ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

আজ দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় যুবক সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে ” যুবকের সম্পদ উদ্ধারে রিসিভার নিয়োগ হচ্ছে”। রিপোটটিতে যা বলা হয়েছে তার সারসংক্ষেপ:
১. রিসিভার নিয়োগ দেবার প্রস্তব প্রধানমন্ত্রীর নিকট অনুমোদনের জন্য প্রেরন
২. এটি অনুমোদন হলে দায় শোধ করবে বানিজ্যমন্ত্রনালয় সংশ্লিষ্ট যুবক কে নিবন্ধন দেয়া প্রতিষ্ঠান জয়েনষ্টক কোম্পানীর ।
৩. নিবন্ধন দেয়ার দায় নিয়ে যুবক কোম্পানির সম্পত্তি পুনরুদ্ধারের তৎপরতা শুরু করতে রাজি হয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
৪. আরজেএসসির উদ্যোগে একটি শক্তিশালি টিম গঠন করা হবে।
৫. তারা যুবকের সম্পদেএকটি তালিকা তৈরি করবে জেলা ভিত্তিক।
৬. তারা সম্পত্তি উদ্ধারের পর তার বাজার মূল্য ঠিক করবে। এরপর গ্রাহকদের পাওনা পরিশোধ শুরু করবে।
৭. যে সম্পদটি বিক্রিতে জটিলতা তার শেয়ার দেয়া হবে গ্রাহককে এবং ঐ সম্পদে গ্রাহকের মালিকানা নিশ্চিত করা হবে।
মুলত এই নতুন খবর। এই উদ্যোগটি কতটা ভালো ও যুক্তিযুক্ত তা এর ফলাফলের উপর নির্ভর করবে। তবে বাহ্যিক ভাবে বলা যায় এটা সরকারের যুবক বিষয়ে একটি পজেটিভ অগ্রগতি।
যুগান্তরের এই রিপোর্টটির শেষ টিতে যুবকের সম্পদের তালিকা দেয়া হয়েছে- সেখানে যুবকের টেলিবার্তা বা ধানমন্ডির বাড়ীর কথা আসলেও আসেনে ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি, আর, টিভি, জালালবাদ ঔষধ কোম্পানী, শেয়ার প্রতিষ্ঠান যুবক ক্যাপিটেল ম্যানেজম্যান্ট কিংবা মেঘনা সী ফুড বা বিচ হ্যাচারী বা লামার রাবারের ইন্ডাস্ট্রিজের কথা। যুবকের সম্পদের তালিকা থেকে এই রিপোর্টটিতে কেন এই উল্লেখযোগ্য কোম্পানীগুলোর নাম বাদ দেয়া হলো তা যুবকের গ্রাহকদের কাছে বোধগম্য নয়। এগুলো কিন্তু যুবকের বড় বাজেটের সম্পদ। তাহলে কি কাউকে আড়াল করতে রিপোটে এই সম্পদগুলো হাইড করা হয়েছে?
নিরপেক্ষ সাংবাদিকরা কি তবে কারো স্বার্থ রক্ষার চেষ্টা করছেন? তারা কোন রাঘব বোয়ালদের পক্ষে যেনো না যান এই অনুরোধ। তারা শোষিত গ্রাহদের পক্ষে যেন থাকেন সবসময় ।

প্রশ্ন জাগছে গ্রাহকেদের মনে, যুবকের সম্পদ বিক্রি সংক্রান্ত জটিলতার কথা বলে কি বোজাচ্ছে? আবার বলছে শেয়ার দেবে? তাছারা পত্রিকায় প্রায় প্রকাশিত হয় যুবকের দায় বেশি সম্পদ অনেক কম। তবে এর সমন্বয় কি করে হবে? আদো কি সম্পদ উদ্ধার করা যাবে? বিক্রিত সম্পদ কিভাবে উদ্ধার হবে? তার শেয়ার কি দেয়া হবে? কিংবা জোড় করে যে সম্পদ ভোগ দখল করছে প্রভাশালিরা তাদের থেকে কি সম্পদ উদ্ধার করা হবে? তাদের সম্পদের কি শেয়ার দেয়া হবে? যেমন – ধানমন্ডীর বাড়ি বিক্রি হয়েছে? তা কিউদ্ধার করা হবে? তার শেয়ার দেয়া হবে। কিংবা আর.টিভি । জোড় করে নেয়া হয়েছে। বেংগলগ্রুপ এখন নিজেদের আয়ত্বে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। অথচ তাদের শেয়ার কম। যুবকেরই ৫৭% শেয়ার। সেটা কি উদ্ধার করা হবে? তার শেয়ার কি গ্রাহকদের দেয়া হবে? যেহেতু এসব প্রতিষ্ঠানগুলো সরকার দলীয় প্রভাব শালীদের দখলে তাই এই শংকা সবার মনে। তবে উদ্ধার করা গেলে সরকারের এই উদ্যোগ কাজ করবে। নচেত নয়। গ্রাহকরা নতুন সিদ্ধান্তে নতুন আশায় বুক বেধেছে। সুদিন আসেবে এটাই প্রত্যাশা।