ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

2015-IPL-Cheerleaders-Images

ভারতীয় মুভি ‘মেরি ব্রাদার কি দুলহান’ দেখার পর ‘ইন্ডিয়া কি দুলহান’ তথা আইপিএল নামক ক্রিকেটীয় মুভি বেশ ভালই উপভোগ করছি।হ্যা,চিয়ার গার্লদের মোহনীয় নাচ তো মুভির অংশই ইংগিত করে।

টাকার গন্ধ যে মদের নেশাকেও ছাপিয়ে যায়, তা প্রমাণ করে দিয়েছে ললিত মোদির এই আইপিএল। নক্ষত্রখচিত জার্সি আর সেই জার্সির মোড়কে ক্রিকেটার নামধারী একেকটা বাজিকর চরিত্র বেশ ভাল বাজিখেলাই দেখাচ্ছে।সারা বিশ্বের প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের ননীর পুতুল করে কাঁচের ভিতর সাজানো হয়েছে,,ঠিক অনেকটা টুর্নামেন্ট ট্রফির মতই।

যে খেলোয়ারদের দেশের খেলার জন্য প্রাণ দিতে দেখা যায়, তারাই সেখানে কিভাবে নিলামি পণ্য বনে যায়? উত্তর অতি সহজ! অভিনয়! টাকার জন্য অভিনয়!অভিনয়ের জন্য টাকা!-এটাই তো ‘ইন্ডিয়ান পয়সা লীগ’। বিশ ওভারের এই খেলার বাইরে আছে সানাইয়ের বাঁশি, আর অন্তরালে ‘বিষের বাঁশি’।

‘বড়লোকি’ এই টুর্নামেন্টে কারো মন কিন্তু বড় হয়না।বরং দামি সাজসজ্জা আর দামি পোষাকের আড়ালে ক্রিকেটের ক-ও না জানা পরিচালকদের “ছোটলোকি” মনমানসিকতা অনেকটা বগলচাপা পড়ে যায়। এই খেলায় এসে টেস্ট-ওয়ানডে খেলা শান্তিপ্রিয় ব্যাটসম্যানদের তখন ব্যাটের সাথে সাথে দাতগুলোও ক্ষুদার্ত হয়ে পড়ে।তাই আইপিএল আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে শান্তি, দিয়েছে জন্ম হিংস্রতার।

আইপিএল আর রেসলিং এর মধ্যে কিন্তু চরম মিল আছে। উভয় খেলায়ই হারলেও পয়সা বেশী।তাই অই টুর্নামেন্টে সম্ভবত জয়ের চেয়ে হারটা বেশি মূল্যবান। এখানে ব্যাটসম্যানরা মহাজন, আর বোলাররা দাস! টাকার জন্য খেলোয়াড় যে গরুর মত রান নিতে পারে-এও এখানে বিস্ময়কর কিছু নয়।তাই শেষ ওভারের পরিশ্রান্ত বোলার আবারো বোলিং লাইন আপে নিজেকে নিয়ে যান পরের বলে আরেকটা ছক্কা খাওয়ার প্রস্তুতিতে।

এখানে ব্যাটসম্যানদের ব্যাট আর চিয়ার গার্লদের দেহ একই তালে নাচে।সেই সাথে সংলাপ মডেলিদের যৌনতার সুড়সুড়িতে মাঠ আর গ্যালারি হয়ে উঠে যেন ডোপামিনের বাহক।বুড়ো খেলোয়ারদেরও জোয়ান করে ২২ গজে ছেড়ে দিয়েছে এই ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ।তাই আইপিএল আজ হয়ে উঠেছে ‘ক্রিকেটের ভায়াগ্রা’।বিধাতার এই নির্মল ধরনীতে যে কত সেলুকাস আছে,খেলাটি না দেখলে তা বোঝা দুষ্কর। কোটি টাকার কেনাবেচার এই মাঠে ‘পণ্যসমূহের’ দামগুলোও যেন অযৌক্তিক।যুবরাজ সিং কিংবা দীনেশ কার্তিকের মত জাতীয় দলের বাইরে খেলা প্লেয়াররা কিভাবে এই খেলার ‘হটকেক’ হয়ে উঠেন তা হয়তো অনেকেরই অজানা।

আসলে,ভারত এমন এক বিশাল দেশ যেখানে কিশোর থেকে যুবক সবাই ক্রিকেটের জন্য অজ্ঞান।আর এই দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে পুঁজিবাদী আইপিএল।এটি এখন ভারতের সবচেয়ে বড় উৎসবে পরিণত হতে যাচ্ছে। স্পন্সরদের যে মেলা এখানে দেখা যায়,তাতে সন্দেহ হচ্ছে অদূর ভবিষ্যতে না গ্যালারির সব দর্শকই স্পন্সর হয়ে যায়!

সত্যিকার অর্থে আইপিএল একধরনের ‘ক্রিকেটিয় ব্যাধি’র নাম।একে বলা যায় নিষিদ্ধ ক্রিকেট।আর নিষিদ্ধ জিনিসের প্রতি আকর্ষন মানুষের সেই আদিকাল থেকেই চিরন্তন।সেই অর্থে আমজনতার কাছে আজ আইপিএল এত জনপ্রিয়।কিন্তু এই আইপিএল থেকে ভারত তথা বিশ্ব কি পেয়েছে পরবর্তী যুগের ব্র্যাডম্যান,ব্রায়ান লারা কিংবা লিটল মাস্টারকে?বরং এসব ক্রিকেটীয় ব্যাধির স্লো পয়জোনীয় থাবায় আগামী ক্রিকেটের সুপ্ত-প্রতিভা পরিনত হচ্ছে সুপ্ত লাশে।