ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

শুভেচ্ছা-১
মাহে রমজানের সিয়াম সাধনার পর আসছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। সবাইকে ঈদের অগ্রীম শুভেচ্ছা। সবাই ভাল থাকবেন। বাড়িতে যারা যাচ্ছেন সাবধানে যাবেন।
রাস্তায় অপরিচিত কারো সাতে বন্ধুত্ব করতে যাবেন না। কোন খাবার বা পান জাতিয় কিছু খাবেন না। সবসময় আল্লাহকে আপনার সৃষ্টিকর্তাকে স্মরন করুন। পরিবারের সদস্যদের জন্য কিছু গিফট নিয়ে যান।

শুভেচ্ছা-২
মা এই নাও তোমার জন্য একটা শাড়ী
বাব আল্লাহ তোরে বাচয় রাখুক।
আব্বা তোমার জন্য এই পাঞ্চাবী আর লুংগী
অযথা টাকা নষ্ট করার কি দরকার ছিল।

শুভেচ্ছা-৩
সুলতানা তোমার জন্য এবার ঈদে বড় একটা সারপ্রাইজ আছে।
কি?
এবার ঈদে তোমাকে কিছু দিতে পারছিনা।

শুভেচ্ছা- ৪
ছোটন তুমি জামা নিয়ে কোথায় যাও?
মা রাস্তার পাশে একটা ছেলে খালিগায়ে বসে আছে। তুমিতো এবার ঈদে আমাকে নতুন জামা দিয়েছ তাই পুরোনোটা ছেলেটাকে দিব।

শুভেচ্ছা-৫
আম্মাগো ফেতরার টাকা দিবেন
এই নাও
আম্মা জাকাত দিবেন না?
আমারে জাকাত ফরয হয় নাই।
নফল হিসাবেই দেন।

শুভেচ্ছা-৬
দাদু তোমায় ছালম করেছি ইদি দাও
কিভাবে দিব? এপর্যন্ত ১০০জনকে দিয়েছি। এখন আমারে উল্টা ইদি দে।

শুভেচ্ছা-৭

দোস্তা সামানের বাসার খালাম্মা আমারে ঈদের দাওয়াত দিছে
কসকি ? তাইলেত জব্বর খাওন খাবি।
খামু। ওগো ফালাইননা খাওন।

শুভেচ্ছা-৮
শুনছেন ভাই সামনে রাস্তায় নাকি গাড়ী পোড়াইছে
কারা পোড়াইল
আরে ঈদ বোনাস পায় নাই । সেজন্য গ্রামেন্টসের শ্রমিকরা ভাংচুর জ্বালও পোরাও করতাছে।

শুভেচ্ছা -৯
বাবা তুমি আমার আর আপুর জন্য ঈদের জামা-কাপর কিনেছ মা আর তোমরটা কোথায়?
এখন তোদেরই ঈদ মা। তোরা খুশি হলেই আমরা খুশি। তোদের ঈদই আমাদের ঈদ।

শুভেচ্ছা-১০
আমা বাবা নেই। মা আছে। ঈদের নামাজ শেষে মায়ের পায়ে সালাম করার সৌভাগ্য যেন হয়। আল্লাহর কাছে এই দোয়া করি।