকার ও কম পকেটে নিয়ে ভার্সিটি এসেছে সারাদিন না খেয়ে ক্লাস করে লোকাল বাসে ঝুলে ঝুলে বাসায় গেছে ৷ আমার বন্ধুবান্ধব সার্কেলে এমন ছাত্র ও আছে যার বাবা নেই, মা তাদের একমাত্র বসত ভিটা বিক্রয় করে তার ছেলেকে বিশ্ববিদ্যালয় এ পড়িয়েছে ৷  আমি সঙ্গত কারনেই তাদের নাম ঠিকানা বলতে পারছি না ৷ পারলে আমি এখানে দিয়ে দিতাম আপনারা খোজ নিয়ে দেখতে পেতেন ৷

বড়লোকের ছেলে কি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এ পড়ে না ? আমি যদ্দুর জানি মেধার বিবেচনায় সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এ সুযোগ হয় ৷ কার আর্থিক অবস্থা কেমন সেই বিবেচনায় না ৷ আমি এমন অনেক কে চিনি যারা সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এ পড়ে এবং তাদের বাবা মায়ের ঢাকা শহরে বেশ কয়েকটি দারান এবং গাড়ী আছে ৷ ব্যাংক এর খবর আমি যদিও জানি না ৷ তবে সেটিও কম থাকার কথা নয় ৷

 

তার চেয়ে ও বড় বিষয় কে ধনী কে গরীব তা নয় শিক্ষা একটি মৌলিক অধিকার এবং ভ্যাট তার অন্তরায়, এ বিষয়ে reference সহ আরও কথা বলব৷

২. শিক্ষার মান একটি বস্তুগত ধারনা ৷ শিক্ষার মানকে বাংলাদেশে গোনার জন্য কোনও জরিপ আজ পর্যন্ত হয় নাই ৷ এখন আপনি কি করে বলবেন যে এই বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার মান বেশি এই বিশ্ববিদ্যালয় এ শিক্ষার মান কম?

আপনি হয়তো এখন রেগে ফেটে পড়ছেন ৷ এই লোক বলে কি ! ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কি North South University এর শিক্ষার মান ভাল ?

আমি বলছিনা ভাল, আবার আমি এ ও বলছি না, ভাল না ৷ আমি কিছুই বলতে পারছি না কারন আমার কাছে যথেষ্ট প্রমাণ নাই ৷ এখন আপনি হয়তো ভাবছেন আচ্ছা তাহলে বিসিএস কে একটি মানদণ্ড ধরে এগোই ৷ কিন্তু আপনি যে বিষয় টি ভুল করছেন তা অত্যন্ত গুরুত্ব পূর্ণ ৷ আপনি একটু সময় নিয়ে ভাবুন ব্যাপারটি ধরতে পারেন কিনা ! কি পারলেন না ? আরও ভাবুন …

আপনি যদি হতাশ হয়ে আমাকে গালাগালি শুরুই করে থাকেন তবে আমার পরবর্তী যুক্তি গুলো হয়তো আপনার এক কানে দিয়ে ঢুকে আরেক কানে দিয়ে বের হবে ৷ আমি তবু বলছি…

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ সবাই ভর্তি হতে চায় ৷ কারন এখানে পড়তে পয়সা কম লাগে ৷ এখন তুমুল প্রতিযোগিতা পূর্ণ ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে যখন  দেশের সবচেয়ে মেধাবী ছাত্রগুলোকে একটি বিশ্ব বিদ্যালয় নিয়ে গেল তাদের ছাত্ররা ভাল করবে এতে কি কোনও সন্দেহ আছে ?

ঢাকার মতিঝিল এ একটি কলেজ আছে ৷ তাদের ভীষণ সুনাম ৷ এত মানুষ এখানে ভর্তি হতে চায় যে এরা এস এস সি এর গোল্ডেন GPA  ছাড়া নেয় না ৷ এবং প্রতি বছর ই এইচ এস সি তে তাদের অনেক ছাত্রই গোল্ডেন GPA  ৫ পায়৷ মজার বিষয় হচ্ছে তাদের কিছু ছাত্র পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারে না ৷ এখন আমার কথা হচ্ছে আপনি যদি ঐ কলেজে কে ভাল কলেজ বলেন কিসের ভিত্তিতে বললেন ?

