ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে আওয়ামীলীগের প্রায় অর্ধশত সম্ভাব্য এমপি প্রার্থীর প্রচারনা শুরু হয়ে গেছে। এর মধ্যে বেশি প্রচারনা শুরু হয়ে গেছে চট্টগ্রাম মিরেরসরাই আসন ০১ -এ। বর্তমান সরকারের মাননীয় গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং একেই আসনে প্রচারনায় ব্যাস্ত আছেন  উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. গিয়াস উদ্দিন, তিনি প্রতিদিন গনসংযোগ করে যাচ্ছেন। কখনো বাড়ি বাড়ি গিয়ে কখনো হাসপাতালে অসুস্থ্য মানুষকে দেখতে যান। সব মিলে তার সময় পার করছেন সাধারন মানুষের সাথে। যতটুকু সম্ভব সবাইকে সহায়তা করছেন। এদিকে অনেকে ধারনা করছেন আগামি সংসদ নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন অংশ না নিয়ে তাঁর ছেলে মাহবুব রহমান রুহেলকে প্রার্থী করতে পারেন, তাই বিভিন্ন সময় এলাকায় প্রচার-প্রচারনা ও অনুষ্ঠানে যোগদান করছেন। 

গিয়াস উদ্দিন বলেন, দলের জন্য আমি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছি। গতবারও নমিনেশন চেয়েছিলাম। আগামি নির্বাচনেও চাইবো। তবে দলের সভানেত্রী যে সিদ্ধান্ত দেবেন সেটাই মেনে নেব। ব্ঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি, সব সময় সাধারন মানুষের পাশে আছি ভবিষ্যতে ও থাকবো । আমার প্রাণের নেত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্ত মেনে কাজ করবো। যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন তাহলে নমিনেশন দেবেন । তবে আশা করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর।

আগামি সংসদ  নির্বাচনে মীরেরসরাই– ১ আসন থেকে মনোনোয়ন প্রত্যাশী আলহা্জ্ব  মো. গিয়াস উদ্দিনের জন্ম ১৯৫৬ সালে। তিনি মীরেরসরাই থেকে এসএসসি ও এইচএসসি শেষ করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজতত্ব বিভাগ থেকে অনার্স ও মাষ্টার্স শেষ করেছেন। ১৯৭৫ সালের পর রাজনীতিতে স্বক্রিয় হন। ১৯৭৪ সালে উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন।চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি হন ১৯৮২ সালে। ১৯৯২ সাল থেকে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে কাজ শুরু করেন। এরপর জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও জয়েন্ট সেক্রেটারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে বিএনপির হাজী আবুল কাশেমকে পরাজিত করে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি।