এ কেমন চলে যাওয়া, ফারুক!

তখন আমি ভোরের কাগজে। টগবগে তরুণ। মাত্র অনার্স শেষ করেছি। ১৯৯৩ সাল। পল্টনের জুয়েল হাউসে অফিস। আমাদের গুরু সঞ্জীব’দা (দলছুটের )। পাগলের মত কাজ করি। অনেকটা লবণের মত। যখন যেখানে প্রয়োজন। কন্ট্রিবিউটিং। কাগজের সম্পাদক মতি ভাই ( প্রথম আলো সম্পাদক) একদিন বললেন, ফয়েজ আহমদকে চেন? বললাম, না। তিনি অবাক এবং বিরক্তি নিয়ে বললেন, তোমার সাংবাদিকতার… Read more »

শাওন দোষি আর অপরাধি হুমায়ূন…

কন্যাবন্ধু শাওন। ভালবেসে বিয়ে করেছিলেন । আমি দু:খিত! বলতেই হচ্ছে, বিকৃত রুচির ঐ মানুষটি বাবার যোগ্যতা হারিয়েই কাছে টেনেছিলেন শাওনকে। আর শাওন বন্ধুবাবাকে করেছিলেন স্বামী! যে কিনা থাকার কথা পিতার আসনে। শাওন অবশ্যই দোষ করেছিলেন। কারণ, ঐ বয়সী মানুষকে বিয়ে করার জন্য নয়- দোষ হচ্ছে, বন্ধুবাবাকে বিয়ে করা। আর হুমায়ূন? ভয়ঙ্কর অপরাধ করেছিলেন- কন্যাবন্ধুকে বিয়ে… Read more »

কে ক্ষমতাবান- বাড়িওয়ালা না সরকার?

অন্য শহরের কথা বাদ। ঢাকা শহরের কথা বলি। যে হারে বাড়ি ভাড়া বাড়ছে তাতে মানুষ ( অবশ্যই ভাড়াটিয়া) অতি অল্প সময়ে বিক্ষুদ্ধ হতে বাধ্য। কারণ, এখানে আইনের কোন বালাই-ই নেই। যখন যেমন ইচ্ছা- বাড়ছে বাড়িভাড়া। দেখার কেউ নেই। ভয়ংকর নিরাপত্তাহীন জনগণ! দ্রব্যমূল্য বাড়ছে। বাড়াও বাড়িভাড়া। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ছে- বাড়াও বাড়িভাড়া। বিদ্যুতের দাম বাড়ছে- বাড়াও… Read more »

‘তোমার ই-মেইল সঙ্গে নিয়া আসছো, না বাসায়?’

শিরোনাম কাহিনীটা পরে বলি। আগে মূল কথায় আসি। যদি বলি, এখন চলছে ডিজিটাল সরকারের যুগ। তাহলে মনে হয়, ভুল হবে না। কারণ, বর্তমান সরকারের যে দল, সেই দলের জনপ্রিয় একটি শ্লোগান- ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’। তরুণরা তো বটেই, আমরা, মধ্যবয়সীরাও ঐ শ্লোগানে মুগ্ধ হয়েছিলাম নির্বাচন সময়ে। এক, দুই, তিন করে বর্তমান সরকারের চার বছরে হাঁটছি আমরা। কিন্তু… Read more »

অনলাইন আয়ে আমরা হব বিশ্বসেরা!

শিক্ষা মানুষকে আলোকিত করে। আমরা শিক্ষা গ্রহণ করি মূলত দুটি কারণে। এক. স্বাবলম্বী হয়ে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখা এবং দুই হচ্ছে অন্যকে একই পথে নিয়ে আসতে সহযোগিতা করা। প্রশ্ন হচ্ছে, আমরা কোন শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে আলোকিত হব? শিক্ষা গ্রহণ শেষে অর্থ উপার্জনই যদি মূল লক্ষ্য হয়, তাহলে আমরা তো আর মানুষ থাকি না। আবার অর্থ ছাড়া… Read more »

কোন পথে যাবেন এটিএন সাংবাদিকরা ? অপেক্ষায় থাকলাম!

একজন মানুষের জন্য এটিএন বাংলা পরিবারের সদস্যরা চরম অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছেন। মুখে কিছু না বললেও, আমরা অনুমান করতে পারি- তাদের মধ্যে কাজ করছে ভয়াবহ অস্থিরতা। এই দু:সময়ের শেষ কোথায়, কে জানে? তবে আমরা যারা সাংবাদিক. তারা এটুকু বুঝি- কয়েক‘শ পরিবারের হাজার হাজার মানুয়ের ভাগ্যে হয়তো এগিয়ে আসছে কঠিন দুর্যোগ! প্রার্থনা করি, এমনটি যেন না হয়।… Read more »

ক্যাটাগরীঃ ব্লগ

ড. (!) মাহফুজের গারল পারিষদ এবং বাচালনামা!

সপ্তাহখানেক আগে এক লেখায় এমনই আশংকা করেছিলাম। বলেছিলাম, সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার বিষয়টি না ধামা-চাপা পড়ে যায়। সামনে আবার কোন্ বিষয় আমাদের যন্ত্রণা দেয়? হলোও তাই। পরাধীন বাংলাদেশে যা হয়নি, প্রেসক্লাবের বাইরে এবং ভিতরে স্বাধীন বাংলাদেশে সেদিন তাই ঘটল। মুখোমুখি সাংবাদিককুল। পাশবিক আক্রমণ। কল্পনা করা যায়! আমরা কোথায় যাচ্ছি? এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানকে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ… Read more »

ক্যাটাগরীঃ গণমাধ্যম

‘অঁপনা মাংসে হরিণা বৈরী/খনহ ন ছাড়ই ভুঁসুকু অহেরি’!

এই লেখার শিরোনাম হয়েছে একটা চর্যাপদ থেকে। অর্থটা পরে বলি। আগে আসল কথায় আসি। চাপা পড়ে গেছে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি। এখন টক অব দ্য ঢাকা- … মানববন্ধনে এটিএন বাংলা সাংবাদিকদের হামলা। অভিযোগ, একজন সাংবাদিক নেতাকে দলবদ্ধভাবে তারা হামলা করেছেন। তাকে লাঞ্ছিত করেছেন। পরবর্তীকালে দ্রুততম সময়ে আবার সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে। সেখানে এটিএনের বার্তা প্রধান… Read more »

ক্যাটাগরীঃ গণমাধ্যম

সাংবাদিকদের মধ্যেই হাতাহাতি: এ কিসের আলামত!

জ.ই.মামুন আমার সহকর্মী ছিলেন ভোরের কাগজে। অত্যন্ত মার্জিত এবং ভদ্র। মিল্টন ছিল জনকণ্ঠের বরিশাল প্রতিনিধি। জনকণ্ঠে প্রায় ১ যুগ জড়িত ছিলাম। ওকে চিনতাম। মানস ঘোষ আমার সম্পাদিত জনকণ্ঠের আনন্দকণ্ঠে দীর্ঘদিন লিখেছে। অসম্ভব বিনয়ী। ওর হাসিটা চমৎকার । আমার খুব ভাল লাগে। আর ভোরের কাগজের শামীমকেও আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। আজ হঠাৎ এমন কী হলো যে, কাকের… Read more »

ক্যাটাগরীঃ গণমাধ্যম

দু’চোখে স্বপ্ন তার …?

মগবাজার চৌরাস্তার সামনে। রমনা থানার উল্টোপাশের ফুটপাত। ১৫/১৬ বছর বয়সী একটি ছেলে ডান পা ছড়িয়ে বসে আছে। অসম্ভব ফোলা সেই পা। মাঝখানে লাল দগদগে ঘা। দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে চারপাশ। পথচারী নাকে রুমাল দিয়ে ঐ জায়গা পার হচ্ছেন। ভনভন করে ওড়ছে কয়েকটি মাছি। দম বন্ধ হয়ে আসে। তোমার নাম কি? রাজু। কী করো? দ্যাহেন না? বলছিলাম, তোমাকে… Read more »

ক্যাটাগরীঃ চারপাশে