ঐ GPA  ৫ পাওয়া ছাত্র গুলোকে আপনি যে কোনও কলেজে ভর্তি করালে তারা বেশিরভাগ ৫ পেত এবং কিছু উত্তীর্ণ হত না ৷  তাহলে দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর মাঝে কি পার্থক্য ?

তার চেয়ে ও বড় কথা হচ্ছে প্রায় ই শোনা যায়, সেশন জট, শিক্ষকরা ক্লাস নেয় না, ছাত্র শিক্ষকরা রাজনীতিতে জড়িয়ে কোন্দল করছে  ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এই লক্ষ করা যায় ৷

মজার বিষয় হচ্ছে এতক্ষণ আমি পড়া লেখার মান নিয়ে যত কথা বললাম তার সবই অদরকারি ছিল ৷ কারন আসল কথা হচ্ছে কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর শিক্ষার মান খারাপ বলে সেই বিশ্ববিদ্যালয় এর ছাত্রদের Vat দিতে হবে কেন ?

 

দেশের উন্নয়নে অর্থমন্ত্রীর অর্থ দরকার

এটা মানতেই হবে দেশের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে অর্থ মন্ত্রীর টাকা দরকার ৷ উনি সেই জন্যেই অর্থ সংগ্রহ করতে শিক্ষায় ভ্যাট বসিয়েছেন ৷ কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে এমন অনেক ক্ষেত্র আছে যেখানে অর্থ মন্ত্রী Vat বসাতে পারতেন ৷ দুই একটি কোনও গবেষণা না করেই বলা যায় যেমন, বিলাস বহুল গাড়ী ক্রয় করার সময় এমপি মন্ত্রীরা ভ্যাট দেয় না , গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রি যন্ত্রপাতি কেনায় ভ্যাট দেয় না ৷ আপনি এখন বলতে পারেন এটা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর এ ভ্যাট বসালে এটি বিকাশ হবে না ৷ কিন্তু আপনি ভুলে গেছেন, শিক্ষার চেয়ে  গুরুত্বপূর্ণ আর কিছুই হতে পারে না ৷ হয়তো এই জন্যেই আমাদের সমাজের এই অবস্থা  এদেশের বিশাল একটি জনসংখ্যা income tax দেয় না আপনি তাদের কাছ থেকে tax ঠিক মত গ্রহণ করলে আপনার অর্থের কম পড়ত না ৷

 

এবার মৌলিক অধিকার বিষয়ে আসি ৷

একটি জাতি বিভিন্ন সময় সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে ৷ সেই জন্যে প্রতিটি জাতির একটি সংবিধান থাকে ৷ আমাদের বাংলাদেশের সংবিধান এর  ১৫ অনুচ্ছেদ এ বলা আছে

  “রাষ্ট্রের অন্যতম মৌলিক দায়িত্ব হইবে পরিকল্পিত অর্থনৈতিক বিকাশের মাধ্যমে উৎপাদনশক্তির ক্রম বৃদ্ধিসাধন এবং জনগণের জীবনযাত্রার বস্তুগত ও সংস্কৃতি গত মানের দৃঢ় উন্নতিসাধন, যাহাতে নাগরিকদের জন্য নিম্নলিখিত বিষয়সমূহ অর্জন নিশ্চিত করা যায়: “

এবং ১৫ এর (ক) বলা আছে

  “(ক) অন্ন, বস্ত্র, আশ্রয়, শিক্ষা ও চিকিৎসা সহ জীবনধারণের মৌলিক উপকরণের ব্যবস্থা”

