ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 

সকালে উঠে পাখির কলকাকলি। চারদিকে ফুরে ফুরে নির্মল বায়ু। মনমুগ্ধকর এক প্রকৃতি। এতো সবারই চাওয়া। নগরায়নের হাওয়ায় বায়ু আজ দুষিত। পাখিরা আজ পরিবেশে হারা। তাদের গান থেমে গেছে । এখন শুনা যায় নানা রকম যান্ত্রিক শব্দ । প্রকৃতি আজ হারাচ্ছে তার স্বক্রিয়তা। এর মাঝে যদি দেশের সবচেয়ে বড় ও মনমুগ্ধকর সুন্দর বন বিলুপ্তির পায়তারা হয় কেমন লাগে? একটি দেশে যে পরিমান বনাঞ্চল থাকা দরকার তার থেকে অনেক কম আমাদের। এর মধ্যে যা আছে তা নিয়ে যদি টানা টানি হয় কেমন লাগে? অনেকে এটা পরিবেশবাদীদের একক আন্দোলন বলে সুন্দর বন রক্ষার আন্দোলনকে একঘরে করে দুর্বল করার চেষ্টা করেছন। না এটা শুধু পরিবেশবাদী নয় এটা মানবতার আন্দোলন। যে নির্মল বায়ু অক্সিজেন আমাদের শরীরে নিত্য প্রবাহিত তাকে এভাবে নিশ্বেষ করে মানবতাকে হুমকির সমুক্ষীন করার আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে সরে আসতে বাধ্য করতে হবে। এ দায়িত্ব তাই কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের একক দায়িত্ব নয়। আপনার আমার সবার দায়িত্ব । আসুন সুন্দর বন রক্ষায় জোড়াল করি আমাদের ঐক্যতান । বাজুক স্বরে শ্লোগান আর শ্লোগান।

সুন্দরবন ধ্বংস করে……… বিদ্যুৎকেন্দ্র দরকার নাই
নির্মল প্রকৃতি চাই…………… সুস্থ্য নিশ্বাস চাই

slide

সুন্দর বন রক্ষায় আসুন সবাই মিলে জেগে উঠি...................কন্ঠে কন্ঠ মিলিয়ে একসাথে আওয়াজ তুলি........................... সুন্দরবনে বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ কর .....................করতে হবে