ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

 

মার্চ মাস। স্বাধীনতার মাস। জ্বলে উঠার মাস। শোককে শক্তিতে রুপান্তর করে কিভাবে জয়ী হতে হয় এ মাস আমাদের তাই শিখায়। বর্বর হানাদারদের কিভাবে শায়েস্তা করতে হয় এ মাস তারই স্বাক্ষী হয়ে আছে। মার্চ আসলেই ৭ই মার্চের ভাষণ শুনি। মার্চ মানেই যেনো শেখ মুজিব। কিন্তু যে মার্চ মাস নিয়ে আমাদের এত আলোচনা আজকের দিনে এই মার্চ মাসে আমাদের সাথে কি হচ্ছে?

এমাসেই রিজার্ভ মানি লুট। এ মাসেই খেলার মাঠে ষরযন্ত্রের স্বীকার দুই উদীয়মান টাইগার। এ দুটো ঘটনাই ঘটেছে প্রতিবেশী দেশের মেহেরবানীতে। অথচ এরাই ছিল ৭১ এর মার্চ থেকে শুরু করে ৯টি মাস আমাদের মিত্র হয়ে। তবে কি এভাবে হেনস্তা করার প্রয়াসেই সেদিন তারা আমাদের মিত্র সেজেছিল শুধু? তবে কি ওরা আমাদের হিডেন প্রভু হতে চেয়েছিল। মীর জাফরের মত পুতুল সরকার বানিয়ে আড়ালে সুতা নাড়ার চেষ্ট নয়তো? যদি তাই হয় এখনও কিন্তু মার্চ মাস। সেই মার্চের শক্তি আজো আমাদের আছে। নি:শেষ হয়ে যায় নি। পাকহানাদারদের যে হাত শিক্ষা দিয়েছে প্রয়োজনে আজ হিডেন প্রভুদেরও শিক্ষা দিবে ইনশাআল্লাহ।

বাংলাদেশ আজ ক্রিকেট পরাশক্তির একটি। এতে ভয় পেয়েছে তিন মোড়ল। তাই ষরযন্ত্রের জাল বিস্তার করছে একের পর এক। গত বছর মার্চ মাসে খেলায় করল দুই নাম্বরী। আমাদের জয় লুটে নিল। আজও আমাদের জয় লুটে নিতে অপকৌশল শুরু করছে। আমাদের শক্তিকে ভয় পেতে শুরু করেছে তারা। তারা বুঝে গেছে আমরাই হতে যাচ্ছি ক্রিকেট দুনিয়ার এক নম্বর পরাশক্তি। তাই দাবিয়ে রাখতে এত বদ আয়োজন। আজ এই মার্চ মাসে ৭ই মার্চের মতো বঙ্গবন্ধুর কন্ঠে বলতে চাই- বাংগালী লড়তে শিখেছে। দাবায়ে রাখতে পারবানা। আজ বঙ্গবন্ধুর বড়ই প্রয়োজন।

মার্চ এলেই মনে পড়ে
মুজিব তোমার কথা
৭ই মার্চের গর্জনে
চেয়েছিলে স্বাধীনতা।

তোমার স্বপ্ন সোনার বাংলা
গড়তে হলে এখন
মুজিব তুমি কোথায় আছো
তোমারই প্রয়োজন।

তোমার মতো কেউ ভাবে না
তেমন হয়নি কেহ
কোথায় তোমার ভালবাসা
মায়া আর স্নেহ।

আজকে যারা তোমার নামে
হাজার স্বপ্ন দেখে
নিজের স্বপ্ন করছে পুরণ
তোমায় সামনে রেখে।

আজ দেখ স্বাধীনতা
ডিশের কাছে আধা
আমার দেশের সংস্কৃতিটা
দাদার কাছে বাঁধা।

তোমার মত উচ্চ কন্ঠে
কেউ আর বলে না
আমি বাংগালী আমি মুসলামান
দাবায়া রাখতে পারবা না।

হে মহান সৃষ্টিকর্তা তুমি আমাদের সহায় হও। আমাদের জালিমের বিষদাত ভেঙ্গে দেবার তৌফিক দান কর।