দুটি লাইন থেকে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে আমাদের সংবিধান এ শিক্ষা কে মৌলিক অধিকার হিসেবে ধরা হয়েছে ৷ এবং এ ও বলা হয়েছে রাষ্ট্রের অন্যতম দায়িত্ব হল শিক্ষা নিশ্চিত করা ৷ খেয়াল রাখতে হবে এখানে বলা হয় নাই যে শুধু প্রাথমিক শিক্ষা মৌলিক অধিকার বলা হয়েছে শিক্ষা মৌলিক অধিকার ৷

আমরা যদি ভাল করে চিন্তা করে দেখি তাহলে সহজেই বোঝা যায় যে শিক্ষা একটি অধিকার, এটি কোনও পণ্য নয়৷ আর সকল যুক্তি তর্কের শেষ কথা হচ্ছে এটি রাষ্ট্রের  একটি অন্যতম দায়িত্ব ৷সংবিধান এর ২৬ এর (২)

”  রাষ্ট্র এই ভাগের কোন বিধানের সহিত অসমঞ্জস কোন আইন প্রণয়ন করিবেন না এবং অনুরূপ কোন আইন প্রণীত হইলে তাহা এই ভাগের কোন বিধানের সহিত যতখানি অসামঞ্জস্যপূর্ণ, ততখানি বাতিল হইয়া যাইবে। “

যেখানে সংবিধান শিক্ষা (মৌলিক অধিকার) নিশ্চিত করতে বলেছে  সেখানে একে তো রাষ্ট্র বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর ছাত্রদের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এ পড়ার সুযোগ দিতে পারছেই না বরং  শিক্ষার উপর Vat চাপিয়ে দিয়ে শিক্ষার প্রতি অন্তরায় সৃষ্টি করছে না ? এটি কি সংবিধান এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন নয়  ?

যখন একটি প্রতিষ্ঠান রাষ্ট্র কে VAT দেয় রাষ্ট্র লাভবান হয়, তার মানে কি ? রাষ্ট্র চাইবে প্রতিষ্ঠান টি আরও লাভ করুন ৷ যত কম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং তাদের আসন সংখ্যা  হবে সরকার এর এর তত লাভ, কারন এর থেকে তারা ভ্যাট পাবে , অন্যদিকে পাবলিক এ সিট এবং বিশ্ববিদ্যালয় বাড়লে ভর্তুকি দিতে হবে  ৷ এটি কি কোনও কল্যাণ ধর্মী রাষ্ট্রের নীতি হতে পারে ?

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এর ছাত্র ছাত্রীদের একটি সুখবর দেই ৷

আমাদের দেশে এস সময় বাস ভাড়া, বিদ্যুৎ ফি, ট্রেন ভাড়া এবং আরও অনেক জন-গুরুত্ব পূর্ণ বিষয়ে সরকার অনেক টাকা ভর্তুকি দিত ৷ মজার বিষয় হচ্ছে দিন যত যাচ্ছে এই সব ক্ষেত্রে ভর্তুকি উঠে যাচ্ছে ৷একটি সমাজের, রাষ্ট্রের পরিবর্তন হয় আস্তে আস্তে  তাই আমরা তা দেখেও দেখি না ৷ ধরেন বাজারে গিয়ে আলুর দাম ১২ টাকার বদলে ১৪ টাকা দেখলে নিয়ে আসেন ৷ ২ টাকার জন্য আলু না খেয়ে থাকা তো যাবে না৷ সমস্যা হচ্ছে এভাবেই পরিবর্তন আসে ৷ আজ আপনাদের সরকার ভর্তুকি দিয়ে পড়াচ্ছে, আপনারা আনন্দে আছেন ৷ এই আন্দোলন আপনাদের না ঠিক আছে ৷ তবে আপনি নিশ্চিত থাকুন আপনার ছেলে মেয়ে অথবা তার ছেলে মেয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এ ও অর্থের কারনে পড়তে পারবে না, তবে কথা থাকে তাড়া পাবলিকে সুযোগ পাবে তো ?