ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

সুপ্রিয় বন্ধুরা, আজ আমরা একটি ব্লগ বৈঠকের আয়োজন করেছি। আমাদের আজকের বিষয়-ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের মূলধন সরবরাহ

এই বিষয়টিকে বেছে নেওয়ার কারণ হচ্ছে নবীন এবং ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা আমাদের অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখতে পারে একটু পৃষ্ঠপোষকতা পেলে। ব্যাংকের কাছে ঋণের দ্বারস্থ হয়ে তারা তাদের প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পারবে না। আর ঋণ পাওয়াও সহজ নয়। এই উদ্যোক্তাদের প্রয়োজন মূলধন। কিন্তু এ ধরনের কোনো নীতি নেই সরকারের। সরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে তাদের ২ বা ৩ বৎসরের জন্য মূলধন সংস্থান করা সম্ভব কিনা তা আলোচনা করাই আমাদের আজকের এই ব্লগ বৈঠকের উদ্দেশ্য।

আমরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের কিছু সমস্যা চিহ্নিত করবো এবং এই সমস্যাগুলো দূরীকরণের উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।

প্রথমেই আসি একজন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা কি কি সমস্যার সম্মুখীন হয়।

১. ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ব্যাংক থেকে সহজে ঋণ পায় না। অন্য কোনো সংস্থা থেকেও অর্থ সহায়তা পাওয়ার উপায় নেই।
২. উদ্যোক্তাদের প্রকল্প প্রস্তাবনা (প্রজেক্ট প্রোফাইল) আধুনিক নয়।
৩. উদ্যোক্তার উৎপাদিত পণ্য কর্পোরেট বিজ্ঞাপনের যুগে প্রচারের ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকে। ফলে পণ্যের প্রচার যথাযথ হয় না।
৪. একজন প্রফেশনাল উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হয় না।
৫. পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে ভোক্তার কাছে সরবরাহ পর্যন্ত অনেকগুলো ধাপ থাকে। একজন নবীশ উদ্যোক্তা ব্যবসায়ের সবগুলো ধাপ সম্পর্কে অবহিত থাকে না। ফলে ব্যবসায়ে টিকে থাকতে কষ্ট হয়।
৬. যে কোনো প্রকল্প শুরু করতে প্রথমেই একটি সাংগঠনিক ভিত্তি দাঁড় করাতে হয়। একমালিকানা, অংশিদারী, যৌথমূলধনী, সমবায়…যে নামেই হোক একটি সংগঠন দাঁড় করিয়ে কার্য এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে উদ্যোক্তাদের যথেষ্ঠ ধারণা থাকে না।
৭. একজন উদ্যোক্তা পর্যাপ্ত শিক্ষিত নাও হতে পারেন। উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও নেই।

সমস্যাগুলো কিছু আলোচনা করলাম। আপনাদের দৃষ্টিতে নিশ্চয়ই আরও অনেক সমস্যা ধরা পড়বে। আশা করি এখানে বিস্তারিত আলোচনা করবেন।

বন্ধুরা, এবার আসি একজন নতুন উদ্যোক্তাকে সমস্যাগুলো থেকে কিভাবে বের করে নিয়ে আসা যায়- এই আলোচনায়।

এ বিষয়ে আমরা একটি কর্মকৌশল প্রণয়ন করতে পারি। আপনারা আপনাদের মতামতগুলো তুলে ধরুন। এই মতামতগুলো নিয়ে আমরা একটি কর্মকৌশল প্রণয়ন করবো। একজন নতুন উদ্যোক্তার করণীয় কি এ বিষয়টি আমাদের এই ব্লগীয় কর্মশালা থেকে বের হয়ে আসলে উদ্যোক্তাদের জন্য তা অনুকরণীয় হয়ে থাকবে আশা করি।

আশা করি আপনাদের প্রাণবন্ত আলোচনায় ব্লগ বৈঠকটি জমজমাট হবে। সবাইকে ধন্যবাদ।